স্ট্রেচ মার্কসও গর্বের সঙ্গে ফ্লন্ট কর, দেবলীনার 'ব্যাকলেস' অবতারেই বদলাবে গতে বাঁধা সৌন্দর্য

First Published 11, Jun 2020, 12:36 AM

লকডাউনের মেয়াদ বেড়ে চলেছিল ক্রমশ। ওয়ার্ক ফ্রম হোম, নেটফ্লিক্স, অ্যামাজনে আর কিছুতেই দিন কাটছিল না সাধারণ মানুষের। সিরিজ, মুভি, গান শোনা, বাই পড়া কিছুতেই যেন আর সময় কাটছে না। লকডাউনের বিনোদনের সুরাহা ছিল দেবলীনা কুমারের ইনস্টাগ্রাম। এখনও আছে বই কি। লকডাউনের সময় এবং লকডাউনের পরও দেবলীনার নানা পোস্টে মনোরঞ্জন খুঁজে পেয়েছে নেটিজেনরা। যেমন এরই মধ্যে একটি ইউএসপি হল দেবলীনার টোনড ব্যাক। তিনি ফিটনেস নিয়ে প্রচন্ড ওয়াকিবহল। লকডাউনে জিমে যেতে না পারলেও নিয়মিত ওয়ার্ক আউট করে গিয়েছেন বাড়িতেই।

<p>ওয়ার্ক আউটেরই ফল হল টোনড ব্যাক। কখনও ওয়েস্টার্ন ব্যাকলেস পোশাকে। তো কখনও শাড়ির ব্লাউজের খোলা পিঠে নজর কেড়েছেন দেবলীনা।</p>

ওয়ার্ক আউটেরই ফল হল টোনড ব্যাক। কখনও ওয়েস্টার্ন ব্যাকলেস পোশাকে। তো কখনও শাড়ির ব্লাউজের খোলা পিঠে নজর কেড়েছেন দেবলীনা।

<p>নেটিজেনের অবশ্য তাঁকে বেশি পছন্দ শাড়িতেই। কারণ তাঁদের মতে শাড়ির ওই ব্যাকলেস ব্লাউজেই বেশি মানায় দেবলীনাকে।</p>

নেটিজেনের অবশ্য তাঁকে বেশি পছন্দ শাড়িতেই। কারণ তাঁদের মতে শাড়ির ওই ব্যাকলেস ব্লাউজেই বেশি মানায় দেবলীনাকে।

<p>স্বাভাবিকভাবেই দেবলীনারও পছন্দ নিজের শাড়ি অবতার। তাই বারে বারে শাড়িতেই পোজ দিতে দেখা যায় তাঁকে।</p>

স্বাভাবিকভাবেই দেবলীনারও পছন্দ নিজের শাড়ি অবতার। তাই বারে বারে শাড়িতেই পোজ দিতে দেখা যায় তাঁকে।

<p>কখনও কাঞ্জিভরমে তো কখনও ঢাকাই আবার কখনও হ্যান্ডলুমে নিজেকে সাজিয়ে তোলেন দেবলীনা।</p>

কখনও কাঞ্জিভরমে তো কখনও ঢাকাই আবার কখনও হ্যান্ডলুমে নিজেকে সাজিয়ে তোলেন দেবলীনা।

<p>দেবলীনার কেবল ব্যাকলেস অবতারই যে ইন্টারনেটে হিট তা নয়। তাঁর পোস্ট থেকে আরও একটি বিষয় বেশ শিক্ষনীয়।</p>

দেবলীনার কেবল ব্যাকলেস অবতারই যে ইন্টারনেটে হিট তা নয়। তাঁর পোস্ট থেকে আরও একটি বিষয় বেশ শিক্ষনীয়।

<p>চেহারা ভারি হোক বা রোগা। শরীরে স্ট্রেচ মার্কসের দাগ থাকুক বা না থাকুক নিজেকে সবসময় সুন্দর ভাবাটা অত্যন্ত জরুরি।</p>

চেহারা ভারি হোক বা রোগা। শরীরে স্ট্রেচ মার্কসের দাগ থাকুক বা না থাকুক নিজেকে সবসময় সুন্দর ভাবাটা অত্যন্ত জরুরি।

<p>তাই নিজের শরীরের স্ট্রেচ মার্কস বেশ গর্বের সঙ্গে ফ্লন্ট করেন দেবলীনা। কারণ নিঁখুত সৌন্দর্যকে প্রাকৃতিক সৌন্দর্য বলা চলে না।</p>

তাই নিজের শরীরের স্ট্রেচ মার্কস বেশ গর্বের সঙ্গে ফ্লন্ট করেন দেবলীনা। কারণ নিঁখুত সৌন্দর্যকে প্রাকৃতিক সৌন্দর্য বলা চলে না।

<p>বিশেষত ২০২০ তে দাঁড়িয়ে এমন মনোভাব রাখা এবং সকলের কাছে এই মানসিকতা পৌঁছে দেওয়া প্রয়োজন।</p>

বিশেষত ২০২০ তে দাঁড়িয়ে এমন মনোভাব রাখা এবং সকলের কাছে এই মানসিকতা পৌঁছে দেওয়া প্রয়োজন।

loader