উত্তর-দক্ষিণে ধর্মঘট সফল করতে মরিয়া বামেরা, বারাসাতে লাঠিচার্জ পুলিশের, দেখুন ছবি

First Published Nov 26, 2020, 10:42 AM IST


বৃহস্পতিবার ট্রেড ইউনিয়নদের ডাকে দেশজুড়ে বনধ। সাতসকালেই আগুন জ্বালিয়ে ধর্মঘট সফল করতে মরিয়া বামেরা। উত্তর থেকে দক্ষিণ কলকাতায় আগুন জ্বালিয়ে ধর্মঘট পালন করল বামেরা। যদিও শহরে স্বাভাবিকভাবেই গাড়ি চলাচল করছে রাস্তায়। অশান্তির আশঙ্কায় নামানো হয়েছে অতিরিক্ত পুলিশও। তবে বাংলায় বামেদের ডাকা ধর্মঘটের জেরে দফায় দফায় ট্রেন অবরোধ বিভিন্ন জায়গায়। এর ফলে বিপর্যস্ত লোকাল ট্রেন পরিষেবা। যাদবপুর থেকে নিউটাউনের সবদিকে কী অবস্থা সকাল থেকে এবার দেখে নেওয়া যাক।

<p>যাদবপুরের রাস্তায় ট্রেড ইউনিয়নদের ডাকে ধর্মঘট সফল করতে রাস্তায় নামলেন সুজন চক্রবর্তী এবং অন্য়ান্যরা।&nbsp;<br />
&nbsp;</p>

যাদবপুরের রাস্তায় ট্রেড ইউনিয়নদের ডাকে ধর্মঘট সফল করতে রাস্তায় নামলেন সুজন চক্রবর্তী এবং অন্য়ান্যরা। 
 

<p>৮ বি বাস স্ট্য়ান্ডের সামনে দিয়ে যাচ্ছে দীর্ঘ মিছিল। অফিস টাইমে ব্যাস্ত ব্লক হয়ে দুর্ভোগে যাত্রীরা।</p>

৮ বি বাস স্ট্য়ান্ডের সামনে দিয়ে যাচ্ছে দীর্ঘ মিছিল। অফিস টাইমে ব্যাস্ত ব্লক হয়ে দুর্ভোগে যাত্রীরা।

<p>&nbsp;উত্তর থেকে দক্ষিণ কলকাতায় আগুন জ্বালিয়ে ধর্মঘট পালন করল বামেরা।অশান্তির আশঙ্কায় নামানো হয়েছে অতিরিক্ত পুলিশও।&nbsp;</p>

 উত্তর থেকে দক্ষিণ কলকাতায় আগুন জ্বালিয়ে ধর্মঘট পালন করল বামেরা।অশান্তির আশঙ্কায় নামানো হয়েছে অতিরিক্ত পুলিশও। 

<p>বৃহস্পতিবার সারা ভারত জুড়ে কেন্দ্রীয় শ্রমিক সংগঠনের ডাকে সাধারণ ধর্মঘট। বৃহস্পতিবার প্রয়োজনীয় কাজে বাইরে বেরিয়ে সাধারণ মানুষের সমস্যা না হয়, তাই পথে প্রায় দেড় হাজার সরকারি বাস &nbsp;পাশপাশি প্রায় চার হাজার মতো বেসরকারি বাস নামানোর পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে। শহরে স্বাভাবিকভাবেই গাড়ি চলাচল করছে রাস্তায়।&nbsp;</p>

বৃহস্পতিবার সারা ভারত জুড়ে কেন্দ্রীয় শ্রমিক সংগঠনের ডাকে সাধারণ ধর্মঘট। বৃহস্পতিবার প্রয়োজনীয় কাজে বাইরে বেরিয়ে সাধারণ মানুষের সমস্যা না হয়, তাই পথে প্রায় দেড় হাজার সরকারি বাস  পাশপাশি প্রায় চার হাজার মতো বেসরকারি বাস নামানোর পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে। শহরে স্বাভাবিকভাবেই গাড়ি চলাচল করছে রাস্তায়। 

<p>বৃহস্পতিবার ট্রেড ইউনিয়নদের ডাকে দেশজুড়ে বনধ। এদিকে বাংলায় বামেদের ডাকা ধর্মঘটের জেরে দফায় দফায় ট্রেন অবরোধ বিভিন্ন জায়গায়। এর ফলে বিপর্যস্ত লোকাল ট্রেন পরিষেবা। পূর্ব রেল সূত্রে খবর, শিয়ালদা দক্ষিণ শিয়ালদা মেন এবং হাওড়া ডিভিশনে দফায় দফায় ট্রেন অবরোধ হয়েছে। অবরোধ যাদবপুর স্টেশনে।</p>

