মহামারী আবহে সংক্রমণ এড়িয়ে সুস্থ থাকতে, বাথরুম থেকে সরিয়ে ফেলুন এই ৫ টি জিনিস

First Published 6, Sep 2020, 4:04 PM

আজকের দৈনন্দিন জীবনযাত্রায়, মানুষ বিভিন্ন ধরণের রোগ এবং সংক্রমণে আক্রান্ত হচ্ছে। আমাদের প্রতিদিন ব্যবহারের এমন অনেক জিনিস রয়েছে যা আমাদের জীবনযাত্রার সঙ্গে সম্পর্কিত এবং আমাদের স্বাস্থ্যের উপর প্রভাব ফেলে। এমন পরিস্থিতিতে নিজেকে সুস্থ রাখতে আমাদের জীবন যাত্রায় কিছুটা পরিবর্তন করা উচিত। যাতে আমরা সুস্থ থাকতে পারি, সেই বিষয়ে নজর রাখা উচিত। বাথরুম আমাদের জীবনে প্রতিদিন ব্যবহৃত একটি গুরুত্বপূর্ণ জিনিস। যদিও আমরা বাথরুমে পরিষ্কার রাখি, তবে সসংক্রমণ এড়িয়ে সুস্থ থাকা সম্ভব অনেকটাই।

<p>বাথরুমে ব্যবহৃত সাবান, লুফা-সহ অন্যান্য অনেকগুলি জিনিস থাকাটা খুব স্বাভাবিক বিষয়। তবে আপনি কি জানেন যে এই জিনিসগুলির মধ্যে থেকেই সংক্রমিত হওয়ার আশঙ্কা থাকে। বাথরুমে থাকা এমন অনেক জিনিস আছে, যেগুলি সময় মত ফেলে দেওয়া উচিত। বিশেষ করে এই ৫টি &nbsp;জিনিস বাথরুমে বেশি দিন রাখা উচিত নয়। কারণ এগুলি স্বাস্থ্য এবং ত্বক উভয়ের জন্যই ক্ষতিকারক হিসাবে প্রমাণিত হতে পারে।&nbsp;</p>

বাথরুমে ব্যবহৃত সাবান, লুফা-সহ অন্যান্য অনেকগুলি জিনিস থাকাটা খুব স্বাভাবিক বিষয়। তবে আপনি কি জানেন যে এই জিনিসগুলির মধ্যে থেকেই সংক্রমিত হওয়ার আশঙ্কা থাকে। বাথরুমে থাকা এমন অনেক জিনিস আছে, যেগুলি সময় মত ফেলে দেওয়া উচিত। বিশেষ করে এই ৫টি  জিনিস বাথরুমে বেশি দিন রাখা উচিত নয়। কারণ এগুলি স্বাস্থ্য এবং ত্বক উভয়ের জন্যই ক্ষতিকারক হিসাবে প্রমাণিত হতে পারে। 

<p><strong>সাবান - </strong></p>

<p>আমরা সকলেই স্নান করার সময় সাবান ব্যবহার করি। তবে আপনি কি জানেন, সাবান দীর্ঘ সময়ের জন্য খোলা রেখে দেওয়ার ফলে এতে ব্যাকটিরিয়া জমতে থাকে। যদি আপনার সাবানটি কোনও ভাবে নোংরা, দূষিত থাকে তবে সংক্রমনের সম্ভাবনা থেকে যায়। এছাড়াও একই সাবান দীর্ঘদিন ব্যবহার করা উচিত নয়। এই ধরণের সাবান ব্যবহার এড়িয়ে চলুন। এই ধরণের সাবান ব্যবহারের ফলে ত্বকে নানা ধরণের জ্বালা বা সংক্রমণ হতে পারে, তাই সাবানগুলি সময়ের সঙ্গে সঙ্গে বদলে ফেলা উচিত।</p>

