সঞ্জু ছবির মধ্যে দিয়ে সঞ্জয় দত্তের জীবনের কথা এখন অনেকেরই জানা। বেশ কিছুটা অধ্যায় মানুষের কাছে যেন স্পষ্ট করেই তুলে ধরেছিল এই ছবি। কিন্তু কোথাও গিয়ে এই ছবির গল্পকেই আরো বেশি জোরালো করে তুলেছিলেন সঞ্জয় দত্ত। জীবনে তাঁর একাধিক অধ্যায়, কখনও তিনি সুপারস্টার, কখনও আবার শ্রীঘরে বাস। নিজেই এবার সেই অভিজ্ঞতার কথা জানালেন সঞ্জয় দত্ত। 

আরও পড়ুনঃ বছরের শুরুতেই ভূতের দাপট, আসছে চার পরিচালকের হাড়হিম করা ওয়েব সিরিজ

এক একটি ছবির জন্য যেই অভিনেতা লাখ লাখ টাকা পারিশ্রমিক নিয়ে থাকেন, সেই মানুষটাকেই ১০ পয়সার জন্য বানাতে হয়েছিল খাম, ঠোঙা। জেলে থাকার সময় এমনভাবেই দিন কেটেছিল সঞ্জয় দত্তর। ছবিটেও দেখানো হয়েছিল তাঁকে সাধারণ কয়দিদের মতই রাখা হয়েছিল। সকলের মত সাজা কমানোর মেয়াদের জন্য তিনিও কাজ করতেন। এর থেকে পয়সাও মেলে। যা বাড়ি ফেরার সময় কয়দিদের দেওয়া হয়ে থাকে। 

আরও পড়ুনঃ এক ঘন্টার পারিশ্রমিক কোটি, নিউ ইয়ারে ঝড় তুলতে এমনটাই চাইলেন উর্বশী

সম্প্রতি একটি রিয়ালিটি শো-তে প্রশ্ন করা হয় সঞ্জয় দত্তকে, ছবির এই দৃশ্য কতটা সত্য। প্রকাশ্যেই তিনি তা স্বীকার করে নিয়ে জানান, সংশোধনাগারে এভাবেই থাকতেন তিনি। এই কাজ শিখতে তাঁর সময় লেগেছিল বেশ কিছুদিন। রীতিমত ঠোঙা-খাম বানাতেন তিনি। সেই দিয়ে রোজগার যা হত, তা দিয়ে রাখী কিনেছিলেন তিনি।