বৃহস্পতিবার ট্রেড ইউনিয়নদের ডাকে দেশজুড়ে বনধ। এদিকে বাংলায় বামেদের ডাকা ধর্মঘটের জেরে দফায় দফায় ট্রেন অবরোধ বিভিন্ন জায়গায়। এর ফলে বিপর্যস্ত লোকাল ট্রেন পরিষেবা। পূর্ব রেল সূত্রে খবর, শিয়ালদা দক্ষিণ শিয়ালদা মেন এবং হাওড়া ডিভিশনে দফায় দফায় ট্রেন অবরোধ হয়েছে। অবরোধ যাদবপুর স্টেশনে।

<p>নিউটাউনের গৌরাঙ্গনগর অটো স্ট্যান্ডে, টায়ার গাছের গাড়িতে আগুন জ্বালিয়ে ধর্মঘটে বামেরা।&nbsp;</p>

নিউটাউনের গৌরাঙ্গনগর অটো স্ট্যান্ডে, টায়ার গাছের গাড়িতে আগুন জ্বালিয়ে ধর্মঘটে বামেরা। 

<p>বৃহস্পতিবার সকালবেলা ধর্মঘট সফল করতে শ্যামবাজার পাঁচ মাথার মোড়ে সিপিএমের কর্মীসমর্থকরা উপস্থিত হয়েছেন। সকাল থেকেই এখানে তারা জমায়েত হতে শুরু করেছেন। একাধিক দাবি নিয়ে এদিন সিপিআইএম তাদের ধর্মঘট ডেকেছেন এবং তা সফল করতে কলকাতা শহরের বিভিন্ন জায়গায় সকাল থেকেই সিপিএমের কর্মী-সমর্থকরা জমায়েত হয়েছেন।</p>

বৃহস্পতিবার সকালবেলা ধর্মঘট সফল করতে শ্যামবাজার পাঁচ মাথার মোড়ে সিপিএমের কর্মীসমর্থকরা উপস্থিত হয়েছেন। সকাল থেকেই এখানে তারা জমায়েত হতে শুরু করেছেন। একাধিক দাবি নিয়ে এদিন সিপিআইএম তাদের ধর্মঘট ডেকেছেন এবং তা সফল করতে কলকাতা শহরের বিভিন্ন জায়গায় সকাল থেকেই সিপিএমের কর্মী-সমর্থকরা জমায়েত হয়েছেন।

<p><br />
ধর্মঘটকে ঘিরে ধুন্ধুমার বারাসাত হেলাবটতলা। বাম ও কংগ্রেস কর্মীদের ওপর লাঠিচার্জ পুলিশের। ৩৪ নম্বর জাতীয় সড়ক অবরোধের সময় পুলিশের সাথে ব্যাপক সংঘর্ষ বাধে বাম কর্মীদের সঙ্গে। অবস্থা নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ ব্যাপক লাঠিচার্জ করে। লাঠির আঘাতে আহত বেশ কয়েকজন কর্মী। বামফ্রন্টের অভিযোগ পুলিশ বিনা প্ররোচনায় লাঠি চালিয়েছে তাদের কর্মীদের ওপর। এ বিষয়ে প্রশাসনের যদিও কোনো প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়নি।</p>

<p>&nbsp;</p>


ধর্মঘটকে ঘিরে ধুন্ধুমার বারাসাত হেলাবটতলা। বাম ও কংগ্রেস কর্মীদের ওপর লাঠিচার্জ পুলিশের। ৩৪ নম্বর জাতীয় সড়ক অবরোধের সময় পুলিশের সাথে ব্যাপক সংঘর্ষ বাধে বাম কর্মীদের সঙ্গে। অবস্থা নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ ব্যাপক লাঠিচার্জ করে। লাঠির আঘাতে আহত বেশ কয়েকজন কর্মী। বামফ্রন্টের অভিযোগ পুলিশ বিনা প্ররোচনায় লাঠি চালিয়েছে তাদের কর্মীদের ওপর। এ বিষয়ে প্রশাসনের যদিও কোনো প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়নি।

 

Today's Poll

একসঙ্গে কতজন প্লেয়ারের সঙ্গে খেলতে পছন্দ করেন