'সিবিআই তদন্ত চাই', বিজেপি কর্মীর দেহ মাটিতে পুঁতে রাখলেন পরিবারের লোকেরা

First Published 8, Sep 2020, 12:54 PM

হেফাজতে থাকাকালীন পুলিশই তো পিটিয়ে মেরেছে! সিবিআই তদন্তের দাবিতে এবার বিজেপি কর্মীর দেহ মাটিতে পুঁতে রাখলেন পরিবারের লোকেরা। জায়গাটি বাঁশের ব্যারিকেড দিয়ে ঘিরে দেওয়া হয়েছে, পালা করে পাহারা দিচ্ছেন গ্রামবাসীরা। ঘটনাস্থল, উত্তর দিনাজপুরের ইটাহার।
 

<p>সক্রিয় বিজেপি কর্মী হিসেবে পরিচিত ছিলেন এলাকায়। পরিবারের লোকেদের দাবি, পুরানো একটি মামলা বুধবার সকালে ইটাহারের নন্দনগ্রামের বাসিন্দা অনুপ রায়কে বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে যায় পুলিশ। আর ফেরেননি তিনি।<br />
&nbsp;</p>

সক্রিয় বিজেপি কর্মী হিসেবে পরিচিত ছিলেন এলাকায়। পরিবারের লোকেদের দাবি, পুরানো একটি মামলা বুধবার সকালে ইটাহারের নন্দনগ্রামের বাসিন্দা অনুপ রায়কে বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে যায় পুলিশ। আর ফেরেননি তিনি।
 

<p>সেদিন রাতে বাড়ি থেকে কিছুটা দূরে অনুপ মৃতদেহ পাওয়া যায়। ছেলের মৃত্য়ুসংবাদ পেয়েই রায়গঞ্জে বিজেপি জেলা কার্যালয়ে চলে যান নিহতের মা। গেরুয়াশিবিরের অভিযোগ, বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে গিয়ে ওই বিজেপি কর্মীকে বেধড়ক মারধর করে পুলিশ। তারপর গুলি করে খুন করেছে&nbsp;তৃণমূল আশ্রিত দুষ্কৃতীরা।<br />
&nbsp;</p>

সেদিন রাতে বাড়ি থেকে কিছুটা দূরে অনুপ মৃতদেহ পাওয়া যায়। ছেলের মৃত্য়ুসংবাদ পেয়েই রায়গঞ্জে বিজেপি জেলা কার্যালয়ে চলে যান নিহতের মা। গেরুয়াশিবিরের অভিযোগ, বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে গিয়ে ওই বিজেপি কর্মীকে বেধড়ক মারধর করে পুলিশ। তারপর গুলি করে খুন করেছে তৃণমূল আশ্রিত দুষ্কৃতীরা।
 

<p>স্রেফ মৌখিক অভিযোগই নয়, ছেলের মৃত্যুতে রায়গঞ্জ থানায় কর্মরত পাঁচজন পুলিশ আধিকারিকের বিরুদ্ধে এফআইআরও করেন নিহত বিজেপি কর্মীর মা। অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে খুনের মামলা রুজু করা হয়েছে।<br />
&nbsp;</p>

স্রেফ মৌখিক অভিযোগই নয়, ছেলের মৃত্যুতে রায়গঞ্জ থানায় কর্মরত পাঁচজন পুলিশ আধিকারিকের বিরুদ্ধে এফআইআরও করেন নিহত বিজেপি কর্মীর মা। অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে খুনের মামলা রুজু করা হয়েছে।
 

<p>কিন্তু ঘটনা হল, পুলিশের তদন্তে আস্থা নেই পরিবারের লোকেদের। সিবিআই তদন্তের দাবি তুলেছেন তাঁরা। শুধু তাই নয়, দাবি পূরণে আশায় দাহ না &nbsp;করে মৃতদেহটি পুঁতে রাখা হয়েছে &nbsp;নিহতের বাড়ির কাছেই।<br />
&nbsp;</p>

কিন্তু ঘটনা হল, পুলিশের তদন্তে আস্থা নেই পরিবারের লোকেদের। সিবিআই তদন্তের দাবি তুলেছেন তাঁরা। শুধু তাই নয়, দাবি পূরণে আশায় দাহ না  করে মৃতদেহটি পুঁতে রাখা হয়েছে  নিহতের বাড়ির কাছেই।
 

<p>বছর দুয়েক আগে গুলি চলেছিল উত্তর দিনাজপুরেরই দাঁড়িভিট হাইস্কুলে। গুলিবিদ্ধ হয়ে মারা গিয়েছিল স্কুলের দুই প্রাক্তন ছাত্র। &nbsp;সিবিআই তদন্তের দাবিতে মৃতদেহ এখনও দুটি মাটিতে পুঁতে রেখেছেন পরিবারের লোকেরা। এবার সেই ঘটনার পুনরাবৃত্তি ঘটল ইটাহারেও।&nbsp;<br />
&nbsp;</p>

বছর দুয়েক আগে গুলি চলেছিল উত্তর দিনাজপুরেরই দাঁড়িভিট হাইস্কুলে। গুলিবিদ্ধ হয়ে মারা গিয়েছিল স্কুলের দুই প্রাক্তন ছাত্র।  সিবিআই তদন্তের দাবিতে মৃতদেহ এখনও দুটি মাটিতে পুঁতে রেখেছেন পরিবারের লোকেরা। এবার সেই ঘটনার পুনরাবৃত্তি ঘটল ইটাহারেও। 
 

loader