'সুশান্তের মরদেহের ভিডিও পোস্ট করার আগে ওঁর পরিবারের থেকে অনুমতি নিয়েছিলে', ফুঁসছেন দীপিকা

First Published 23, Jun 2020, 12:46 PM

সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যুর পর থেকেই বলিউড যেন একের পর এক সমস্যা জোয়ারে ভাসছে। কখনও নেপোটিজম তো কখনও দুর্নীতি আবার কখনও রাজনীতি। এর মাঝেই শুরু হয়েছে ব্লেম গেম। যার কারণে ইন্ডাস্ট্রি দু'ভাগে বিভক্ত হয়ে গিয়েছে। কারও কথায় বলিউডের দুর্নীতিই এবং নেপোটিজমই সুশান্তের মৃত্যুর জন্য দায়ী, অন্যদিকে স্টারকিডরা এই দোষারোপ থেকে বাঁচতে সোশ্যাল মিডিয়া অ্যাকাউন্ট ডিঅ্যাক্টিভেট করে প্রতিবাদ জানাচ্ছেন। এরই মাঝে দীপিকা পাডুকোন অবশ্য কোনও দলেই নেই। 

<p>বরং সুশান্তের হয়ে এখনও নানা বিষয় প্রতিবাদ জানাচ্ছেন অভিনেত্রী। সম্প্রতি এক পাপারাৎজীকে উচিত শিক্ষা দিলেন সুশান্তের মরদেহের ভিডিও পোস্ট করার জন্য। </p>

বরং সুশান্তের হয়ে এখনও নানা বিষয় প্রতিবাদ জানাচ্ছেন অভিনেত্রী। সম্প্রতি এক পাপারাৎজীকে উচিত শিক্ষা দিলেন সুশান্তের মরদেহের ভিডিও পোস্ট করার জন্য। 

<p>বিভিন্ন পাপারাৎজীর পেজ এখন ভরে গিয়েছে সুশান্তের পুরনো, নতুন, শেষকৃত্যের ছবি-ভিডিওতে। যে সকল পাপারাৎজী আগে সুশান্তের একটি ছবিও পোস্ট করত না তারা একদিন প্রায় কুড়িটি পোস্ট সুশান্তকে নিয়ে দিয়ে চলেছে। </p>

বিভিন্ন পাপারাৎজীর পেজ এখন ভরে গিয়েছে সুশান্তের পুরনো, নতুন, শেষকৃত্যের ছবি-ভিডিওতে। যে সকল পাপারাৎজী আগে সুশান্তের একটি ছবিও পোস্ট করত না তারা একদিন প্রায় কুড়িটি পোস্ট সুশান্তকে নিয়ে দিয়ে চলেছে। 

<p>এরই মধ্যে একজন পাপারাৎজী সুশান্তের মরদেহ হাসপাতাল থেকে শশ্মানে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে, সেই ভিডিও পোস্ট করেছেন সোশ্যাল মিডিয়ায়। </p>

এরই মধ্যে একজন পাপারাৎজী সুশান্তের মরদেহ হাসপাতাল থেকে শশ্মানে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে, সেই ভিডিও পোস্ট করেছেন সোশ্যাল মিডিয়ায়। 

<p>সেই পোস্টের নিচে লেখা, "অনুরোধ করছি আমার তোলা এই ছবি ও ভিডিও কেউ নিজের প্রোফাইলে পোস্ট করতে পারবেন না আমার লিখিত অনুমতি ছাড়া।"</p>

সেই পোস্টের নিচে লেখা, "অনুরোধ করছি আমার তোলা এই ছবি ও ভিডিও কেউ নিজের প্রোফাইলে পোস্ট করতে পারবেন না আমার লিখিত অনুমতি ছাড়া।"

<p>এতেই ক্ষোভ উগরে দিলেন দীপিকা। সেই পোস্টের কমেন্ট সেকশেন অভিনেত্রীর রোষ পড়তে হল সেই পাপারাৎজীকে। এমনকি দীপিকার মন্তব্যে সমর্থন জানিয়েছে নেটিজেনরাও।</p>

