আবারও চিটফান্ডে নাম জড়িয়ে গেল ইস্টবেঙ্গল ক্লাবের। এক কথায় বলতে গেলে শতবর্ষে আবারও প্রশ্নের মুখে লাল-হলুদ টিম। বর্তমানে তারা খেলছে আইএসএল। যার ফলে শিরোনামে উঠে আসা এই খবরে বেজায় বিরক্ত বিনিয়োগকর্তারা। শুরুটা হয় সারদা কাণ্ড থেকে। ২০১৫ সালে এই কেসে নাম জড়িয়েছিল অধিকর্তা দেবব্রত সরকারের। যার ফলে সাজা প্রাপ্ত হন তিনি। গিয়েছিলেন জেলেও। সেই স্মৃতি উষ্কেই এবার সামনে আবারও সিবিআই-এর চিঠি। এবার নাম জড়ানো কোষাধজ্ঞ তথা ক্লাবের কর্তা দেবদাস সমাজদারের। 

আরও পড়ুন-প্রথম দিনে চেন্নাইতে 'হিটম্যান' শো, দ্বিতীয় দিনে বড় রানের লক্ষ্যে ভরসা 'স্পাইডার প্যান্ট'

সারদা নয়, এবার তদন্ত রোজভ্যালি কেসের। শনিবার এই মামলার তদন্তেই উঠে আসে কর্তা  দেবদাস সমাজদারের নাম। কোনও রকমের আর্থিক লেনদেন হয়েছিল কি না রোজভ্যালির সঙ্গে ইস্টবেঙ্গল ক্লাবের তাই এখন ক্ষতিয়ে দেখার পালা। বারে বারে একই ছবি উঠে আসায় ক্ষুন্ন হচ্ছে দলের মর্যাদা। এর আগেও একাধিক সদস্যের নাম সামনে এসেছিল। বাতিল করা হয় তাঁদের সদস্য পদ। তবে সেই যোগসূত্র যেন শেষ হওয়ার নয়। 

 

এবার সামনে ইস্টবেঙ্গল বর্তার নাম আসাবে বেশ ক্ষুব্ধ বিনিয়োগকারী সংস্থা। তবে শনিবারই প্রথম নয়। ডিসেম্বর মাস থেকেই চলছে দফায় দফায় সিবিআই-এর চিঠি পেশ। ইতিমধ্যেই লাল-হলুদ শিবিরে এসেছে তিনটি চিঠি। একে খেলায় ভালো ফল না হওয়া, তার ওপর চিটফান্ড কেস, দুই মিলিয়ে বেজায় রেগে এখন বিনিয়োগকারী। যার ফলে ত্রমেই বচসা উঠছে তুঙ্গে।