সাবান -

আমরা সকলেই স্নান করার সময় সাবান ব্যবহার করি। তবে আপনি কি জানেন, সাবান দীর্ঘ সময়ের জন্য খোলা রেখে দেওয়ার ফলে এতে ব্যাকটিরিয়া জমতে থাকে। যদি আপনার সাবানটি কোনও ভাবে নোংরা, দূষিত থাকে তবে সংক্রমনের সম্ভাবনা থেকে যায়। এছাড়াও একই সাবান দীর্ঘদিন ব্যবহার করা উচিত নয়। এই ধরণের সাবান ব্যবহার এড়িয়ে চলুন। এই ধরণের সাবান ব্যবহারের ফলে ত্বকে নানা ধরণের জ্বালা বা সংক্রমণ হতে পারে, তাই সাবানগুলি সময়ের সঙ্গে সঙ্গে বদলে ফেলা উচিত।

<p><strong>&nbsp;লুফা- </strong></p>

<p>বেশিরভাগ লোক স্নানের সময় লুফা ব্যবহার করেন। কিন্তু আপনি কি জানেন যে কয়েক মাস ব্যবহারের পরেই লুফাটি খারাপ হতে শুরু করে। দীর্ঘ দিন একই লুফা ব্যবহারের ফলে তাতে ছত্রাকের তন্তু জমা হতে পারে। বাথরুমে সর্বদা ময়েশ্চার থাকার ফলে সেখানে থাকা লুফা ব্যাকটিরিয়া জন্মাতে শুরু করে। এর ফলে সেই লুফা ব্যবহার করলে সংক্রমণের সম্ভাবনা থাকে। এর জন্য বাথরুমের একটু শুকনো জায়গায় এই লুফা রাখার চেষ্টা করুন। অন্যথায় এটি আপনার ত্বকের ক্ষতির কারণ হতে পারে।</p>

 লুফা-

বেশিরভাগ লোক স্নানের সময় লুফা ব্যবহার করেন। কিন্তু আপনি কি জানেন যে কয়েক মাস ব্যবহারের পরেই লুফাটি খারাপ হতে শুরু করে। দীর্ঘ দিন একই লুফা ব্যবহারের ফলে তাতে ছত্রাকের তন্তু জমা হতে পারে। বাথরুমে সর্বদা ময়েশ্চার থাকার ফলে সেখানে থাকা লুফা ব্যাকটিরিয়া জন্মাতে শুরু করে। এর ফলে সেই লুফা ব্যবহার করলে সংক্রমণের সম্ভাবনা থাকে। এর জন্য বাথরুমের একটু শুকনো জায়গায় এই লুফা রাখার চেষ্টা করুন। অন্যথায় এটি আপনার ত্বকের ক্ষতির কারণ হতে পারে।

<p><strong>সানস্ক্রিন- </strong></p>

<p>আপনি যদি নিয়মিত সানস্ক্রিন ব্যবহার না করেন। তবে আপনার সানস্ক্রিনটি কত পুরানো সেই বিষয়ে নজর রাখতে হবে। সাধারণত সমস্ত সানস্ক্রিনের মেয়াদ ৩ বছর পরে শেষ হয়। তাই মেয়াদ শেষের পর এটি ব্যবহার করা উচিত নয়। আপনি যদি একটানা একই সানস্ক্রিন ব্যবহার করে থাকেন তবে এটিও আপনার ত্বকে অ্যালার্জির কারণ হতে পারে। এগুলি ছাড়াও এটি আপনার ত্বকের ক্ষতিকারক ইউভি রশ্মি থেকে রক্ষা করতে কার্যকরি হবে না। সুতরাং, কোনও ব্র্যান্ডের সানস্ক্রিন ৩ বছর পরে ব্যবহার করা উচিত নয়।</p>