এতেই ক্ষোভ উগরে দিলেন দীপিকা। সেই পোস্টের কমেন্ট সেকশেন অভিনেত্রীর রোষ পড়তে হল সেই পাপারাৎজীকে। এমনকি দীপিকার মন্তব্যে সমর্থন জানিয়েছে নেটিজেনরাও।

<p>দীপিকা লেখেন, "আচ্ছা, তোমার কি এই ভিডিওটা পোস্ট করা উচিত হয়েছে। তাও আবার ওর পরিবারের থেকে কোনও অনুমতি না নিয়েই ভিডিওটি করেছ। আবার পোস্টও করে দিয়েছ সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্মে। এটা করার আগে ভাবা উচিত ছিল না কি।"</p>

দীপিকা লেখেন, "আচ্ছা, তোমার কি এই ভিডিওটা পোস্ট করা উচিত হয়েছে। তাও আবার ওর পরিবারের থেকে কোনও অনুমতি না নিয়েই ভিডিওটি করেছ। আবার পোস্টও করে দিয়েছ সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্মে। এটা করার আগে ভাবা উচিত ছিল না কি।"

<p>দীপিকার এই মন্তব্যে প্রশংসায় ভরছে সেই পোস্ট। সেখানে প্রত্যেক নেটিজেনরা এসেই বলে চলেছে, এই পাপারাৎজীর টিম সুশান্তকে দীর্ঘ সময়ের জন্য ব্যান করে দিয়েছিল। </p>

দীপিকার এই মন্তব্যে প্রশংসায় ভরছে সেই পোস্ট। সেখানে প্রত্যেক নেটিজেনরা এসেই বলে চলেছে, এই পাপারাৎজীর টিম সুশান্তকে দীর্ঘ সময়ের জন্য ব্যান করে দিয়েছিল। 

<p style="text-align: justify;">এখন সুশান্ত চলে যাওয়ার পর এরা এত কিছু পোস্ট করছে। তাও চলে গিয়েছি বলে নয়, পেজের ফলোয়াড় সংখ্যা যাতে বৃদ্ধি পায়, সেই কারণেই এই স্ট্র্যাটেজি করেছে এরা। </p>

এখন সুশান্ত চলে যাওয়ার পর এরা এত কিছু পোস্ট করছে। তাও চলে গিয়েছি বলে নয়, পেজের ফলোয়াড় সংখ্যা যাতে বৃদ্ধি পায়, সেই কারণেই এই স্ট্র্যাটেজি করেছে এরা। 

<p>দীপিকা এর আগেও সুশান্তের মানসিক অবসাদ নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করেছেন। সুশান্ত সিং রাজপুতের আত্মহত্যায় মৃত্যুর খবরে আজও বাকরুদ্ধ গোটা দেশ। জানা যায়, দীর্ঘদিন মানসিক অবসাদে ভুগছিলেন অভিনেতা। মানসিক অবসাদ নিয়ে ফের মুখ খোলেন দীপিকা। </p>

দীপিকা এর আগেও সুশান্তের মানসিক অবসাদ নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করেছেন। সুশান্ত সিং রাজপুতের আত্মহত্যায় মৃত্যুর খবরে আজও বাকরুদ্ধ গোটা দেশ। জানা যায়, দীর্ঘদিন মানসিক অবসাদে ভুগছিলেন অভিনেতা। মানসিক অবসাদ নিয়ে ফের মুখ খোলেন দীপিকা। 

<p>তিনি লেখেন, "মানসিক অবসাদে যারা ভুগছেন তাদের বারবার অনুরোধ করছি। এগিয়ে আসুন, কথা বলুন। তুমি একা নও। আমরা একসঙ্গে এই মানসিক অবসাদকে হার মানাবো। আশার আলো খুঁজে পাবই।" সুশান্ত সিং রাজপুতের হাসিমুখটাই চিরজীবন চোখের সামনে থেকে যাক। </p>

তিনি লেখেন, "মানসিক অবসাদে যারা ভুগছেন তাদের বারবার অনুরোধ করছি। এগিয়ে আসুন, কথা বলুন। তুমি একা নও। আমরা একসঙ্গে এই মানসিক অবসাদকে হার মানাবো। আশার আলো খুঁজে পাবই।" সুশান্ত সিং রাজপুতের হাসিমুখটাই চিরজীবন চোখের সামনে থেকে যাক। 

loader