২০২১ সালটা ২০২০-র থেকে থেকেও বেশি বিপজ্জনক এবং ধ্বংসাত্মক, কী বলছেন নস্ত্রাদামুস, দেখুন

First Published Dec 31, 2020, 11:20 PM IST

২০২০-র থেকে খারাপ বছর আর হতে পারে না। সকলেই এই কথা বলে আশা করছেন, ২০২১ এলেই সব ঝঞ্ঝা কেটে যাবে। কিন্তু, সেই গুজড়ে বালি। অন্তত বিখ্য়াত ফরাসী দার্শনিক চিকিত্সক, ঔষধবিদ তথা ভবিষ্যৎবেত্তা মিশেল দে নস্ত্রাদামুস-এর ভবিষ্যৎবাণী কিন্তু অন্য কথা বলছে। 'লে প্রফেসিটি' নামক বিখ্যাত গ্রন্থে তিনি তাঁর ভবিষ্যৎবাণীগুলি শ্লোক বা অনুকবিতার আকারে লিখে গিয়েছিলেন। পাঁচ শতাব্দী আগে লেখা সেই গ্রন্থ বারবারই বিস্মিত করেছে বিশ্ববাসীকে। এখনও অবাক করে চলেছে। তাঁর মতে, ২০২১ সালটা কিন্তু, ২০২০-র থেকেও আরও বেশি বিপজ্জনক এবং ধ্বংসাত্মক হতে চলেছে। দেখে নেওয়া যাক, সামনের বছরের জন্য কী কী বলেছেন তিনি -

 

<p style="text-align: justify;"><strong>রুশ জৈব অস্ত্র </strong></p>

<p style="text-align: justify;">মৃত্যুর পরও ফের জীবিত হয়ে শুধু খিদের অনুভুতি নিয়ে ঘুরে বেড়ানো একটি কাল্পনিক অবস্থাকে বলা হয় জম্বি।&nbsp; নস্ত্রাদামুসের বই-এর বার্ষিক রাশিফল অংশে বলা হয়েছে, একজন রুশ বিজ্ঞানীর তৈরি করা জৈব অস্ত্রেই মানুষ <strong>জম্বি-তে পরিণত হবে, আর </strong>মানব সভ্যতা বিলুপ্ত হবে। এই ধ্বংসের শুরু হবে 'কয়েকজন অর্ধমৃত তরুণ'-এর থেকে।</p>

রুশ জৈব অস্ত্র

মৃত্যুর পরও ফের জীবিত হয়ে শুধু খিদের অনুভুতি নিয়ে ঘুরে বেড়ানো একটি কাল্পনিক অবস্থাকে বলা হয় জম্বি।  নস্ত্রাদামুসের বই-এর বার্ষিক রাশিফল অংশে বলা হয়েছে, একজন রুশ বিজ্ঞানীর তৈরি করা জৈব অস্ত্রেই মানুষ জম্বি-তে পরিণত হবে, আর মানব সভ্যতা বিলুপ্ত হবে। এই ধ্বংসের শুরু হবে 'কয়েকজন অর্ধমৃত তরুণ'-এর থেকে।

<p style="text-align: justify;"><strong>দুর্ভিক্ষ</strong></p>

<p style="text-align: justify;">এছাড়া তিনি বলেছেন, 'বিরাট সমস্যার মোকাবিলা করার পরও মানবসভ্যতা-কে অধিকতর জটিল সমস্যার জন্য প্রস্তুত থাকতে হবে'। এই সমস্য়াগুলি 'বৃষ্টিপাত, রক্ত, দুগ্ধ, দুর্ভিক্ষ, ইস্পাত ও মহামারি' থেকে আসতে পারে। এর থেকে অনেকেই মনে করছেন, মানব সভ্যতার সর্বনাশের শুরুটা হবে মহামারি, দুর্ভিক্ষ এবং ভূমিকম্প দিয়ে। মহামারি হয়ে গিয়েছে, তাই এবার দুর্ভিক্ষের পালা। বিশ্বব্যাপী মহামারির ফলে ২০২১ সালে খাদ্য নিরাপত্তা বিষয়ে সমস্যা হতে পারে বলে ইতিমধ্য়ে সতর্কও করেছে রাষ্ট্রসংঘ।</p>

দুর্ভিক্ষ

এছাড়া তিনি বলেছেন, 'বিরাট সমস্যার মোকাবিলা করার পরও মানবসভ্যতা-কে অধিকতর জটিল সমস্যার জন্য প্রস্তুত থাকতে হবে'। এই সমস্য়াগুলি 'বৃষ্টিপাত, রক্ত, দুগ্ধ, দুর্ভিক্ষ, ইস্পাত ও মহামারি' থেকে আসতে পারে। এর থেকে অনেকেই মনে করছেন, মানব সভ্যতার সর্বনাশের শুরুটা হবে মহামারি, দুর্ভিক্ষ এবং ভূমিকম্প দিয়ে। মহামারি হয়ে গিয়েছে, তাই এবার দুর্ভিক্ষের পালা। বিশ্বব্যাপী মহামারির ফলে ২০২১ সালে খাদ্য নিরাপত্তা বিষয়ে সমস্যা হতে পারে বলে ইতিমধ্য়ে সতর্কও করেছে রাষ্ট্রসংঘ।

