নেইমার, কুটিনহো-দের ছাড়াই বিশ্বকাপ যোগ্যতা অর্জন পর্বের তৃতীয় ম্যাচে জয় পেল ব্রাজিল। চলতি ইন্টারন্যাশনাল ব্রেকে ব্রাজিলের স্কোয়াড তুলনামূলক ভাবে অনেক দুর্বল। চোটের কারণে দলে নেই নেইমার। নভেম্বরের মাঝামাঝি অবধি মাংসপেশির চোটের জন্য মাঠে নামতে পারবেন না কুটিনহোও। চোটের জন্য দলে নেই লিভারপুলের ডিফেন্সিভ মিডফিল্ডার ফ্যাবিনহো। করোনা সংক্রমণের জন্য অনির্দিষ্টকালের জন্য মাঠের বাইরে ব্রাজিল তথা বিশ্বের সেরা ডিফেন্সিভ মিডফিল্ডার ক্যাসেমিরো। তাই একাধিক গুরুত্বপূর্ণ ফুটবলারকে ছাড়াই নভেম্বর মাসে বিশ্বকাপের যোগ্যতা অর্জন পর্বের দুটি ম্যাচ খেলতে হচ্ছে ব্রাজিলকে। 

এই অবস্থাতেই কাল ভেনেজুয়েলার বিরুদ্ধে খেলতে নেমেছিল ব্রাজিল। দলে কোনও নির্ভরযোগ্য উইঙ্গার না থাকায় তিন স্ট্রাইকারকে দিয়ে দল সাজিয়েছিলেন ব্রাজিল কোচ টিটে। এভার্টনের স্ট্রাইকার রিচার্লিসনকে মাঝে রেখে ডান ও বাঁ দিকে যথাক্রমে ম্যানচেস্টার সিটির তারকা স্ট্রাইকার গ্যাব্রিয়েল জেসুস ও লিভারপুলের ভার্সেটাইল স্ট্রাইকার ফিরমিনোকে নামিয়েছিলেন টিটে। শেষপর্যন্ত ফিরমিনোর গোলেই ভেনেজুয়েলাকে ১-০ ফলে হারিয়ে যোগ্যতাঅর্জন পর্বের সবকটি ম্যাচ জিতে তালিকায় এক নম্বরে রইলো ব্রাজিল। 

তাদের পরের ম্যাচটি খেলতে হবে ১৮ তারিখ উরুগুয়ের বিপক্ষে। নেইমার, কুটিনহো-দের ছাড়া সুয়ারেজ-কাভানি সমৃদ্ধ উরুগুয়েকে সামলানো বড় চ্যালেঞ্জ টিটের কাছে। এদিন শক্তিশালী কলম্বিয়াকে ৩-০ ফলে উড়িয়ে দিয়েছে উরুগুয়ে। গোল পেয়েছেন কাভানি, সুয়ারেজ দুজনই। উরুগুয়ের ঘরের মাঠে নেইমারহীন ব্রাজিল কেমন খেলে তা দেখতে উৎসুক ফুটবল ভক্তরা। গ্যাব্রিয়েল জেসুস জানিয়েছেন, ব্রাজিল কোনদিনই একজন তারকার ওপর নির্ভর করে থাকা দল নয়। উরুগুয়েকে তাদের ঘরের মাঠে কড়া প্রতিদ্বন্দ্বিতা উপহার দিতে তৈরি দলের সকলে।