যত দিন যাচ্ছে ততই যেন শরীরে দানা বাঁধছে জটিল রোগ। কারণে হোক অকারণে চুপিসারে কঠিন রোগের শিকার হচ্ছেন সকলেই। রোগের জন্য নির্দিষ্ট কোনও বয়সও নেই। ছোট থেকে বড় যে কোনও বয়সেই মারণ রোগ থাবা বসাচ্ছে অজান্তেই। জানেন কি প্রতি ৪০ সেকেন্ডে একজন ব্যক্তি স্ট্রোকে আক্রান্ত হচ্ছেন। অতিরিক্ত চিন্তার কারণেই স্ট্রোক হয় যে কোনও ব্যক্তির। তবে চিকিৎসকদের মতে, এটি মস্তিষ্কের কোষগুলির মধ্যে রক্ত সঞ্চালনের অভাবে ঘটে।

আরও পড়ুন-এবার হোয়াটস অ্যাপেই বুকিং করতে পারবেন LPG গ্যাস সিলিন্ডার, জানুন কীভাবে...

সূত্রের খবর, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে ৪৯ শতাংশ লোক উচ্চ রক্তচাপ, উচ্চ কোলেস্টেরল এবং ধূমপানের কারণে স্ট্রোকে আক্রান্ত হচ্ছেন। বিশেষজ্ঞদের মতে, কোনও ব্যক্তি যদি সঠিকভাবে রক্তচলাচল নিয়ন্ত্রণ করে তবে এই ভয়ঙ্কর রোগটি এড়ানো সম্ভব। তবে এর জন্য প্রাথমিক  কিছু ঘরোয়া পদ্ধতি রয়েছে,  প্রতিদিনের ডায়েটে কিছু পরিবর্তন করলেই এর থেকে রেহাই মিলবে।

 

যে সব মহিলারা বেশি পটাশিয়াম যুক্ত খাবার খান তাদের স্ট্রোকের ঝুঁকি অন্যের চেয়ে কম থাকে। পটাশিয়াম যুক্ত একটি খাবার হল কলা। শারীরিক শক্তি বৃদ্ধির জন্যও কলাও খুব উপকারী।

হাই ফ্যাটযুক্ত দুগ্ধজাত খাবার হার্টের স্বাস্থ্যের জন্য ভাল নয়। এর বদলে ফ্যাট ছাড়া সাধারণ দই খেতে পারেন। এতে থাকা প্রচুর পরিমাণে ফাইবার রয়েছে যা হার্টের জন্য ভীষণ উপকারী।

ফাইবার সমৃদ্ধ ওটমিল শরীরের এলডিএল কোলেস্টেরল হ্রাস করতে সহায়তা করে। এবং এটি শরীরের জন্য খুব কার্যকরী।

স্ট্রোকের সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে মিষ্টি আলুও খুবই উপকারী। এতে ফাইবার এবং পটাশিয়াম রয়েছে যা স্বাস্থ্যের জন্য খুব ভাল। 

হার্ট অ্যাটাক, স্টোকের ঝুঁকি, কমাতে প্রতিদিন পাতে রাখুন লঙ্কা। লঙ্কা হলেই হল না সেটা কিন্তু  শুকনো লঙ্কা হতে হবে। আমাদের শরীরের প্রয়োজনীয় ভিটামিন-সির ঘাটতি মেটায় এই সব্জি। শুধু তাই নয়, হার্ট অ্যাটাক থেকে স্ট্রোকের ঝুঁকি সবেতেই কার্যকরী এই লঙ্কা।