<p style="text-align: justify;"><strong>আরও জটিল রোগ</strong></p>

<p style="text-align: justify;">অনেকে আবার বলছেন, নস্ত্রাদামুস 'অধিকতর জটিল সমস্যা' বলতে পরের বছর করোনাভাইরাসের থেকে আরও ভয়ঙ্কর মহামারির রোগের প্রাদুর্ভাব সম্পর্কে সাবধান করেছেন।</p>

আরও জটিল রোগ

অনেকে আবার বলছেন, নস্ত্রাদামুস 'অধিকতর জটিল সমস্যা' বলতে পরের বছর করোনাভাইরাসের থেকে আরও ভয়ঙ্কর মহামারির রোগের প্রাদুর্ভাব সম্পর্কে সাবধান করেছেন।

<p style="text-align: justify;"><strong>গ্রহাণু সংঘর্ষ</strong></p>

<p style="text-align: justify;">নস্ত্রাদামুস লিখেছেন, এই বছর আকাশে আগুনের তৈরি 'আলোর ফুলকির দীর্ঘ পথ' দেখা যেতে পারে। অকেরে মতে এর অর্থ হল এই বছর কোনও বিশালাকার গ্রহাণু পৃথিবীর বুকে আছড়ে পড়তে পারে। নাসা ইতিমধ্যেই বলেছে, পরের কয়েক বছরের মধ্যে বেশ কয়েকটি দৈত্যাকার গ্রহাণুর সঙ্গে পৃথিবীর সংঘর্ষ হতে পারে।</p>

গ্রহাণু সংঘর্ষ

নস্ত্রাদামুস লিখেছেন, এই বছর আকাশে আগুনের তৈরি 'আলোর ফুলকির দীর্ঘ পথ' দেখা যেতে পারে। অকেরে মতে এর অর্থ হল এই বছর কোনও বিশালাকার গ্রহাণু পৃথিবীর বুকে আছড়ে পড়তে পারে। নাসা ইতিমধ্যেই বলেছে, পরের কয়েক বছরের মধ্যে বেশ কয়েকটি দৈত্যাকার গ্রহাণুর সঙ্গে পৃথিবীর সংঘর্ষ হতে পারে।

<p style="text-align: justify;"><strong>ভূমিকম্প</strong></p>

<p style="text-align: justify;">এছাড়া, পশ্চিমের কোনও দেশে একটি ভয়াবহ ভূমিকম্প হবে বলেও ভবিষ্যৎবাণী করেছেন ফরাসী দার্শনিক। বিজ্ঞানীদের পূর্বাভাসের সঙ্গে মিলিয়ে মনে করা হচ্ছে এই জায়গাটি সম্ভবত আমেরিকার ক্যালিফোর্নিয়া।</p>

ভূমিকম্প

এছাড়া, পশ্চিমের কোনও দেশে একটি ভয়াবহ ভূমিকম্প হবে বলেও ভবিষ্যৎবাণী করেছেন ফরাসী দার্শনিক। বিজ্ঞানীদের পূর্বাভাসের সঙ্গে মিলিয়ে মনে করা হচ্ছে এই জায়গাটি সম্ভবত আমেরিকার ক্যালিফোর্নিয়া।

<p style="text-align: justify;"><strong>নস্ত্রাদামুসের কথা ফেলে দেওয়ার নয়</strong></p>

<p style="text-align: justify;">বিশেষজ্ঞরা অনেক সময়ই নস্ত্রাদামুসের পূর্বাভাসগুলিকে অযৌক্তিক বলে উড়িয়ে দেন। সেইসঙ্গে এটাও ঠিক, যে তাঁর শ্লোকগুলি কখনই সরাসরি কোনও পূর্বাভাস দেয় না, সবই বলা থাকে শ্লোকের পঙক্তিগুলির মধ্যে অস্পষ্টভাবে। তবে, হিটলারের উত্থান, দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধ থেকে হাল আমলের মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ওয়ার্ল্ড ট্রেড সেন্টারের টুইট টাওয়ারের পতন অবধি - ইতিহাসের অনেক গুরুত্বপূর্ণ বিষয় সম্পর্কে তাঁর পূর্বাভাস কিন্তু বারবারই সত্যি প্রমাণিত হয়েছে।</p>

নস্ত্রাদামুসের কথা ফেলে দেওয়ার নয়

বিশেষজ্ঞরা অনেক সময়ই নস্ত্রাদামুসের পূর্বাভাসগুলিকে অযৌক্তিক বলে উড়িয়ে দেন। সেইসঙ্গে এটাও ঠিক, যে তাঁর শ্লোকগুলি কখনই সরাসরি কোনও পূর্বাভাস দেয় না, সবই বলা থাকে শ্লোকের পঙক্তিগুলির মধ্যে অস্পষ্টভাবে। তবে, হিটলারের উত্থান, দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধ থেকে হাল আমলের মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ওয়ার্ল্ড ট্রেড সেন্টারের টুইট টাওয়ারের পতন অবধি - ইতিহাসের অনেক গুরুত্বপূর্ণ বিষয় সম্পর্কে তাঁর পূর্বাভাস কিন্তু বারবারই সত্যি প্রমাণিত হয়েছে।

Today's Poll

একসঙ্গে কতজন প্লেয়ারের সঙ্গে খেলতে পছন্দ করেন