করোনা ভাইরাস মহামারীর জেরে এইবছর পুরো করা যায়নি আই লিগ। বাতিল হয়েছে ২৮টি ম্যাচ। অন্যদিকে আইএসএল ফাইনালও হয়েছে দর্শকশূন্য স্টেডিয়ামে। তারপর থেকেই বন্ধ রয়েছে দেশের সমস্ত ফুটবল টুর্নামেন্ট। ফের কবে মাঠে বল গড়াবে তার উত্তরও অজানা সকলের।  মহামারীর প্রকোপ কমার পর কোন পথেই বা ফের শুরু হবে ফুটবল তা নিয়ে দফায় দফায় কনফারেন্সিংয়ের মাধ্যমে বৈঠক করছেন ফেডারেশনের কর্তারা।  আই লিগ বা আইএসএল নয়! করোনা পরবর্তী সময়ে ক্লাব ফুটসল চ্যাম্পিয়নশিপ দিয়ে ভারতে ফিরতে পারে ফুটবল। অন্তত সেরকম পরিকল্পনাই করছে সর্বভারতীয় ফুটবল ফেডারেশন।

আরও পড়ুনঃপরিস্থিতি স্বাভাবিক না হলে বাতিল হতে পারে অলিম্পিক,আশঙ্কা প্রকাশ অলিম্পিক কমিটির প্রেসিডেন্টের

এশিয়ার বেশিরভাগ দেশের ফুটসলের জাতীয় দলে থাকলেও, আমাদের কোনও জাতীয় দল নেই। ফলে এএফসির কোনও ফুটসল চ্যাম্পিয়নশিপে অংশ নিতে পারে না ভারত। এএফসির তরফে বারবার অনুরোধ আসায় ভারতীয় ফুটবল ফেডারেশনের কর্তারা এ নিয়ে প্রথম আলোচনায় বসেন। গত বছরেই ঠিক হয়েছিল যে নতুন মরশুমের শুরুতে হবে ফুটসল চ্যাম্পিয়নশিপ। সেইমতো সব আই লিগ ক্লাব, আইএসএল ক্লাব, আর দ্বিতীয় ডিভিশনের ক্লাবদের চিঠি লেখে ফেডারেশন। ফেডারেশনের তরফে আমন্ত্রণ পেয়ে কলকাতার দুই প্রধান ইস্টবেঙ্গল-মোহনবাগান জানিয়েছে, ফুটসল খেলার প্রস্তাব নিয়ে ভেবে উত্তর দেবে। তবে কলকাতারই আরেক প্রধান জানিয়ে দিয়েছে, ফুটসল চ্যাম্পিয়নশিপে খেলতে আগ্রহী তারা। মহামেডানের সঙ্গেই খেলার জন্য আপাতত সম্মতি দিয়েছে, বেঙ্গালুরু এফসি, এফসি গোয়া, ওড়িশা এফসি, কেরালা ব্লাস্টার্স, ট্রাউ, এইউ রাজস্থান এফসি, এআরএ এফসি, এবং আইজল এফসি। কিন্তু সব পরিকল্পনায় বাঁধা হয়ে দাড়ায় করোনা ভাইরাস। তাই ফেডারেশনের কর্তারা ভেবেছেন পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে ফুটসল চ্যাম্পিয়নশিপ দিয়েই শুরু হবে ভারতীয় ফুটবল।

আরও পড়ুনঃভারতে খেলতে আসা স্প্যানিশ ফুটবলারদের দেশে ফেরানোর উদ্যোগ,৫ মে বিশেষ বিমান

আরও পড়ুনঃপিসিবির সিদ্ধান্তকে চ্যালেঞ্জ জানাবে উমর, ভাইয়ের পাশে দাঁড়িয়ে জানালেন দাদা কামরান আকমল

ফুটসল টুর্নামেন্টে কোনও বিদেশি ফুটবলার খেলবে না। দলগুলো রিজার্ভ দলের ফুটবলার আর অনূর্ধ্ব ১৮ ফুটবলার দিয়ে এই টুর্নামেন্টে খেলতে পারে। একইসঙ্গে বাইচুং, বিজয়নের মতো তারকাকে খেলিয়েও চমক দিতে পারে দলগুলো। সেক্ষেত্রে টুর্নামেন্ট এক অন্য মাত্রা পাবে। যেহেতু ফুটসল টুর্নামেন্টে কোনও বিদেশি ফুটবলার নেই, তাই ফেডারেশন কর্তারা মনে করছেন জীবনযাত্রা স্বাভাবিক হলে আর ফ্লাইট চালু হয়ে গেলেই এই টুর্নামেন্ট করতে আর কোনও বাধা থাকবে না। তবে করোনা পরবর্তী পর্যায়ে খরচ কমানোর জন্য এই ফুটসল ক্লাব চ্যাম্পিয়নশিপ কলকাতা, দিল্লি, মুম্বইয়ে হওয়ার সুযোগ বেশ কম। এই প্রতিযোগিতা হওয়ার সম্ভাবনা সবচেয়ে বেশি শিলংয়ে। আর এ নিয়ে লারসেন মিংয়ের সঙ্গে ফেডারেশন কর্তাদের এক প্রস্থ আলোচনাও হয়ে গিয়েছে। ফলে মহামারী পর  সবকিছু ঠিকঠাক থাকলে সবুজ গালিচার বদলে কংক্রীটের চার দেওয়ালের ভিতর থেকই ফুটবল ফিরতে চলছে ভারতে।