কল হো না হো ছবিটি আজও দর্শকদের মনে তরতাজা। এই ছবির প্রতিটি দৃশ্যই যেন দর্শকদের কাছে ভিষণভাবে কাছে। শাহরুখ ভক্তদের কাছে এটি ছিল এক বিশাল উপহার। যা এক কথায় অনবদ্য। সুপারহিট ছবিটি বক্স অভিসেও আধিপত্য বজায় রেখেছিল। নিজের সর্বস্য উজার করে দিয়েই যেন রোম্যান্সে মেতে ছিলেন কিং খান। 

তবে ছবির ইতিহাস বলে অন্য কথা। কাল হো না হো ছবিতে পরিচালক করণ জোহারের পছন্দের তালিকাতে ছিল শাহরুখ খান প্রথম থেকেই। কিন্তু সেই তালিকাতে ছিলেন না সইফ কিংবা প্রীতি। দুজনেই পরবর্তীতে এই ছবি করার প্রস্তাব পেয়েছিলেন। সইফের চরিত্রের জন্য প্রথম প্রস্তাব গিয়েছিল অভিষেক বচ্চনের কাছে। সেই চরিত্রে তিনি সময় দিতে না পারাতে অফার যায় ভাইজানের কাছে। তিনিও এই প্রস্তাব ফিরিয়ে দিলে সুযোগ পান সইফ। 

একইভাবে সুযোগ পেয়েছিলেন প্রীতি জিন্টা। প্রথমে এই চরিত্রের জন্য পছন্দ করা হয়েছিল করিনা কাপুর খানকে। তিনি ছবির প্রস্তাব ফিরিয়ে দেওয়ার পরই ঘটে বিপত্তি। তড়িঘড়ি খোঁজা হয় অন্য কাউকে। তারপরই করণের মাথায় আসে প্রীতির কথা। সেই তিন জুটিতেই ছবিকে করে তুলেছিল এক কথায় সুপার হিট। ছবির ১৬ বছরের মাথায় এসে কোথাও যেন আজও সেই স্মৃতি তরতাজা।