২০২০-২১ মরশুমের ইপিএল এর বেশিরভাগ ম্যাচের দিনক্ষণ প্রকাশিত হয়ে গেল বৃহস্পতিবার। ১২ই সেপ্টেম্বর লিগ জয়ী লিভারপুল মাঠে নামছে ১৬ বছর পর ফার্স্ট ডিভিশনের ছাড়পত্র পাওয়া লিডস ইউনাইটেডের বিরুদ্ধে। ৩০ বছরের খরা কাটিয়ে অবশেষে লিগ জিতেছে লিভারপুল। করোনা আতংকের মধ্যে মাঝে লিগ স্থগিত হওয়ার পরেও লিগ জিততে অসুবিধা হয়নি জুর্গেন ক্লপের দলের। সেই লিগ জয়ের মরশুমের ৪৮ দিনের মাথায় লিভারপুলকে মাঠে নামতে হবে প্রবাদপ্রতিম কোচ মার্সেলো বিয়েসার লিডসের বিরুদ্ধে। যাদের ইপিএলে ফিরে আসার যাত্রাটি একটি রূপকথার গল্পের চেয়ে কম যায় না। 

আরও পড়ুনঃধোনিকে দুপাতার আবেগ ভরা চিঠি মোদীর, সমস্ত কাজ ফেলে কি উত্তর দিলেন এমএসডি

লিগের প্রথম সপ্তাহে মাঠে নামতে হবে না দুই ম্যানচেস্টারের দলকে। মিনি চ্যাম্পিয়ন্স লিগ এবং ইউরোপা লিগের খেলা থাকায় তাদের অন্য দলের চেয়ে কয়েকদিন বেশি ছুটি দেওয়া হচ্ছে লিগের তরফ থেকে। সূচি অবশ্য একটু চিন্তায় রাখছে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড কোচ ওলে গানার সলশায়ারকে। কারণ লিগের প্রথম সাতটি ম্যাচের মধ্যেই খেলতে হবে তিনটি বড়ো দলের বিরুদ্ধে। অক্টোবর মাসে তাদের খেলতে হবে আর্সেনাল, চেলসি এবং স্পার্সদের বিরুদ্ধে। লিগের শেষ ম্যাচে তাদের মুখোমুখি হতে হবে জায়েন্ট কিলার উলভসদের বিরুদ্ধে। এইসবের মাঝে চ্যাম্পিয়ন্স লিগেও খেলতে হবে ম্যান ইউ-কে। কাজেই আসছে মরশুমে তাদের সামনে রয়েছে নিজেদের প্রমান করার বড় পরীক্ষা। 

আরও পড়ুনঃশুরু কেকেআরের আইপিএল অভিযান,মরুদেশে পাড়ি দিল তিলোত্তমার প্রাণের দল

আরও পড়ুনঃপিপিই কিট পড়েই আইপিএল অভিযানে রাজস্থান রয়্যালস, আরব গেল উথাপ্পারা

কঠিন শুরু লিভারপুলের জন্যও অপেক্ষা করছে। কমিউনিটি শিল্ডে আর্সেনালের সাথে খেলেই তাদের লিগে পরপর খেলতে হবে লিডস, চেলসি এবং পুনরায় আর্সেনালের সাথে। পয়েন্ট ড্রপ করার বড়ো আশঙ্কা রয়েছে তাদের। শুরুটা সহজ নয় ম্যানচেস্টার সিটিরও। প্রথম চারটি ম্যাচেই তাদের খেলতে হবে যথাক্রমে উলভস, লেস্টার সিটি, লিডস এবং আর্সেনালের বিরুদ্ধে। তুলনায় সহজ সূচি চেলসির। প্রথম পাঁচ ম্যাচে তাদের একমাত্র বড়ো প্রতিপক্ষ লিভারপুল। কমিউনিটি শিল্ড খেলে পরের মরশুম শুরু করবে আর্সেনাল। লিগের প্রথম পাঁচ ম্যাচে বড়ো দলের মধ্যে তাদের খেলতে হবে ম্যানচেস্টার সিটি এবং আরও একবার লিভারপুলের বিরুদ্ধে।