সানস্ক্রিন-

আপনি যদি নিয়মিত সানস্ক্রিন ব্যবহার না করেন। তবে আপনার সানস্ক্রিনটি কত পুরানো সেই বিষয়ে নজর রাখতে হবে। সাধারণত সমস্ত সানস্ক্রিনের মেয়াদ ৩ বছর পরে শেষ হয়। তাই মেয়াদ শেষের পর এটি ব্যবহার করা উচিত নয়। আপনি যদি একটানা একই সানস্ক্রিন ব্যবহার করে থাকেন তবে এটিও আপনার ত্বকে অ্যালার্জির কারণ হতে পারে। এগুলি ছাড়াও এটি আপনার ত্বকের ক্ষতিকারক ইউভি রশ্মি থেকে রক্ষা করতে কার্যকরি হবে না। সুতরাং, কোনও ব্র্যান্ডের সানস্ক্রিন ৩ বছর পরে ব্যবহার করা উচিত নয়।

<p><strong>ক্রিম বা লোশন- </strong></p>

<p>মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে স্কিন কেয়ার নিয়ে একটি গবেষণায় বলা হয়েছে যে, নিউসপোরিনের মতো ওষুধযুক্ত নিরাময়ের লোশনগুলিতে সক্রিয়, অ্যান্টিব্যাক্টেরিয়াল উপাদান রয়েছে যার কারণে তাদের প্রভাব খুব দ্রুত হ্রাস পায়। অতএব, আপনার এই জাতীয় পণ্যগুলি তাড়াতাড়ি ফেলে দেওয়া উচিত। যে কোনও ধরণের ক্যামিক্যাল প্রোডাক্ট ব্যবহারের আগে অবশ্যই স্কিন কেয়ার স্পেশালিস্ট বা ডার্মাটোলজিস্টের পরামর্শ নিন।</p>

ক্রিম বা লোশন-

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে স্কিন কেয়ার নিয়ে একটি গবেষণায় বলা হয়েছে যে, নিউসপোরিনের মতো ওষুধযুক্ত নিরাময়ের লোশনগুলিতে সক্রিয়, অ্যান্টিব্যাক্টেরিয়াল উপাদান রয়েছে যার কারণে তাদের প্রভাব খুব দ্রুত হ্রাস পায়। অতএব, আপনার এই জাতীয় পণ্যগুলি তাড়াতাড়ি ফেলে দেওয়া উচিত। যে কোনও ধরণের ক্যামিক্যাল প্রোডাক্ট ব্যবহারের আগে অবশ্যই স্কিন কেয়ার স্পেশালিস্ট বা ডার্মাটোলজিস্টের পরামর্শ নিন।

<p><strong>রেজার ব্লেড - </strong></p>

<p>প্রায়শই বাথরুমে ব্যবহৃত মরিচে ধরা রেজার ব্লেড পাওয়া যায়। এই ধরণের রেজার এবং ব্লেড ব্যবহার আপনার পক্ষে অত্যন্ত ক্ষতিকারক হতে পারে। সুতরাং আপনার তাত্ক্ষণিকভাবে এগুলি ফেলে দেওয়া উচিত। আপনি যদি এগুলি ব্যবহার করেন তবে এটি আপনার ত্বকে সংক্রমণ হতে পারে। ৩ থেকে ৫ বারের বেশি একই ব্লেড ব্যবহার করার উচিত নয়।&nbsp;</p>

রেজার ব্লেড -

প্রায়শই বাথরুমে ব্যবহৃত মরিচে ধরা রেজার ব্লেড পাওয়া যায়। এই ধরণের রেজার এবং ব্লেড ব্যবহার আপনার পক্ষে অত্যন্ত ক্ষতিকারক হতে পারে। সুতরাং আপনার তাত্ক্ষণিকভাবে এগুলি ফেলে দেওয়া উচিত। আপনি যদি এগুলি ব্যবহার করেন তবে এটি আপনার ত্বকে সংক্রমণ হতে পারে। ৩ থেকে ৫ বারের বেশি একই ব্লেড ব্যবহার করার উচিত নয়। 

loader