রাজ কাপুরকে ফিরিয়ে ছিলেন সুচিত্রা সেন- সত্যজিৎ, ঠিক কী ঘটেছিল, রইল স্বর্ণযুগের কাহিনি

First Published Dec 14, 2020, 12:53 PM IST

তপন মল্লিক, কলকাতা- মাত্র দশ বছর বয়সে সিনেমায় হাতেখড়ি। তার পরের এক যুগ বোম্বাইয়ের বেশ কিছু ছবিতে অভিনয় করেছেন। সিনেমা দুনিয়ার বিখ্যাত মানুষের পুত্র হওয়া স্বত্বেও প্রয়োজনে স্পটবয়ের কাজও করেছেন। তারপর এসেছে বড় ধারণের সুযোগ। একেবারে মধুবালার নায়ক হিসেবে। সেই সময় বোম্বাইয়ের সেরা নায়িকা মধুবালা। তবে তার চেয়েও উল্লেখযোগ্য কৃতিত্ব মাত্র চব্বিশ বছরের যুবকটি তৈরি করে ফেললেন নিজস্ব স্টুডিও আর. কে. ফিল্মস। এরপর তিনিই হন তাঁর সময়ের সর্বকনিষ্ঠ সিনেমা প্রযোজ্যক ও পরিচালক। বলিউডে এখনও তিনি শ্রেষ্ঠ শোম্যান বলেই পরিচিত। 

<p>বোম্বাইয়ের সিনেমায় নিজস্ব স্টাইলে অভিনয়ের কারণে তিনি হয়ে উঠেছিলেন কিংবদন্তি অভিনেতা। যদিও তাঁর অভিনয় রীতিতে ছিল চার্লি চ্যাপলিনের বিরাট প্রভাব। &nbsp;তা হলেও রাজ কাপুর অভিনেতা হিসেবে সফল। তাঁর নিজস্ব ব্যানারে প্রযোজক এবং পরিচালক হিসেবে উপহার দিয়েছেন একের পর এক হিট ছবি। হিন্দি ছবির কাহিনি নির্মাণে সফল রাজ কাপুর নিজের ছবির নায়িকা আবিষ্কারেও দিয়েছেন একাধিক চমক।&nbsp;</p>

বোম্বাইয়ের সিনেমায় নিজস্ব স্টাইলে অভিনয়ের কারণে তিনি হয়ে উঠেছিলেন কিংবদন্তি অভিনেতা। যদিও তাঁর অভিনয় রীতিতে ছিল চার্লি চ্যাপলিনের বিরাট প্রভাব।  তা হলেও রাজ কাপুর অভিনেতা হিসেবে সফল। তাঁর নিজস্ব ব্যানারে প্রযোজক এবং পরিচালক হিসেবে উপহার দিয়েছেন একের পর এক হিট ছবি। হিন্দি ছবির কাহিনি নির্মাণে সফল রাজ কাপুর নিজের ছবির নায়িকা আবিষ্কারেও দিয়েছেন একাধিক চমক। 

<p>যে সময়ের কথা বলছি, সে সময়ে হিন্দি ছবির দুনিয়া বলিউড নামে পরিচিত হয় নি। বোম্বাইয়ের সিনেমা জগতে তখন সবচেয়ে প্রভাবশালী ও ব্যবসায়িকভাবে সফল সিনেমা প্রযোজক ও পরিচালক ছিলেন রাজ কাপুর। তাঁর একটি ছবিতে সুযোগ পাওয়ার জন্য নায়িকারা নাকি নিজেদের হাত, পা কেটে ফেলতেও রাজি ছিলেন এমন গুঞ্জন শোনা যেত আর কে ফিল্মসের আশপাশে।&nbsp;</p>

যে সময়ের কথা বলছি, সে সময়ে হিন্দি ছবির দুনিয়া বলিউড নামে পরিচিত হয় নি। বোম্বাইয়ের সিনেমা জগতে তখন সবচেয়ে প্রভাবশালী ও ব্যবসায়িকভাবে সফল সিনেমা প্রযোজক ও পরিচালক ছিলেন রাজ কাপুর। তাঁর একটি ছবিতে সুযোগ পাওয়ার জন্য নায়িকারা নাকি নিজেদের হাত, পা কেটে ফেলতেও রাজি ছিলেন এমন গুঞ্জন শোনা যেত আর কে ফিল্মসের আশপাশে। 

