আজ  ২৯ জুলাই। ঐতাহিসক মোহনবাগান দিবস। ১৯১১ সালের আজকের দিনেই শিল্ড ফাইনালে ইংল্যান্ডের ইস্ট ইর্য়কশায়ারকে হারিয়ে শিল্ড জিতেছিল বাগানের স্বপ্নের একাদশ,গর্বের একাদশ। সবু-মেরুণ সমর্থকদের কাছে এই দিনটির তাৎপর্য, মাহাত্ম্য, আবেগই আলাদা। প্রতিবছর এই দিনটিতে কুর্নিশ জানানো হয় অমর সেই শিল্ডজয়ী একাদশকে। মোহনবাগান রত্ন দিয়ে পুরস্কৃত করা হয় কিংবদন্তিদের। দিনভর চলে নানা অনুষ্ঠান। সকাল থেকেই সদস্য সমর্থকরা ভিড় জমান ক্লাবে। কিন্তু এই বছর চিত্রটা একটু আলাদা। ক্লাব সেজে উঠলেও, নেই সেই সমর্থকদের উপচে পড়া ভিড়। কারণ অবশ্যই সেই করোনা ভাইরাস মহামারী। 

আরও পড়ুনঃ২-১ ব্যবধানে সিরিজ জিতল ইংল্যান্ড, ৫০০ উইকেট নিয়ে নজির গড়লেন স্টুয়ার্ট ব্রড

মোগনবাগান দিবস বলে কথা। উৎসব কিন্তু বন্ধ থাকছে না। ক্লাবের তরফে আগেই জানিয়ে দেওয়া হয়েছে এই বছর ডিজিটাল প্ল্যাটফর্মে পালিত হবে মোহনবাগান দিবস। অনলাইনে দিনভর চলবে নানা অনুষ্ঠান। সকাল থেকে শুরুও হয়ে গিয়েছে সেই  সকল অনুষ্ঠান। সকালে ভিডিও বার্তা দিয়ে মোহনবাগান দিবসের উদ্বোধন করেন টুটু বসু। তারপর হয় মোহনবাগান দিবসের উদ্বোধনী অনুষ্ঠান। দুপুরে মোহনবাগান দিবসে পুরস্কৃতদের নিয়ে তৈরি করা ভিডিও দেখানো হবে। এ বার মোহনবাগান রত্ন পাচ্ছেন গুরবক্স সিং ও পলাশ নন্দী। বর্ষসেরা ফুটবলার জোসেবা বেইতিয়া। সেরা প্রশাসক হিসাবে অঞ্জন মিত্র স্মৃতি পুরস্কার পাবেন আইএফএ সচিব জয়দীপ মুখোপাধ্যায়। এছাড়াও দিনভর  ‘আগামীর স্বপ্ন’ ,  ‘ঘরের ছেলে’ , ‘মাঝমাঠ থেকে ফরোয়ার্ড’, ‘ঘরে ফেরার গান’ নামক টক শো থাকছে অনলইনে। 

আরও পড়ুনঃভারতের প্রাক্তন ক্রিকেট অধিনায়ক,অর্থাভাবে আজ রাস্তার ধারে বসে পাথর ভাঙছেন

আরও পড়ুনঃদেশের অধিনায়ক ছিলেন, বর্তমানে অভাবের তাড়নায় একটি চাকরির জন্য ঘুরছেন দরজায় দরজায়

তারপর সন্ধা বেলায় বসতে চলেছে লাইভ গানের জমজমাট আসর। সংগীত অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকছেন অনিন্দ্য চট্টোপাধ্যায়, লোপামুদ্রা মিত্র, অনুপম রায়, সৃজিত মুখোপাধ্যায় ও দেবশঙ্কর হালদার। ফলে ক্লাবে গিয়ে মোহনবাগান দিবস পালনের আক্ষেপ থাকলেও, সেই আক্ষেপ দূর করার জন্য সদস্য-সমর্থকদের কথা ভেবে ডিজিটাল প্ল্যাটফর্মে দিনভর নানা অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছে ক্লাব কর্তৃপক্ষ।