শেষ হয়েছে সপ্তদশ লোকসভা ভোট। ছয় জন বিজয়ী মুসলিম প্রার্থীকে এবার লোকসভায় পাঠাচ্ছে পশ্চিমবঙ্গ। সংখ্যাটা গতবারের থেকে দুই কম।

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় পরিচালিত  তৃণমূল থেকে এবারের লোকসভায় ছয়জন মুসলিম  যাচ্ছেন লোকসভায়, কংগ্রেস পাঠাতে সক্ষম মাত্র একজনকে। 

হাড্ডাহাড্ডি লড়াই করে মাত্র ১ শতাংশ ভোটে জয় ছিনিয়ে নিয়েছেন আরামবাগের অপরূপা পোদ্দার।  বিবাহের পর ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করে আফরিন আলি নাম গ্রহণ করেছিলেন তিনি। 

রেকর্ড মার্জিনে জিতে লোকসভা যাচ্ছেন টলিউড অভিনেত্রী নুসরত জাহান রুহি।  তাঁর সঙ্গেই এই বছর কেরিয়ারের প্রথম ইনিংস খেলতে লোকসভায়  ঢুকবেন মুর্শিদাবাদের আবু তাহের খান ও জঙ্গিপুরের খালিলুর রহমান। 

প্রায় জীবনমরণ লড়াই করে কংগ্রেসের সাংসদ আবু হাসেম খান চৌধুরী দক্ষিণ মালদহে নিজের আসনটি বাঁচাতে  সক্ষম হয়েছেন।

বলাই বাহুল্য ভাগ্যের শিঁকে ছেড়েনি শেষ মুহূর্তে তৃণমূলে যোগ দেওয়া মৌসম বেনজির নূরের। হাড্ডাহাড্ডি লড়ে হারতে হয়েছে গতবারের রায়গঞ্জের সাংসদ মহম্মদ সেলিমকেও। 

ষোড়শ লোকসভায় মোট ২৩ জন মুসলিম সাংসদ ছিলেন।  বেশির ভাগ মুখই ছিল কংগ্রেস এবং তৃণমূল থেকে। ইউপিএ পরিচালিত  ১৪ ও ১৫ তম লোকসভায় ৩৪ জন এবং ৩০ জন মুসলমান মুখ ছিল। সময়ের সারণী ধরে পিছিয়ে গেলে দেখা যাবে, ১৯৮০ এর লোকসভায় ৪৯ জন মুসলিম সদস্য ছিল।

এবছর লোকসভায় মুসলিম মুখ গতবারের তুলনায় চারজন বেশি। তবে উল্লেখ্য  লোকসভায় বিজেপির তরফে কোনও মুসলিম মুখ নেই।