অভিসপ্ত ২০২০-কে বিদায় জানিয়ে নতুন বছরে নতুন শুরুর অপেক্ষায় গোট বিশ্ব। কিন্তু নতুন বছর শুরুর আগেই ফের বিশ্ব জুড়ে চোখ রাঙাচ্ছে করোনার নতুন স্ট্রেন। ইতিমধ্যেই ব্রিটেনে ফের থাবা বসাতে শুরু করেছে করেছে করোনা ভাইরাস। যার মারণ প্রকোপ থেকে বাদ যায়নি ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগও। বিগত এক সপ্তাহে ইপিএলে মোট করোনার আক্রান্তের সংখ্যা মাথায় হাত ফেলেছে সকলের। যা প্রশ্নের মুখে পেলে দিয়েছে লিগের ভবিষ্যৎও।

নতুন মরসুম শুরুর পর থেকেই করোনার প্রকোপ বাড়ছিল ইপিএলে। কিন্তু গত সাত দিনে রীতিমত ভয়ের কারণ হয়ে দেখা দিয়েছে সেই সংখ্যাটা। এক সপ্তাহ  প্রায় ১৫০০ করোনা আক্রান্ত হয়েছে ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগে। মঙ্গলবার নতুন করে ১৮ জন মারণ ভাইরাসে আক্রান্তের ঘটনা ঘটেছে। আক্রান্তের রিপোর্ট আসার পরই তাদের সকলকে কোয়ারেন্টাউনে পাঠিয়ে চিকিৎসা করানো হচ্ছে। কিন্তু যেভাবে লাফি লাফিয়ে বাড়ছে আক্রান্তের সংখ্যা তা উদ্বেগ বাড়িয়েছে ইপিএল কর্তৃপক্ষের।

এখনও পর্যন্ত বড় ক্লাবে যারা আক্রান্ত হচ্ছে তাদের নাম প্রকাশ্যে আনা হচ্ছে না। নিচের দিকের ক্লাব কর্তৃপক্ষ তাদের আক্রান্ত প্লেয়ার, স্টাফ ও কর্মকর্তাদের নাম প্রকাশ করছে। যদিও সোমবার  ম্যাঞ্চেস্টার সিটির স্ট্রাইকার গ্যাব্রিয়াল জেসুস এবং ডিফেন্ডার কাইল ওয়াকার আক্রান্ত হলে জানানো হয় সিটির তরফে। পিছিয়ে দেওয়া হয় এভারটনের বিরুদ্ধে তাদের ম্যাচ। রবিবার চেলসির বিরুদ্ধে সিটির খেলা ঘিরেও তৈরি হয়েছে আশঙ্কা। ফলে বছর শেষে ফের করোনার গ্রাসে প্রিমিয়ার লিগ।