পিতৃশোকেও কর্তব্যে অবিচল, শ্রাদ্ধে দুঃস্থদের খাদ্যসামগ্রী বিলি জনপ্রতিনিধির

First Published 15, May 2020, 9:02 PM

লকডাউনের মাঝে বাবাকে হারিয়েছেন তিনি। কিন্তু শোকের সময়েও নিজের কর্তব্য ভুললেন না পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি সুকান্ত পাল। লকডাউনের বাজারে আড়ম্বর নয়, শ্রাদ্ধানুষ্ঠানে খাদ্য সামগ্রী বিলি করলেন দুঃস্থদের। অনুষ্ঠানে হাজির ছিলেন রাজ্যের মন্ত্রী নির্মল মাজি-সহ বহু বিশিষ্ট ব্যক্তি।
 

<p>করোনা আতঙ্ক, দীর্ঘমেয়াদি লকডাউনে দুর্ভোগও বাড়ছে আমজনতার। রুটি-রুজির সমস্যায় জেরবার সাধারণ মানুষ। খাবারও জুটছে না অনেকের।&nbsp;</p>

করোনা আতঙ্ক, দীর্ঘমেয়াদি লকডাউনে দুর্ভোগও বাড়ছে আমজনতার। রুটি-রুজির সমস্যায় জেরবার সাধারণ মানুষ। খাবারও জুটছে না অনেকের। 

<p>হাওড়ার আমতা পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি সুকান্ত পাল। তাঁর বাবা চণ্ডীচরণ পাল প্রয়াত হন ২ মে।&nbsp;</p>

হাওড়ার আমতা পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি সুকান্ত পাল। তাঁর বাবা চণ্ডীচরণ পাল প্রয়াত হন ২ মে। 

<p>&nbsp;নিয়ম মেনে বৃহস্পতি ও শুক্রবার বাড়িতে বাবার শ্রাদ্ধানুষ্ঠানের আয়োজন করেছিলেন সুকান্ত ও তাঁর পরিবারের লোকেরা।</p>

 নিয়ম মেনে বৃহস্পতি ও শুক্রবার বাড়িতে বাবার শ্রাদ্ধানুষ্ঠানের আয়োজন করেছিলেন সুকান্ত ও তাঁর পরিবারের লোকেরা।

<p>করোনা সতর্কতায় এখন জমায়েতের উপর নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে প্রশাসন। 'লোক খাওয়ানো'র আনুষ্ঠানিক বাদ রাখা হয়। &nbsp;বদলে এলাকার দুঃস্থ মানুষদের খাদ্যসামগ্রী বিলি করার সিদ্ধান্ত নেন পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি।</p>

করোনা সতর্কতায় এখন জমায়েতের উপর নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে প্রশাসন। 'লোক খাওয়ানো'র আনুষ্ঠানিক বাদ রাখা হয়।  বদলে এলাকার দুঃস্থ মানুষদের খাদ্যসামগ্রী বিলি করার সিদ্ধান্ত নেন পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি।

<p>সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার জন্য বিভিন্ন ক্লাব থেকে খাদ্যসামগ্রীর বিলির ব্যবস্থা করা হয়। কয়েকজনের&nbsp;হাতে অবশ্য খাদ্যসামগ্রী তুলে দেন রাজ্যের শ্রমদপ্তরের প্রতিমন্ত্রী নির্মল মাজিও।</p>

সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার জন্য বিভিন্ন ক্লাব থেকে খাদ্যসামগ্রীর বিলির ব্যবস্থা করা হয়। কয়েকজনের হাতে অবশ্য খাদ্যসামগ্রী তুলে দেন রাজ্যের শ্রমদপ্তরের প্রতিমন্ত্রী নির্মল মাজিও।

loader