পুজোর আগে ওজন কমাতে পাতে রাখুন ডিম, জানুন খাওয়ার সঠিক সময়

First Published 30, Sep 2020, 2:27 PM

আর মাত্র কয়েকদিন, পুজোা প্রায় দোরগোরায় চলেই এসেছে। শপিংমল হোক কিংবা বাড়ি, আয়নার সামনে দাঁড়ালেই যেন বাড়তি মেদ আরও চোখ টানছে। এক্সারসাইজ , ডায়েট করে ওজন কমাতে সারাদিন শুধু স্যুপ আর স্যালাড খেয়ে আছেন? এতে ওজন কমলেও মন ভরছে না। ওজন কমাতে এবার আপনার  সঙ্গী হতে পারে ডিম। এটা অবিশ্বাস্য হলেও সত্যি। প্রতিদিন ডিম খেলেই কমবে বাড়তি ওজন, জানুন কীভাবে।

<p>পুজোর আগে যারা ওজন কমিয়ে ছিপছিপে &nbsp;মেদহীন হতে চাইছেন তাদের সবার জন্যই ডিম অত্যন্ত উপকারী।</p>

পুজোর আগে যারা ওজন কমিয়ে ছিপছিপে  মেদহীন হতে চাইছেন তাদের সবার জন্যই ডিম অত্যন্ত উপকারী।

<p>ছেলে হোক বা মেয়ে প্রত্যেকেরই প্রোটিন ভীষণ ভাবে প্রয়োজন। তবে তার মধ্যে যতটা পারবেন প্রাণীজ প্রোটিন খাওয়ার চেষ্টা করুন। সেই রকম একটি প্রোটিনের উৎস হল ডিম।&nbsp;</p>

ছেলে হোক বা মেয়ে প্রত্যেকেরই প্রোটিন ভীষণ ভাবে প্রয়োজন। তবে তার মধ্যে যতটা পারবেন প্রাণীজ প্রোটিন খাওয়ার চেষ্টা করুন। সেই রকম একটি প্রোটিনের উৎস হল ডিম। 

<p>ডিমে সব ধরনের প্রোটিন রয়েছে। এছাড়া আরও নানারকম পুষ্টিকর পদার্থে ঠাসা ডিম। সস্তার এই খাদ্য সবরকমভাবেই খাওয়া যায়।এক কথায় ডিমের কোনও জুড়ি নেই।&nbsp;</p>

ডিমে সব ধরনের প্রোটিন রয়েছে। এছাড়া আরও নানারকম পুষ্টিকর পদার্থে ঠাসা ডিম। সস্তার এই খাদ্য সবরকমভাবেই খাওয়া যায়।এক কথায় ডিমের কোনও জুড়ি নেই। 

<p><br />
তবে যে কোনও খাবারের মতোই ডিমেরও বাল-মন্দ দিক রয়েছে। &nbsp;ঠিক কোন সময় ডিম খেলে তা আপনার শরীরে সবচেয়ে উপকারে আসবে তা জেনে নিন সবার আগে।</p>


তবে যে কোনও খাবারের মতোই ডিমেরও বাল-মন্দ দিক রয়েছে।  ঠিক কোন সময় ডিম খেলে তা আপনার শরীরে সবচেয়ে উপকারে আসবে তা জেনে নিন সবার আগে।

<p>সকালের ব্রেকফাস্ট মেনুতে পারফেক্ট হল ডিম। অফিসের তাড়াহুড়োতে যদি ব্রেকফাস্ট করার সময় না থাকে, তাহলেও চটজলদি একটা ডিম সেদ্ধ করে আপনি খেয়ে নিতে পারবেন। জিংক, ম্য়াগনেসিয়াম, আয়রন এবং সমস্ত রকম প্রোটিনে ভরপুর ডিম খেয়ে দিনের শুরুটা করলে সারাদিন আপনার এনার্জি লেভেল বজায় থাকবে।&nbsp;</p>