<p>তবে এমনটাও ঘটেছিল, হয়ত ব্যতিক্রমী ব্যক্তিত্বের কারণে টলিউডের গ্রেটা গার্বো বলিউডের শোম্যান-এর সঙ্গে কাজ করার প্রস্তাব ফিরিয়ে দিয়েছিলেন। রাজ কাপুর সুচিত্রা সেনকে সরাসরি প্রস্তাব দিয়েছিলেন তাঁর সঙ্গে অভিনয় করার জন্য। কিন্তু সুচিত্রা সেই প্রস্তাবে অসম্মতি জানান। গোটা ঘটনাটা নাকি শ্রীমতী সেন মন থেকে মেনে নিতে পারেন নি। রাজ কাপুর যেভাবে আচমকা আবির্ভূত হয়ে তাঁর একান্ত প্রস্তাবটি সুচিত্রা সেনের সামনে পেশ করেছিলেন সেটি নাকি খুব অপছন্দ করেছিলেন সুচিত্রা। পরবর্তীতে সে কথা তিনি জানিয়েওছিলেন।&nbsp;</p>

তবে এমনটাও ঘটেছিল, হয়ত ব্যতিক্রমী ব্যক্তিত্বের কারণে টলিউডের গ্রেটা গার্বো বলিউডের শোম্যান-এর সঙ্গে কাজ করার প্রস্তাব ফিরিয়ে দিয়েছিলেন। রাজ কাপুর সুচিত্রা সেনকে সরাসরি প্রস্তাব দিয়েছিলেন তাঁর সঙ্গে অভিনয় করার জন্য। কিন্তু সুচিত্রা সেই প্রস্তাবে অসম্মতি জানান। গোটা ঘটনাটা নাকি শ্রীমতী সেন মন থেকে মেনে নিতে পারেন নি। রাজ কাপুর যেভাবে আচমকা আবির্ভূত হয়ে তাঁর একান্ত প্রস্তাবটি সুচিত্রা সেনের সামনে পেশ করেছিলেন সেটি নাকি খুব অপছন্দ করেছিলেন সুচিত্রা। পরবর্তীতে সে কথা তিনি জানিয়েওছিলেন। 

<p>তখনও আজকের মতোই যে কোনও আঞ্চলিক ছবির অভিনেতারা বোম্বাইয়ের একটি হিন্দি ছবিতে অভিনয় করার স্বপ্ন দেখতেন। সেই সুযোগ পাওয়ার জন্য সারা জীবনই তারা অপেক্ষা করেন। কারণ এখনও যে কোনও অভিনেতা অভিনেত্রীর কাছে সেটাই চরম লক্ষ্য। জমানা অনেকটাই বদলে গিয়েছে কিন্তু একজন অভিনয়শিল্পীর এই আকাঙ্ক্ষার কোনও রদবদল হয়নি। যদিও সুচিত্রা সেন তার অনেক আগেই বিমল রায়ের ডাকে বোম্বাই পৌঁছে গিয়েছিলেন। দেবদাস ছবিতে দিলীপ কুমারের সঙ্গে অভিনয়ের সুবাদে যথেষ্ট সারা ফেলেছেন। কিন্তু তিনি রাজ কাপুরের প্রস্তাবে রাজি হতে পারেন নি।&nbsp;</p>

