প্রিমিয়ার লিগে সিটির আট গোল, ইতিহাসের পাতা থেকে এমন আরও কয়েকটি ম্যাচের ঝলক

First Published 22, Sep 2019, 3:46 PM IST

প্রিমিয়ার লিগে ৮ গোলের ব্যবধানে বড় জয় ম্যানসিটির। ওয়াটফোর্ডকে হারিয়ে রেকর্ডের খাতায় ঢুকে পরলো ওয়ার্দিওয়ালার দল। ১৯৯৫ সালে সর্বোচ্চ গোল পার্থক্যের রেকর্ড ছিল ম্যানঞ্চেস্টার ইউনাইটেডের। সর্বোচ্চ ৯ গোলের পার্থক্যে এই রকের্ড তৈরি করেছিল ম্যানইউ। এবার সেই রকর্ডে ঢুকে পরলো ম্যানসিটিও। ম্যানইউকে অল্পের জন্য ছুঁতে না পারলেও ৮ গোলের ব্যবধান রেখে এই খাতায় দ্বিতয়ী নম্বরে সিটি। রেকর্ড বুকের সেই সব ছবি আজও আঁকড়ে ধরে রেখেছে প্রিমিয়ার লিগকে।

দিনটা ১৯৯৫ সালের ৪ মার্চ। প্রিমিয়ার লিগে প্রথম গোল পার্থক্যে নজির গড়েছিল ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড। ব্রিটিশ ফুটবলার অ্যান্ডি কোলের ৫ গোল। আর সেই সুবাদে ইপ্সউইচ টাইনকে ৯-০ গোলে হারায় ম্যানইউ। এই প্রথম প্রিমিয়ার লিগ গোল পার্থক্যে নজির ইংলিশ ক্লাবের। এখনও টাটকা সেই ম্যাচের সেলিব্রশনের মুহূর্ত।

দিনটা ১৯৯৫ সালের ৪ মার্চ। প্রিমিয়ার লিগে প্রথম গোল পার্থক্যে নজির গড়েছিল ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড। ব্রিটিশ ফুটবলার অ্যান্ডি কোলের ৫ গোল। আর সেই সুবাদে ইপ্সউইচ টাইনকে ৯-০ গোলে হারায় ম্যানইউ। এই প্রথম প্রিমিয়ার লিগ গোল পার্থক্যে নজির ইংলিশ ক্লাবের। এখনও টাটকা সেই ম্যাচের সেলিব্রশনের মুহূর্ত।

৪ বছর পর ম্যানইউয়ের খুব কাছে পৌছেও তাদের ছুতে পারলো না নিউ কাসেল ইউনাইটেডকে। তবে শেফিল্ড ওয়েডনেসডে ফুটবল ক্লাবকে ৮-০ গোলে হারিয়ে রেকর্ড বুকে চলে এসেছিল নিউ কাসেল। সেই ম্যাচে ৫ গোলের মালিক হয়েছিলেন অ্যালান শিয়ারার। ১৯ সেপ্টম্বর ১৯৯৯ সালে নিউ কাসেলের ঘরের মাঠে হয়েছিল এই ম্যাচ।

৪ বছর পর ম্যানইউয়ের খুব কাছে পৌছেও তাদের ছুতে পারলো না নিউ কাসেল ইউনাইটেডকে। তবে শেফিল্ড ওয়েডনেসডে ফুটবল ক্লাবকে ৮-০ গোলে হারিয়ে রেকর্ড বুকে চলে এসেছিল নিউ কাসেল। সেই ম্যাচে ৫ গোলের মালিক হয়েছিলেন অ্যালান শিয়ারার। ১৯ সেপ্টম্বর ১৯৯৯ সালে নিউ কাসেলের ঘরের মাঠে হয়েছিল এই ম্যাচ।

২২ নভেম্বর ২০০৯। এক ম্যাচে ৯ গোলে দেওয়ার মালিকানা পেয়ে প্রিমিয়রা লিগে ম্যানচেস্টারকে ছুঁয়ে ফলেলো টটেনহ্যাম হটস্পার। তবে ৯ গোল দিলেও গোল পার্থক্যে রেকর্ড বুকের ফার্স্ট বয়ের থেকে এক গোল পিছিয়েই থাকলো টোটেনহ্যাম। খেলার ফল ৯-১। তাই ৮ গোলের পার্থক্যে সর্বোচ্চ গোল পার্থক্যের খাতায় নাম উঠলো এই ক্লাবের। মাঠের সেই স্কোরবোর্ডে জ্বলন্ত সেই ফলাফল।

