যখন সুস্থ ছিলেন, তখনও মৃত্যুর ভুয়ো খবর ছড়িয়ে পড়েছিল সোশ্যাল মিডিয়ায়। আর এখন তো তিনি হাসপাতালে ভর্তি। ফের সম্রাজ্ঞি লতা মঙ্গেশকরের 'মৃত্যুর খবর' ছড়িয়ে পড়ল হোয়াটসঅ্যাপে।  যথারীতি নামে শোকের ছায়াও। কিন্তু ঘটনা হল, আগের থেকে এখন অনেকটাই ভালো আছেন লতা মঙ্গেশকর। ধীরে ধীরে সুস্থ হয়ে উঠছেন তিনি। শনিবার মুম্বইয়ে ব্রিচ ক্যান্ডি হাসপাতালে তরফেই একথা জানানো হয়েছে। 

বয়স নব্বই পেরিয়ে গিয়েছে।  জনসমক্ষে তাঁকে প্রায় দেখা যায় না বললেই চলে। বার্ধক্যজনিত অসুস্থতার কারণে এরআগে হাসপাতালে ভর্তি হতে হয়েছিল লতা মঙ্গেশকরকে। সোমবার ভোরে ফের অসুস্থ হয়ে পড়েন তিনি। ভর্তি করা হয় মুম্বইয়ে ব্রিচ ক্যান্ডি হাসপাতালে।  চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, নিউমোনিয়া ও বুকে সংক্রমণজনিত অসুখে ভুগছেন লতা। হাসপাতালে ভর্তির সময়ে শারীরিক অবস্থা এতটাই সংকটজনক ছিল, যে আইসিইউ-তে রাখতে হয় কিংবদন্তী এই সংগীতশিল্পীকে। শ্বাস-প্রশ্বাস চলছিল জীবনদায়ী ব্যবস্থায়। তবে চিকিৎসায় ধীরে ধীরে শারীরিক অবস্থায় উন্নতি হয়েছে তাঁর। শনিবার মুম্বইয়ে ব্রিচ ক্যান্ডি হাসপাতালে মুখপাত্র জানিয়েছেন, চিকিৎসায় সাড়া দিচ্ছেন লতা মঙ্গেশকর। এখন আগের থেকে অনেক ভালো আছেন তিনি।

 

 

 

এদিকে লতা মঙ্গেশকর যখন ধীরে ধীরে সুস্থ হয়ে উঠছেন, ঠিক তখন ফের মৃত্যু ভুয়ো খবর  ছড়িয়ে পড়ল হোয়াটসঅ্যাপে। 'মুম্বইয়ে ব্রিচ ক্যান্ডি হাসপাতালে প্রয়াত লতা মঙ্গেশকর'। শনিবার সন্ধে থেকে এমনই বার্তা ছড়িয়ে পড়ে হোয়াটসঅ্যাপ-সহ বিভিন্ন সোশ্যাল মিডিয়ায়।  প্রিয় শিল্পীর মৃত্যু খবরে ভেঙে পড়েন ভক্তেরা। 

উল্লেখ্য, এবার প্রথম নয়, এরআগে একাধিক বার সোশ্যাল মিডিয়ায় লতা মঙ্গেশকরের মৃত্যু খবর ছড়িয়ে পড়েছিল।  ঘটনায় রীতিমতো ক্ষোভ  প্রকাশ করেছিলেন সুরসম্রাজ্ঞী স্বয়ং।  বলেছিলেন, 'সোশ্যাল মিডিয়া আর কতবার তাঁকে, অমিতাভ বচ্চনকে কিংবা দিলীপ কুমারকে মৃত বলে ঘোষণা করবে!'  সোশ্যাল মিডিয়া ব্য়বহারকারীদের করার সতর্ক থাকার পরামর্শ দিয়েছিলেন লতা মঙ্গেশকর।