শেষপর্যন্ত ইস্টবেঙ্গলকে স্বাগত জানালো আইএসএলের অফিসিয়াল পেজ। তবে ইস্টবেঙ্গল ক্লাবের আগে জুড়ল এসসি প্রেফিক্স, যার পুরো কথা স্পোর্টস ক্লাব। শনিবার বেলা ১১ টা নাগাদ এসসি ইস্টবেঙ্গল হিসেবে এদিন নিজেদের নতুন লোগো উন্মোচন করল শতাব্দীপ্রাচীন এই ক্লাব। 
সেই সঙ্গে আইএসএলের সোশ্যাল মিডিয়া একাউন্ট গুলি থেকেও স্বাগত জানানো হল লাল হলুদ ক্লাবকে। ফেসবুকের কভার পেজে বেঙ্গালুরু, চেন্নাইয়ান, এটিকে মোহনবাগানের সাথে সাথে জায়গা পেল ইস্টবেঙ্গল ক্লাবও। 

এত বছর ধরে চলে আসা নিয়ম অনুযায়ী শনিবার সাধারণত কোনও বড় ঘোষণা করা হয় না ইস্টবেঙ্গলের তরফ থেকে। কিন্তু নিয়ম রীতি ভেঙে এবার শনিবারেই নিজেদের পথচলা শুরু করল লাল হলুদ ব্রিগেড। শনিবার সকালে ইউটিউবে ভিডিও প্রকাশ করে নিজেদের নতুন লোগোর উন্মোচন করল এসসি ইস্টবেঙ্গল। পাশাপাশি সমস্ত সোশ্যাল মিডিয়া পেজেও নিজেদের লোগো আর নাম পরিবর্তন করে ফেলল ইস্টবেঙ্গল।

 নিয়মের গ্যাড়াকল পেরিয়ে ইনভেস্টর বা স্পনসরদের নিজেদের নাম লোগোতে জুড়ে দেওয়াটা নতুন কিছু নয়। এরকমই বড় উদাহরণ রয়েছে জার্মান বুন্দেশলিগায়। বুন্দেশলিগার নিয়ম অনুযায়ী ক্লাবের আগে ইনভেস্টরের নাম দেওয়া যাবে না। ২০০৯ সালে জার্মান পঞ্চম ডিভিশনের ক্লাব এসএসভি মার্করানস্টাডের সম্পূর্ণ শেয়ার কিনে নিয়েছিল রেড বুল নামক বিখ্যাত কোম্পানি, যারা অন্য বিভিন্ন ইউরোপের লিগেও নানা দলের মালিক। সিটি গ্রূপের মত বৃহৎ না হলেও যথেষ্টই প্রভাবশালী এই রেড বুল গ্রূপে। তো মার্করানস্টাডের মালিকানা পাওয়ার পর লোগো ও নাম বদলে দলের নাম হয় আরবি লিপজিগ। বুন্দেশলিগার নিয়মকে বজায় রাখতে তারা ‘আর বি’ এর ফুল ফর্ম রাখে ‘রাসেনবলস্পোর্ট’। এই কথার অর্থ হল 'লন বল স্পোর্টস'। একইভাবে লিপজিগ ক্লাবের পরিকল্পনাকে অনুসরণ করে ক্লাবের আগে পরোক্ষভাবে নিজেদের ইনিশিয়াল বসিয়ে নিল ইনভেস্টর শ্রী সিমেন্ট।