সিরিয়ালের নয় রানাঘাটের রাণু এখন খবরের শীর্ষে। তাকে চিনতে আর কারও বাকি নেই। তাঁর অসাধারণ শিল্প প্রতিভাই তাকে আজ এই জায়গা এনে দিয়েছে। তাঁর গান শুনে মুগ্ধ হয়েছিলেন অনেকেই। তাঁর গান শোনার পর প্রথমে তিনি দূর্গা পুজোর একটি থিম সং করার জন্য ডাক পান সোশ্যাল মিডিয়ায়। এর পরে ভাইরাল হওয়া তাঁর গানের জন্য তাঁর ডাক আসে মুম্বই থেকে। 

প্রখ্যাত গায়ক হিমেশ রেশমিয়া তাঁকে ডেকে পাঠান মুম্বইতে গান গাওয়ার জন্য। ডাক আসার সঙ্গে সঙ্গেই রাণু চলে যান সেখানে। হিমেশ রেশমিয়ার সঙ্গে একটি গানের রেকর্ডও করে আসেন সেখানে। সোশ্যাল মিডিয়ার দৌলতে রাতারাতি যেন সেলিব্রিটি হয়ে যান তিনি। গান গেয়ে আসার পরেই সবার ধুম পড়ে যায় তাঁর সঙ্গে সেলফি তোলারও। স্টেশন চত্ত্বরে রাত কাটানো রাণু রাতারাতি সেলিব্রিটি হয়ে যান। এ যেন ঠিক বাংলার ধারাবাহিক রাণু পেল লটারির বাস্তব রূপ। তবে বাস্তবের এই রানু তার রেকর্ডিং -এর জন্য কত টাকা পেয়েছেন শুনলে সবাই অবাক হয়ে যাবেন। 

আরও পড়ুন: স্টেশন চত্বর থেকে বলিউড! রাণু-র জীবনে নতুন অধ্যায়, গান গাওয়ালেন হিমেশ রেশমিয়া

বলিউডের আসন্ন ছবি 'হ্যাপি হার্ডি অ্যান্ড হির' -এর তেরি মেরি গানটির জন্য তিনি ৬-৭ লক্ষ টাকা পেয়েছেন বলে সূত্রের খবর। ভালো লাগা থেকেই গান করেন তিনি ফলে প্রথমে তিনি টাকা নিতে চাননি। পরে অবশ্য হিমেশের কথা ফেলতে পারেননি তিনি। তাঁর জোরা জোরিতে সেই টাকা নিতে রাজি হন তিনি। সব মিলিয়ে রাস্তায় দিন কাটানো রাণু এখন সবার নয়নের মনি। যাকে একদিন কেউ ঘুরেও দেখত না আজ তাঁকে একবার দেখতেই ভিড় করছে সাধারণ মানুষ।