'বাবাকে নিয়ে এমন কাজ প্রথম', গ্লাস পেন্টিং-এ সত্যজিতের সৃষ্টি উপহার সন্দীপকে

First Published 5, Nov 2020, 8:30 AM

এই বছরটা বিশ্ব বরেণ্য চলচ্চিত্র নির্মাতা সত্যজিৎ রায় এর জন্ম শতবার্ষিকী। করোনা কালে খুব বড় অনুষ্ঠান করা না করা গেলেও, ব্যাক্তিগত উদ্যোগে বেশ কিছু অন্যরকম উদ্যোগ নজর কেড়েছে। এর মধ্যে পল্লবী সিংহ রায়ের গ্লাস পেন্টিংসে সত্যজিৎ এর অমর সৃষ্টির বেশ কিছু নিদর্শন তুলে দিলেন শিল্পী নিজেই সন্দীপ রায়ের হাতে। 

<p>শিল্পী পল্লবী তাঁর ছবিতে 'রোদ্দুর' নামেই পরিচিতি দেন। ছবি গুলোর মধ্যে পথের পাঁচালী এর অপু-দুর্গার বৃষ্টি ভেজার দৃশ্য, গুপী-বাঘার এক &nbsp;গান গাওয়ার মুহূর্তও রয়েছে।<br />
&nbsp;</p>

শিল্পী পল্লবী তাঁর ছবিতে 'রোদ্দুর' নামেই পরিচিতি দেন। ছবি গুলোর মধ্যে পথের পাঁচালী এর অপু-দুর্গার বৃষ্টি ভেজার দৃশ্য, গুপী-বাঘার এক  গান গাওয়ার মুহূর্তও রয়েছে।
 

<p>অপরদিকে জয় বাবা ফেলুনাথ এর ভেল্কির খেল দেখানোর বোর্ড এর ডিজাইন, আর অন্যটি সত্যজিতের একটা মুখের প্রতিকৃতি গ্লাসের উপর নানা রঙে ফুটিয়ে তুলেছেন তিনি।</p>

অপরদিকে জয় বাবা ফেলুনাথ এর ভেল্কির খেল দেখানোর বোর্ড এর ডিজাইন, আর অন্যটি সত্যজিতের একটা মুখের প্রতিকৃতি গ্লাসের উপর নানা রঙে ফুটিয়ে তুলেছেন তিনি।

<p>এই বিশেষ বছরে এমন উপহার পেয়ে বেশ খুশি স্বয়ং সন্দীপ রায়। &nbsp;ছবির ফ্রেমগুলি ধরে বেশ অনেকগুলি ছবি তুললেন। তাঁর বাবা সত্যজিৎ রায়কে দেখে যেনও আবেগতাড়িত হলেন ভীষণভাবে।<br />
&nbsp;</p>

এই বিশেষ বছরে এমন উপহার পেয়ে বেশ খুশি স্বয়ং সন্দীপ রায়।  ছবির ফ্রেমগুলি ধরে বেশ অনেকগুলি ছবি তুললেন। তাঁর বাবা সত্যজিৎ রায়কে দেখে যেনও আবেগতাড়িত হলেন ভীষণভাবে।
 

<p>&nbsp;সন্দীপ রায় জানালেন,' খুব ভালো লাগল। গ্লাস পেন্টিংস যে আগে দেখিনি তেমনটা নয়। কিন্তু বাবাকে নিয়ে এমন কাজ এই প্রথম হল। এই কাজ গুলো একদম অন্যরকমের। বাবাকে নিয়ে এরকম কাজ পল্লবী আগামী দিনেও করুক আমার আগাম শুভেচ্ছা রইল। এরকম কাজ একত্রে এনে প্রদর্শনীও করা যায়।'<br />
&nbsp;</p>

 সন্দীপ রায় জানালেন,' খুব ভালো লাগল। গ্লাস পেন্টিংস যে আগে দেখিনি তেমনটা নয়। কিন্তু বাবাকে নিয়ে এমন কাজ এই প্রথম হল। এই কাজ গুলো একদম অন্যরকমের। বাবাকে নিয়ে এরকম কাজ পল্লবী আগামী দিনেও করুক আমার আগাম শুভেচ্ছা রইল। এরকম কাজ একত্রে এনে প্রদর্শনীও করা যায়।'
 

<p>&nbsp;পল্লবী পেশাগত ভাবে শিক্ষিকা হলেও গ্লাস পেন্টিংস নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে কাজ করে চলেছেন। তিনি নিজে বললেন,'আমি খুবই খুশি সন্দীপ বাবু যে ভাবে আমার কাজের তারিফ করলেন। কখনও ভাবিনি এমন একটা প্রাপ্তি জীবনে হবে। আমার ছেলের নাম রোদ্দুর,ওর নামেই আমি ছবিতে ইনিশিয়াল করি।' সত্যজিৎ রায়ের গুণগ্রাহীরা, তাঁর সঙ্গে যোগাযোগ করলে শিল্পীর এই বিশেষ পেতে&nbsp;পারেন ।</p>

 পল্লবী পেশাগত ভাবে শিক্ষিকা হলেও গ্লাস পেন্টিংস নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে কাজ করে চলেছেন। তিনি নিজে বললেন,'আমি খুবই খুশি সন্দীপ বাবু যে ভাবে আমার কাজের তারিফ করলেন। কখনও ভাবিনি এমন একটা প্রাপ্তি জীবনে হবে। আমার ছেলের নাম রোদ্দুর,ওর নামেই আমি ছবিতে ইনিশিয়াল করি।' সত্যজিৎ রায়ের গুণগ্রাহীরা, তাঁর সঙ্গে যোগাযোগ করলে শিল্পীর এই বিশেষ পেতে পারেন ।