সালটা ২০০১। পর্দায় তখন রোহিতের রাজ। কাহোনা পেয়ার হ্যায় মুক্তির পর থেকেই প্রেক্ষাগৃহে উপচে পড়া ভিড়। বলিউড পেয়েছিল তার পরবর্তী সুপারস্টারকে। আর ভক্তরা পেয়েছিলেন গ্রীক গডকে। প্রথম ছবিতেই রোহিতের সারল্য ও রাজের স্মার্টনেস কাবু করেছিল ভক্তদের। সুপার হিট ছবি বেশ কয়েকবছর ধরেই সেরার তালিকাতে জায়গা করে নিয়েছিল।

আরও পড়ুনঃ জেএনইউ-তে দীপিকা, ঝুঁকি নিতে নারাজ কর্পোরেট জগত মুখ ফেরাচ্ছে একে একে

আরও পড়ুনঃ ভাঙা হাঁটু নিয়ে ফ্রন্ট ফ্লিপ, ব্যালান্স হারিয়ে পড়ে গিয়েছিলেন দিশা

তারপর থেকে একের পর এক ছবি। মিশন কাশ্মীর, ফিজা, কিংবা কোয়ি মিল গ্যায়ার মত ছবি। হৃত্বিকের অভিনয়ের জাদুতে যেন সবই হচ্ছিল সুপার হিট। তারপরই মাঝের কিছুদিন খানিকটা ঘাটতি। সেভাবে পর্দায় পাওয়া গেল না হৃত্বিক রোশনকে। দর্শকদের মনে ঝড় তোলা এই অভিনেতা প্রতিটি পরতেই যেন নিজের সেরা অভিনয়টা নিংরে দিতে চেয়েছিলেন। 

                                                                                  

দুই দশক অতিক্রমের মুখে এসে আবারও ঘুরে দাঁড়ালেন হৃত্বিক। মুক্তি পেল সুপার ৩০। মুহূর্তে সেই ছবি বক্স অফিসে ঝড় তুলেছিল। সেই জ্বরে কাবু দর্শকেরা মালুমই পেলেন না পেছনে পেছনে চলছিল যুদ্ধের প্রস্তুতি, কয়েকমাস গড়াতে না গড়াতেই মুক্তি পেল ওয়ার ছবি। বক্স অফিসে আরও এক সুপার হিট ছবি। বর্তমানে পাইপলাইনে রয়েছে একাধিক ছবি। নয়া লুকে হৃত্বিক প্রস্তুত আরও দুই দশক বড় পর্দায় রাজ করতে।