সকালের ব্রেকফাস্ট মেনুতে পারফেক্ট হল ডিম। অফিসের তাড়াহুড়োতে যদি ব্রেকফাস্ট করার সময় না থাকে, তাহলেও চটজলদি একটা ডিম সেদ্ধ করে আপনি খেয়ে নিতে পারবেন। জিংক, ম্য়াগনেসিয়াম, আয়রন এবং সমস্ত রকম প্রোটিনে ভরপুর ডিম খেয়ে দিনের শুরুটা করলে সারাদিন আপনার এনার্জি লেভেল বজায় থাকবে। 

<p>এছাড়া ডিম অনেকক্ষণ পেট ভরিয়ে রাখতে সাহায্য করে। তাই চট করে অন্য কিছু খাওয়ার ইচ্ছে করে না। অতিরিক্ত কিছু না খাওয়ার ফলে আপনি ক্যালরি &nbsp;সহজেই কমাতে পারবেন।</p>

এছাড়া ডিম অনেকক্ষণ পেট ভরিয়ে রাখতে সাহায্য করে। তাই চট করে অন্য কিছু খাওয়ার ইচ্ছে করে না। অতিরিক্ত কিছু না খাওয়ার ফলে আপনি ক্যালরি  সহজেই কমাতে পারবেন।

<p>যারা জোরকদমে ওয়ার্ক আউট করছেন তাদের ওয়ার্ক আউটের পর হাই প্রোটিন খাবার খাওয়া উচিত। ওয়ার্ক আউটের পরে যে ক্ষিদে পায় তা মেটাতে ডিম খুবই উপকারী। এটি আপনাকে এনার্জি দেবে । দুটি সেদ্ধ ডিম কিংবা টমেটো আর ক্যাপসিকাম, বাটার দিয়ে তৈরি অমলেট আপনি খেতেই পারেন।</p>

যারা জোরকদমে ওয়ার্ক আউট করছেন তাদের ওয়ার্ক আউটের পর হাই প্রোটিন খাবার খাওয়া উচিত। ওয়ার্ক আউটের পরে যে ক্ষিদে পায় তা মেটাতে ডিম খুবই উপকারী। এটি আপনাকে এনার্জি দেবে । দুটি সেদ্ধ ডিম কিংবা টমেটো আর ক্যাপসিকাম, বাটার দিয়ে তৈরি অমলেট আপনি খেতেই পারেন।

<p>রাতে ডিম খাওয়া নিয়ে নানা মুনির নানা মত। কেউ বলেন যে পোস্ট-ডিনার স্ন্যাক হিসেবে ডিম বেশ ভালো। আবার কারোর মতে রাতে ডিম খেলে অনিদ্রা দেখা দিতে পারে।</p>

রাতে ডিম খাওয়া নিয়ে নানা মুনির নানা মত। কেউ বলেন যে পোস্ট-ডিনার স্ন্যাক হিসেবে ডিম বেশ ভালো। আবার কারোর মতে রাতে ডিম খেলে অনিদ্রা দেখা দিতে পারে।

<p>অনেকেরই রাতে ডিম খেলে পেটে গ্যাস হয়ে যায়। এর ফলেও ঘুমের সমস্যা হয়। তাই আপনি আগে দেখে নিন আপনার কোনটা স্যুট করছে। যদি রাতে ডিম খেয়ে আপনার কোনও সমস্যা না হয়, তাহলে নির্দ্বিধায় রাতের ডিনারে ডিম খেতেই পারেন।</p>

অনেকেরই রাতে ডিম খেলে পেটে গ্যাস হয়ে যায়। এর ফলেও ঘুমের সমস্যা হয়। তাই আপনি আগে দেখে নিন আপনার কোনটা স্যুট করছে। যদি রাতে ডিম খেয়ে আপনার কোনও সমস্যা না হয়, তাহলে নির্দ্বিধায় রাতের ডিনারে ডিম খেতেই পারেন।

loader