প্রতীক্ষার অবসান ঘটিয়ে ১১ জুন থেকে ফের শুরু হতে চলেছে লা লিগা। প্রথম ম্যাচে মুখোমুখি হতে চলেছে সেভিলা ও রিয়াল বেটিস। দর্শকশূন্য স্টেডিয়ামে খেলা হলেও, প্লেয়ারদের সুরক্ষার জন্য একাধিক নিয়ম লাগু করেছে লা লিগা কর্তৃপক্ষ। লা লিগা শুরু মানেই ফুটবল বিশ্বে একটাই প্রশ্ন কবে বল পায়ে মাঠে নামছেন লিওনেল মেসি। সূচি অনুযায়ী ১৩ জুন মাঠে নামার কথা বার্সার। প্রতিপক্ষ মালোরকা। সকলেই অপেক্ষা করে রয়েছে মেসি,সুয়ারেজ,গ্রীজম্যানদের খেলা দেখার। কিন্তু লা লিগা শুরুর আগেই বড় ধাক্কা বার্সেলোনা ফুটবল ক্লাব সহ লা লিগা কর্তৃপক্ষের। কারণ স্পেনের সংবাদ মাধ্যমের দাবি বার্সেলোনার মোট ৭ জন করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। যেই খবর প্রকাশ্যে আসার পর থেকে তীব্র চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে স্পেনে।

আরও পড়ুনঃলা-লিগার ইতিহাসে সেরা ১০ ম্যানেজার,যাদের মগজাস্ত্রেই বাজিমাৎ করত দল

স্পেনের একটি রেডিয়ো চ্যানেল দাবি করেছে, দলের পাঁচ ফুটবলার ও ২ কোচিং স্টাফের শরীরে করোনাভাইরাস ধরা পড়েছে। কিন্তু ক্লাব তা গোপন করে গিয়েছে। যে খবরে লা লিগা শুরু হওয়া নিয়ে নতুন করে তৈরি হয়েছে প্রশ্ন। গত মাসেই বার্সেলোনার তরফে জানানো হয়েছিল, সমস্ত ফুটবলারদের করোনা পরীক্ষা হয়েছে এবং তার ফল নেগেটিভ এসেছে। তা হলে নতুন ভাবে ফুটবলাররা কবে আবার করোনায় আক্রান্ত হলেন? নাকি তখনই ক্লাবের পক্ষ থেকে সেই তথ্য গোপন করা হয়েছিল? যদিও কোন পাঁচ ফুটবলার ও কোচিং স্টাফ করোনায় আক্রান্ত, তা জানাতে পারেনি ওই রেডিয়ো চ্যানেল। তবে শোনা গিয়েছে, যে পাঁচ ফুটবলারের করোনা ধরা পড়েছে, তাঁদের এই রোগ সংক্রান্ত কোনও উপসর্গই ছিল না। পরে রক্ত পরীক্ষা করার সময়ে করোনা পজিটিভ ধরা পড়ে। শোনা গিয়েছে, এর মধ্যে দু’জন সাপোর্ট স্টাফও রয়েছেন। 

আরও পড়ুনঃজর্জ ফ্লয়েড হত্যায় সরব ফুটবল বিশ্ব,মানবিক প্রতিবাদ চেলসির প্লেয়ারদের

আরও পড়ুনঃপ্রতীক্ষার অবসান,৮ জুলাই ফিরছে ক্রিকেট,মুখোমুখি ইংল্যান্ড ও ওয়েস্ট ইন্ডিজ

গত মাসের ১৬ মে বুন্দেশলিগা চালু হওয়ার পর থেকেই সকলের কৌতুহল ছিল কবে থেকে শুরু হবে ইউরোপ তথা বিশ্বের অন্যান্য লিগ গুলি। পরে ঘোষণা করা হয়, ১১ জুন থেকে শুরু হবে লা লিগা, ১৭ জুন থেকে শুরু হবে ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগ ও ২০ জুন থেকে শুরু হতে চলেছে ইতালির সিরি এ লিগ। প্রিয় তারকাদের ফের মাঠে দেখার অপেক্ষায় ছিল ফুটবল বিশ্ব। কিন্তু বার্সেলোনার ৭ জন করোনা আক্রান্তের খবরে আদৌ লা লিগার ভবিষ্যৎ নিয়ে নতুন করে উঠতে শুরু করেছে প্রশ্ন। তবে ক্লাবের পক্ষ থেকে এখনও দলের কারও করোনা ভাইরাসের আক্রান্তের খবর প্রকাশ করা হয়নি।