২২ নভেম্বর ২০০৯। এক ম্যাচে ৯ গোলে দেওয়ার মালিকানা পেয়ে প্রিমিয়রা লিগে ম্যানচেস্টারকে ছুঁয়ে ফলেলো টটেনহ্যাম হটস্পার। তবে ৯ গোল দিলেও গোল পার্থক্যে রেকর্ড বুকের ফার্স্ট বয়ের থেকে এক গোল পিছিয়েই থাকলো টোটেনহ্যাম। খেলার ফল ৯-১। তাই ৮ গোলের পার্থক্যে সর্বোচ্চ গোল পার্থক্যের খাতায় নাম উঠলো এই ক্লাবের। মাঠের সেই স্কোরবোর্ডে জ্বলন্ত সেই ফলাফল।

২০১০ সালের ৯মে। নজিরের খাতায় এবার নাম লেখালো অন্যতম ব্রিটিশ প্রধান ক্লাব চেলসি। উইগান অ্যথলেটিকেক ৮-০ গোলে হারালেন ড্রোগবা, ল্যাম্পার্ডরা। সেই ম্যাচে ড্রোগবার হ্যাটট্রিক এখনও স্মরণীয় ফুটবল প্রেমীদের জন্য। প্রিমিয়ার লিগের সেই ম্যাচের ফ্ল্যাশব্যাক।

২০১০ সালের ৯মে। নজিরের খাতায় এবার নাম লেখালো অন্যতম ব্রিটিশ প্রধান ক্লাব চেলসি। উইগান অ্যথলেটিকেক ৮-০ গোলে হারালেন ড্রোগবা, ল্যাম্পার্ডরা। সেই ম্যাচে ড্রোগবার হ্যাটট্রিক এখনও স্মরণীয় ফুটবল প্রেমীদের জন্য। প্রিমিয়ার লিগের সেই ম্যাচের ফ্ল্যাশব্যাক।

২০১০ সালের নজিরের পর ফের ২ বছর বাদে ৮ গোলের নজির চেলসির। অ্যাস্টন ভিলার সঙ্গে প্রিমিয়ার লিগের লড়াইয়ে ৮-০ গোলে বড় জয় । নিজেদের রেকর্ড নিজরাই ভাঙলো এই ক্লাব। ল্যাম্পার্ড, রামিরেজ, অসকার, হ্যাজার্ডদের দাপটে ফের ৮-০ গোলের পার্থক্যে জয় পেয়েছিল চেলসি। ২৩ ডিসেম্বর ২০১২ সালের ম্যাচের সেই ছবি।

২০১০ সালের নজিরের পর ফের ২ বছর বাদে ৮ গোলের নজির চেলসির। অ্যাস্টন ভিলার সঙ্গে প্রিমিয়ার লিগের লড়াইয়ে ৮-০ গোলে বড় জয় । নিজেদের রেকর্ড নিজরাই ভাঙলো এই ক্লাব। ল্যাম্পার্ড, রামিরেজ, অসকার, হ্যাজার্ডদের দাপটে ফের ৮-০ গোলের পার্থক্যে জয় পেয়েছিল চেলসি। ২৩ ডিসেম্বর ২০১২ সালের ম্যাচের সেই ছবি।

দুই বছরের পার্থক্যে দুবার নজির গড়েছিল চেলসি। আর চেলসির পর আরও দুবছর পর এই রেকর্ডের খাতায় নাম লিখিয়েছিল সাউদাম্পটন ফুটবল ক্লাব। সান্দারল্যান্ডের বিরুদ্ধে ৮-০ গোলে জয় পেয়েছিল এই দল। সেই ম্যাচের চিত্র।

দুই বছরের পার্থক্যে দুবার নজির গড়েছিল চেলসি। আর চেলসির পর আরও দুবছর পর এই রেকর্ডের খাতায় নাম লিখিয়েছিল সাউদাম্পটন ফুটবল ক্লাব। সান্দারল্যান্ডের বিরুদ্ধে ৮-০ গোলে জয় পেয়েছিল এই দল। সেই ম্যাচের চিত্র।

তবে সব কিছু পেছনে ফেলে এবার সর্বোচ্চ গোল পার্থক্যের রেকর্ডে এবার চলে এলো গুয়ার্দিওয়ালার ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের। বেরনার্ডো সিলভার হ্যাটট্রিকে এবারের প্রিমিয়ার লিগে সব থেকে বড় জয় পেয়ে গেল ম্যানসিটি। আর সেই জয়ের উচ্ছ্বাসেই দলের ফুটবলাররা।

তবে সব কিছু পেছনে ফেলে এবার সর্বোচ্চ গোল পার্থক্যের রেকর্ডে এবার চলে এলো গুয়ার্দিওয়ালার ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের। বেরনার্ডো সিলভার হ্যাটট্রিকে এবারের প্রিমিয়ার লিগে সব থেকে বড় জয় পেয়ে গেল ম্যানসিটি। আর সেই জয়ের উচ্ছ্বাসেই দলের ফুটবলাররা।

loader