তখনও আজকের মতোই যে কোনও আঞ্চলিক ছবির অভিনেতারা বোম্বাইয়ের একটি হিন্দি ছবিতে অভিনয় করার স্বপ্ন দেখতেন। সেই সুযোগ পাওয়ার জন্য সারা জীবনই তারা অপেক্ষা করেন। কারণ এখনও যে কোনও অভিনেতা অভিনেত্রীর কাছে সেটাই চরম লক্ষ্য। জমানা অনেকটাই বদলে গিয়েছে কিন্তু একজন অভিনয়শিল্পীর এই আকাঙ্ক্ষার কোনও রদবদল হয়নি। যদিও সুচিত্রা সেন তার অনেক আগেই বিমল রায়ের ডাকে বোম্বাই পৌঁছে গিয়েছিলেন। দেবদাস ছবিতে দিলীপ কুমারের সঙ্গে অভিনয়ের সুবাদে যথেষ্ট সারা ফেলেছেন। কিন্তু তিনি রাজ কাপুরের প্রস্তাবে রাজি হতে পারেন নি। 

<p>কারণ রাজ কাপুরের পার্সোনালিটি তার পছন্দ হয়নি। নির্ভীক সুচিত্রা সেসময় মিডিয়াতে খোলাখুলি ও স্পষ্টভাবে জানিয়েছিলেন যে ভঙ্গিতে রাজ কাপুর ফুলের তোড়া হানে নিয়ে তাড় পায়ের কাছে বসে তাকে ছবিতে অভিনয় করার প্রস্তাব দিয়েছিলেন, সেই ভঙ্গিতে রাজ কাপুরকে দেখে সুচিত্রার রাজ কাপুরকে খুব হালকা প্রকৃতির মানুষ মনে হয়েছিল। আর সুচিত্রা সেন এরকম হালকা ব্যক্তিত্বের মানুষ অপছন্দ করতেন। গত শতকের ষাটের দশকে একজন আঞ্চলিক ছবির নায়িকা রাজ কাপুরের মতো প্রভাবশালী একজন ব্যক্তিত্বের &nbsp;প্রস্তাব যে কেবল ফিরিয়ে দিচ্ছেন তা তো নয়, তিনি সেই মানুষটির প্রকৃতি নিয়েও কথা বলছেন।</p>

কারণ রাজ কাপুরের পার্সোনালিটি তার পছন্দ হয়নি। নির্ভীক সুচিত্রা সেসময় মিডিয়াতে খোলাখুলি ও স্পষ্টভাবে জানিয়েছিলেন যে ভঙ্গিতে রাজ কাপুর ফুলের তোড়া হানে নিয়ে তাড় পায়ের কাছে বসে তাকে ছবিতে অভিনয় করার প্রস্তাব দিয়েছিলেন, সেই ভঙ্গিতে রাজ কাপুরকে দেখে সুচিত্রার রাজ কাপুরকে খুব হালকা প্রকৃতির মানুষ মনে হয়েছিল। আর সুচিত্রা সেন এরকম হালকা ব্যক্তিত্বের মানুষ অপছন্দ করতেন। গত শতকের ষাটের দশকে একজন আঞ্চলিক ছবির নায়িকা রাজ কাপুরের মতো প্রভাবশালী একজন ব্যক্তিত্বের  প্রস্তাব যে কেবল ফিরিয়ে দিচ্ছেন তা তো নয়, তিনি সেই মানুষটির প্রকৃতি নিয়েও কথা বলছেন।

<p>রাজ কাপুর জানতেন সুচিত্রা সেন বাংলা ছবির মহা নায়িকা এবং দু-একটি হিন্দি ছবিতেও তিনি কাজ করেছেন। তবে তিনি ভারতীয় সিনেমার জগতে একটা ব্যাপার। রাজ কাপুর চেয়েছিলেন মিসেস সেনের সঙ্গে একটি ছবিতে অভিনয় করে নিজের সিনেমা ক্যারিয়ারের মাইলফলকে আরেকটি পালক জুড়ে নিতে। বোম্বাইয়া সিনেমায় ‘মহানক্ষত্র’ করে তুলতে। কিন্তু মিসেস সেন রাজি হলেন না।&nbsp;</p>

রাজ কাপুর জানতেন সুচিত্রা সেন বাংলা ছবির মহা নায়িকা এবং দু-একটি হিন্দি ছবিতেও তিনি কাজ করেছেন। তবে তিনি ভারতীয় সিনেমার জগতে একটা ব্যাপার। রাজ কাপুর চেয়েছিলেন মিসেস সেনের সঙ্গে একটি ছবিতে অভিনয় করে নিজের সিনেমা ক্যারিয়ারের মাইলফলকে আরেকটি পালক জুড়ে নিতে। বোম্বাইয়া সিনেমায় ‘মহানক্ষত্র’ করে তুলতে। কিন্তু মিসেস সেন রাজি হলেন না। 

