করোনার প্রকোপ কিছুটা কমতেই ইউরোপ সহ বিশ্বের একাধিক দেশে শুরু হয়েছে ফুটবল। জার্মানিতে শুরু হয়েছে বুন্দেশলিগা। চলতি মাসেই ফিরতে চলছে ইপিএল, লা লিগা, ইতালির সিরি এ লিগ। কিন্তু ক্রিকেট কবে ফিরবে এই কৌতুহল ছিল গোটা বিশ্বের। সম্প্রতি অনুশীলন শুরু করে দিয়েছিল ইংল্যান্ড, অস্ট্রেলিয়া ও শ্রীলঙ্কা সহ বেশ কয়েকটি দল। কিন্তু আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কবে ফিরবে তা ঘোষণা হয়নি এতদিন। এবার সেই অপক্ষায় ঘটল অবসান। ঘোষিত হয়ে গেল লকডাউন পরবর্তী সময়ে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের ক্রীড়া সূচি। ঘোষণা করল ইংল্যান্ড ও ওয়েলস ক্রিকেট বোর্ড। জানিয়ে দেওয়া হল আগামি জুলাই মাসেই ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধে ঘরের মাঠে টেস্ট সিরিজ খেলবে ব্রিটিশ লায়ন্সরা।

আরও পড়ুনঃকরোনার কঠিন সময়ে সকলে মা-বাবার পাশে দাঁড়ান,পুরনো ছবি পোস্ট করে বার্তা সচিনের

করোনার প্রকোপে এক সময় স্থগিত হয়ে গিয়েছিল এই টেস্ট সিরিজ। প্লেয়ারদের স্বাস্থ্য নিয়ে কোনও ঝুঁকি নিতে চাইনি ওয়েস্ট ইন্ডিজ ক্রিকেট বোর্ড ও ইসিবি। এবার সেই সিরিজই হতে চলেছে লকডাউনের পর প্রথম আন্তর্জাতিক ক্রিকেট সিরিজ। প্রথম টেস্ট শুরু হবে ৮ জুলাই। সুতরাং, মার্চের পর দীর্ঘ তিন মাসের বিরতি কাটিয়ে আবার ফিরতে চলেছে ব্যাট-বলের লড়াই। দর্শকশূন্য গ্যালারিতে দু'টি মাঠে খেলা হবে তিনটি ম্যাচ। হ্যাম্পশায়ার বোল ও ওল্ড ট্র্যাফোর্ড, এই দু'টি স্টেডিয়ামকে বায়ো-সিকিওর বা জৈব্য-নিরাপদ বলে চিহ্নিত করা হয়েছে। ৮-১১ জুলাই হ্যাম্পশায়ারে খেলা হবে প্রথম টেস্ট। ১৬-২০ ও ২৪-২৮ জুলাই ওল্ড ট্র্যাফোর্ডে খেলা হবে বাকি দু'টি টেস্ট। ওয়েস্ট ইন্ডিজ ক্রিকেট দল ৯ জুন ইংল্যান্ডে পৌঁছবে। তারা পরবর্তী তিন সপ্তাহ ওল্ড ট্র্যাফোর্ডে কোয়ারান্টাইন ক্যাম্পে থাকবে। তার পর ক্যারিবিয়ান দল প্রথম টেস্টের জন্য হ্যাম্পশায়ারের উদ্দেশ্যে রওনা দেবে।

আরও পড়ুনঃক্রিকেটারদের অনুশীলনের জন্য গাইডলাইন প্রস্তুত করল সিএবি

আরও পড়ুনঃপরিযায়ী শ্রমিকদের পাশে দাঁড়ালেন মহম্মদ শামি, দিলেন খাদ্য,মাস্ক ও জল

দর্শকশূন্য মাঠে হবে তিনটিই খেলা। আইসিসির নির্দেশ অনুসারে সমস্ত রকম স্বাস্থ্য বিধি মেনেই হবে খেলা। কারণ ক্রিকেট ফিরলেও, প্লেয়ার, কোচ ও সাপোর্টিং স্টাফদের সুরক্ষা নিয়ে কোনও রকম ঝুঁকি নিতে চাইছে ইংল্যান্ড ও ওয়েলস ক্রিকেট বোর্ড। সিরিজ কেলতে রাজি হলেও, প্লেয়ারদের স্বাস্থ্যবিধি নিয়ে খুবই তৎপর ওয়েস্ট ইন্ডিজ ক্রিকেট বোর্ডের আধিকারিকরাও। ফলে ফুটবলের পর এবার ৮ জুলাই ২২ গজে বল গড়ানোর অপেক্ষায় বিশ্ব জুড়ে ক্রিকেট প্রেমিরা।