কলকাতা আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবের ২৫তম বর্ষে এসে পরিণত বাংলার চলচ্চিত্র উৎসব। উপস্থিত অতিথিদের মুখে একটাই সুর, এত বড় আয়োজন, এত সুন্দর উপস্থাপনা কোনও চলচ্চিত্র উৎসবেই দেখা যায় না। শুক্রবার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে এসে দাঁড়িয়ে গর্বের সঙ্গে জানালেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। 

একই সুরে সাধুবাদ জানালেন রাখী গুলজার। এদিন সন্ধ্যায় বাংলাতেই নিজের বক্তব্য রাখলেন তিনি। শাহরুখের হাত ধরেই মাইকের সামনে দাঁড়ালেন। স্পষ্ট বাংলায় গর্বের সঙ্গে জানালেন তিনিও বাংলারই মেয়ে। তাই এই অনুষ্ঠান তাঁর গর্বের। এখানেই শেষ নয়, সঙ্গে তিনি আরও জানান, এদিন সন্ধ্যায় যে উপস্থাপনা, যে আয়োজন তিনি দেখলেন তা তিনি দিল্লিতেও দেখেননি। 
ফলে সমস্ত ক্রেডিট পেলেন রাজ চক্রবর্তী ও চলচ্চিত্র উৎসবের সঙ্গে জড়িত আরও অন্যান্য সদস্যরা। এদিন প্রদীপ জ্বালিয়ে অনুষ্ঠান শুরু করার পরই নতুন চলে অতিথি বরণের পালা। সেখানে শাহরুখ খানকে বরণ করলেন নুসরত জাহান, মহেশ ভাটকে বরণ করলেন যিশু সেনগুপ্ত, সৌরভ গঙ্গোপাধ্যাকে বরণ করে নিলেন জিৎ গঙ্গোপাধ্যায়, রাখী গুলজারকে বরণ করে নিলেন দেব। 

 

 

একদিকে যখন রাজ চক্রবর্তীকে ঘিরে প্রশংসার ফোয়ারা তখনই চোখে পড়ে মঞ্চে উপস্থিত নেই প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায়। কয়েকদিন আসেই চলচ্চিত্র উৎসবের সভাপতির পদ থেকে সরে গিয়েছিলেন তিনি। মাত্র মাস কয়েক আগের ঘটনা, নতুন দায়িত্ব কাঁধে তুলে নিয়েছিলেন রাজ চক্রবর্তী। বৃহস্পতিবার থেকেই জল্পনা ছিল তুঙ্গে, অনুষ্ঠানে প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায় থাকছেন কি না। যথা সময় দেখা পাওয়া গেল না তাঁর। তেমনই দেখা মিলল না ঋতুপর্ণা সেনগুপ্তরও। একদিকে টলিউডের বুম্বাদার অনুপস্থিতি, তেমনই অন্যদিকে রাজ চক্রবর্তীর বাজিমাত সকলেরই নজর কাড়ল এদিন।