আইএসএল শুরু হতে বাকি প্রায় তিন সপ্তাহ। তার যাবে আগে চিন্তার ভাঁজ এটিকে-মোহনবাগান হেড কোচ অ্যান্টোনিও লোপেজ হাবাসের কপালে। সবুজ মেরুন শিবির থেকে জানানো হয়েছে শনিবার মোহনবাগান অনুশীলনে গুরুতর চোটে কাবু ভারতীয় স্ট্রাইকার জবি জাস্টিন। আপাতত জানা গিয়েছে চিকিৎসকরা আগামী দুই সপ্তাহ তাকে সম্পূর্ণ বিশ্রামে থাকতে বলেছেন। এরপরে তার চোটের অবস্থা সম্পর্কে পর্যালোচনা করে চলতি মরশুমে তার ভবিষ্যৎ নিয়ে সিদ্ধান্ত নেবেন দলের মেডিক্যাল বোর্ড। যদিও টিমের অন্দরমহলের খবর বলছে এসিএলে চোট পেয়েছেন জবি, যদি সেই খবর সত্যি হয় তাহলে ২০২০-২১ মরশুমে আর মাঠে নামা হবে না প্রাক্তন ইস্টবেঙ্গল স্ট্রাইকারের।

চলতি বছরটা একেবারেই ভালো যাচ্ছে না এই কেরলিয়ান স্ট্রাইকারের। কয়েক মাস আগে তিনি আক্রান্ত হয়েছিলেন করোনায়। যদিও সময়মতো সুস্থ হয়ে কেরল থেকে গোয়ায় দলের সঙ্গে যোগ দেন। গত মরশুমে এটিকের হয়ে ১০টি ম্যাচ খেলেন জবি। কোন ম্যাচেই তেমন বড় কোনও প্ৰভাব ফেলতে পারেননি একদা কলকাতা ডার্বির নায়ক। প্রসঙ্গত ২০১৭-১৮ মরশুমে স্প্যানিশ কোচ আলেহান্দ্রো মেনেন্দেজ গার্সিয়ার কোচিংয়ে ইস্টবেঙ্গলের হয়ে দুর্দান্ত ফুটবল খেলেছিলেন তিনি। মোহনবাগানের বিরুদ্ধে ডার্বিতে গোল করে ম্যাচের নায়কও হন। সেই মরশুমের দুর্দান্ত পারফরম্যান্সের পরেই তাকে দলে নেয় এটিকে।

গত মরশুমের ফুটবলারদের মধ্যে জবির মতোই এটিকে-মোহনবাগানে এ বারও আছে রয় কৃষ্ণা, ডেভিড উইলিয়ামসদের মতো শক্তিশালী বিদেশিরা। এদের সঙ্গে ডিফেন্ডার সন্দেশ জিঙ্ঘান, তিরি, শুভাশিস বসু, নিউক্যাসল ইউনাইটেডের যুব দল থেকে উঠে আসা মিডফিল্ডার ব্র্যাড ইনমান যোগ দেওয়ায় শক্তি আরও বেড়েছে এটিকে মোহনবাগানের। এই কারণেই আইএসএলের প্রথম ডার্বিতে সামান্য হলেও এগিয়ে থাকবে এটিকে মোহনবাগান।