সল্টলেকের বৃদ্ধাশ্রমে প্রবীণ আবাসিকদের দিলেন সম্মান, প্রাতরাশও সারলেন পুলিশ কমিশনার

First Published 13, Nov 2020, 3:30 PM

দুর্গাপুজো লক্ষ্মী পুজো শেষ হয়ে গিয়েছে। রাত পোহালেই শ্রী শ্রী শ্যামা পূজা। বিধান নগর কে এমনিতেই মাঝে মধ্যে কটাক্ষ সুরে অনেকেই বলেন বিধান নগর নাকি বৃদ্ধাশ্রম। বয়স্ক বাবা-মারা থাকেন এবং তাদের ছেলে মেয়ে রা কর্মসূত্রে কলকাতার বাইরে বা ভারতবর্ষের বাইরে থাকেন। মাঝেমধ্যে ফোনে যোগাযোগ করেন বছরে একবার হয়তো আসেন। তারই মাঝে বিধান নগর কমিশনারেট এর পুলিশের তরফ থেকে শুক্রবার সল্টলেকে একটি বৃদ্ধাশ্রমের যান বিধান নগর পুলিশ কমিশনার শ্রী মুকেশ আইপিএস, সহ অন্যান্য শীর্ষ পুলিশ আধিকারিকরা। 

<p>শুক্রবার সল্টলেকে একটি বৃদ্ধাশ্রমের যান বিধান নগর পুলিশ কমিশনার শ্রী মুকেশ আইপিএস, সহ অন্যান্য শীর্ষ পুলিশ আধিকারিকরা।&nbsp;<br />
&nbsp;</p>

শুক্রবার সল্টলেকে একটি বৃদ্ধাশ্রমের যান বিধান নগর পুলিশ কমিশনার শ্রী মুকেশ আইপিএস, সহ অন্যান্য শীর্ষ পুলিশ আধিকারিকরা। 
 

<p><br />
বিধান নগর কমিশনারেট পুলিশের তরফ থেকে আশ্বাস দেওয়া হয়, ভবিষ্যতে যে কোনও অসুবিধায় যদি তারা পড়েন বিধান নগর পুলিশের তরফ থেকে তাদের দেখাশোনা করা হবে।&nbsp;</p>


বিধান নগর কমিশনারেট পুলিশের তরফ থেকে আশ্বাস দেওয়া হয়, ভবিষ্যতে যে কোনও অসুবিধায় যদি তারা পড়েন বিধান নগর পুলিশের তরফ থেকে তাদের দেখাশোনা করা হবে। 

<p>বিধান নগর কমিশনারেট এর তরফ থেকে তাদের হাতে পুষ্পস্তবক উত্তরীয় ফল সুগার ফ্রি সন্দেশ চকলেট ইত্যাদি তুলে দেয়া হয়। আবাসনের সদস্যরা বিধান নগর পুলিশ কমিশনার এর হাতে পুষ্পস্তবক তুলে দেন এবং শীর্ষক পুলিশের আধিকারিকদের হাতেও পুষ্পস্তবক তুলে দেন।<br />
&nbsp;</p>

বিধান নগর কমিশনারেট এর তরফ থেকে তাদের হাতে পুষ্পস্তবক উত্তরীয় ফল সুগার ফ্রি সন্দেশ চকলেট ইত্যাদি তুলে দেয়া হয়। আবাসনের সদস্যরা বিধান নগর পুলিশ কমিশনার এর হাতে পুষ্পস্তবক তুলে দেন এবং শীর্ষক পুলিশের আধিকারিকদের হাতেও পুষ্পস্তবক তুলে দেন।
 

<p>&nbsp;এর পরেই ওই বৃদ্ধাশ্রমের সদস্য-সদস্যাদের সাথে একসঙ্গে বসে ব্রেকফাস্ট সরেন বিধান নগর এসিপি এবং শীর্ষ পুলিশের আধিকারিকরা।&nbsp;<br />
&nbsp;</p>

 এর পরেই ওই বৃদ্ধাশ্রমের সদস্য-সদস্যাদের সাথে একসঙ্গে বসে ব্রেকফাস্ট সরেন বিধান নগর এসিপি এবং শীর্ষ পুলিশের আধিকারিকরা। 
 

<p>পুলিশের কাছ থেকে আশ্বাস পেয়ে আপ্লুত ঐ আবাসনের সদস্য সদস্যরা। এই আবাসনে ৬০ বছর থেকে ৯৩ বছর অবদি আবাসিকরা থাকেন। গান গল্প এবং খাওয়া দাওয়া সব মিলিয়ে বৃদ্ধাশ্রম হয়ে ওঠে জমজমাট প্রাঙ্গন।&nbsp;<br />
&nbsp;</p>

পুলিশের কাছ থেকে আশ্বাস পেয়ে আপ্লুত ঐ আবাসনের সদস্য সদস্যরা। এই আবাসনে ৬০ বছর থেকে ৯৩ বছর অবদি আবাসিকরা থাকেন। গান গল্প এবং খাওয়া দাওয়া সব মিলিয়ে বৃদ্ধাশ্রম হয়ে ওঠে জমজমাট প্রাঙ্গন। 
 

<p>বিধান নগর রেসিপি মুকেশ কুমার আইপিএস জানান বিধান নগর পুলিশের তরফ থেকে 'সাঁঝবাতি' নামে প্রবীণ নাগরিকদের দেখভালের জন্য ২৪ ঘন্টা কাজ করে যাচ্ছে। অনেকেই নতুন টেকনোলজি সঙ্গে সহজ নয় অথচ বাড়িতে একলা থাকেন থানা ভিত্তিক তাদের নাম বয়স সংগ্রহ করে নিয়মিত তাদের সঙ্গে যোগাযোগ রাখা হচ্ছে।<br />
&nbsp;</p>

বিধান নগর রেসিপি মুকেশ কুমার আইপিএস জানান বিধান নগর পুলিশের তরফ থেকে 'সাঁঝবাতি' নামে প্রবীণ নাগরিকদের দেখভালের জন্য ২৪ ঘন্টা কাজ করে যাচ্ছে। অনেকেই নতুন টেকনোলজি সঙ্গে সহজ নয় অথচ বাড়িতে একলা থাকেন থানা ভিত্তিক তাদের নাম বয়স সংগ্রহ করে নিয়মিত তাদের সঙ্গে যোগাযোগ রাখা হচ্ছে।