দিল্লির উপকণ্ঠে আন্দোলন চালিয়ে যাওয়া কৃষকদের প্রতি সমর্থন জানিয়েছিলেন মার্কিন পপস্টার রিহানা। যার জেরে তিনি বর্তমানে একাধিক সাইবারবাসীর ক্ষোভের মুখে পড়েছেন তিনি। টুকড়ে টুকড়ে গ্যাং নাকি তাঁকে কিনে নিয়েছে, কিংবা কৃষকদের সমর্থনে টুইট করার জন্য রিহানা নগদ টাকা পেয়েছেন। এই ধরণের কুমন্তব্যের পাশাপাশি সম্প্রতি ভাইরাল হয়েছে একটি ছবি। 

দাবিঃ 

পাকিস্তানের পতাকা হাতে নিয়ে দাঁড়িয়ে রয়েছেন রিহানা। স্টেডিয়ামের মাঝে দাঁড়িয়ে রিহানা। চোখে রোদচশমা পরণে জিনস, টিশার্ট। উত্তরপ্রদেশের বিজেপি মুখপাত্র শলভ মানি ত্রিপাঠি একটি টুইট রিটুইট করেছেন যেখানে রিহানার ছবিটি ভাইরাল হয়েছে। রিহানাকে পাকিস্তানি বলে দাবি করে বসেছে একাধিক নেটিজেনরা। উত্তরপ্রদেশের বিজেপির যুবা মোর্চা কর্মী অভিষেক ছবিটি শেয়ার করেন। 

 

 

ফ্যাক্ট চেকঃ

বিভিন্ন ধরণের ক্যাপশনও ছড়িয়ে গিয়েছে চারিদিকে। 'চমচাদের নয়া রাজমাতা', 'চমচাদের নয়া রাজমাতা রিহানা। এবার আপনি বাকিটা বুঝে নিন।' শঙ্খনাদ নামক এই পেজটি থেকে প্রায়সই ফেক নিউজ অর্থাৎ ভুয়ো খবর ছড়ানো হয়। টুইটার ফেসবুকে ঝড়ে গতিতে ছড়িয়ে যাওয়া এই ছবির আসল সত্য অন্য। একাধিক নেটিজেনের দাবি রিহানার ছবি মর্ফ করা হয়েছে। 

 

 

সত্য ঘটনাঃ

২০১৯ সালে ১ জুলাই পোস্ট আইসিসি-র টুইটার পেজ থেকেই এই ছবিটি শেয়ার করা হয়। যেখানে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে সমর্থন জানিয়ে ওয়েস্ট ইন্ডিজ এবং শ্রীলঙ্কার ম্যাচে স্টেডিয়ামে দাঁড়িয়ে রিহানা। নিজের নতুন সিঙ্গেল শাট আপ অ্যান্ড কভার ড্রাইভ-এর প্রচারও করেছিলেন। দুরহামে তোলা হয়েছিল এই ছবি। অন্যাম্য বান্ধবীদের সঙ্গে দাঁড়িয়ে ওয়েস্ট ইন্ডিজের পতাকা হাতে দাঁড়িয়ে ছিলেন রিহানা। পাকিস্তানের পতাকা হাতে রিহানা মোটেই ছিলেন না। রিহানা নিজেও এই ম্যাচের সময় ওয়েস্ট ইন্ডিজের ক্যাপ পরে ছবি পোস্ট করেছিলেন। পাকিস্তানের পাতাকা হাতে ছবিটি সম্পূর্ণ ফেক।   

 

 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 

A post shared by badgalriri (@badgalriri)