<p>কেবলমাত্র সুচিত্রা সেন নন, রাজ কাপুরের প্রস্তাব ফিরিয়ে দিয়েছিলেন সত্যজিৎ রায়। সেই সময় গুপি গাইন বাঘা বাইনের জন্য সত্যজিৎ মুম্বাইয়েরও কয়েকজন প্রযোজকের সঙ্গে যোগাযোগ করেন। সেই তালিকায় রাজ কাপুরও ছিলেন। বাংলা হলেও মুম্বাইয়ের সিনেমা জগতে সত্যজিৎ রায়ের সিনেমার ব্যাপারে যথেষ্ট আগ্রহ ছিল। রাজ কাপুরও নিজেও চেয়েছিলেন আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন এই পরিচালকের সঙ্গে কাজ করতে।</p>

কেবলমাত্র সুচিত্রা সেন নন, রাজ কাপুরের প্রস্তাব ফিরিয়ে দিয়েছিলেন সত্যজিৎ রায়। সেই সময় গুপি গাইন বাঘা বাইনের জন্য সত্যজিৎ মুম্বাইয়েরও কয়েকজন প্রযোজকের সঙ্গে যোগাযোগ করেন। সেই তালিকায় রাজ কাপুরও ছিলেন। বাংলা হলেও মুম্বাইয়ের সিনেমা জগতে সত্যজিৎ রায়ের সিনেমার ব্যাপারে যথেষ্ট আগ্রহ ছিল। রাজ কাপুরও নিজেও চেয়েছিলেন আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন এই পরিচালকের সঙ্গে কাজ করতে।

<p>সুযোগের প্রেক্ষাপট তৈরি হলেও কাজের কাজ কিছু হয় নি। সমস্যা হয় রাজ কাপুরের শর্ত নিয়ে। গুগাবাবা ছবি প্রযোজনায় রাজকাপুর শর্ত দেন-গুপী’র চরিত্রে তার বাবা পৃথ্বীরাজ কাপুর ও বাঘা’র চরিত্রে ভাই শশী কাপুরকে নিতে হবে। এই শর্তে রাজি হতে পারেননি সত্যজিৎ রায়। অভিনেতা নির্বাচন নিয়ে অত্যন্ত খুঁতখুঁতে ছিলেন তিনি। এমনও হয়েছে যে পছন্দসই অভিনেতা বা অভিনেত্রী পাননি বলে কোনও বিশেষ চরিত্র বাদ গিয়েছে বা ছবির পরিকল্পনাও বাতিল করে দিয়েছেন তিনি। তাই রাজ কাপুরের প্রস্তাব ফিরিয়ে দিতে হয়।</p>

সুযোগের প্রেক্ষাপট তৈরি হলেও কাজের কাজ কিছু হয় নি। সমস্যা হয় রাজ কাপুরের শর্ত নিয়ে। গুগাবাবা ছবি প্রযোজনায় রাজকাপুর শর্ত দেন-গুপী’র চরিত্রে তার বাবা পৃথ্বীরাজ কাপুর ও বাঘা’র চরিত্রে ভাই শশী কাপুরকে নিতে হবে। এই শর্তে রাজি হতে পারেননি সত্যজিৎ রায়। অভিনেতা নির্বাচন নিয়ে অত্যন্ত খুঁতখুঁতে ছিলেন তিনি। এমনও হয়েছে যে পছন্দসই অভিনেতা বা অভিনেত্রী পাননি বলে কোনও বিশেষ চরিত্র বাদ গিয়েছে বা ছবির পরিকল্পনাও বাতিল করে দিয়েছেন তিনি। তাই রাজ কাপুরের প্রস্তাব ফিরিয়ে দিতে হয়।

Today's Poll

একসঙ্গে কতজন প্লেয়ারের সঙ্গে খেলতে পছন্দ করেন