কালীপুজো দিন মানেই আলোর রোশনাই। তারপরেই আবার ভাইফোঁটা। আর ভাইফোঁটা মানেই জমিয়ে খাওয়া-দাওয়া, মিষ্টিমুখ, আরও কত কী। তবে যারা ডায়াবিটিসে ভুগছেন তাদের জন্যও রয়েছে হাজার নিয়মবিধি। বিশেষত মিষ্টি খাবার খেতে ইচ্ছে হলেও রোগের ভয়ে খাওয়ার উপায় নেই। কিন্তু এটা জানেন কি মিষ্টি খেলেও নিয়ন্ত্রণে থাকবে আপনার ডায়াবেটিস। ওয়ার্ল্ড ডায়াবেটিস ডে-তে জেনে নিন মিষ্টি খেলেও কীভাবে নিয়ন্ত্রণে রাখবেন ডায়াবেটিস। 

 

ডায়াবিটিস রোগীদের মিষ্টি মানেই ভয়। তেমনটা মোটেই নয়। ডায়াবিটিসের সমস্যায় যারা ভুগছেন তারা বিশেষ কিছু নিয়ম মেনে চললেই খেতে পারবেন স্বাদের মিষ্টি।

ডায়াবিটিস রুগীদের জন্য মিষ্টির মধ্যে সবচেয়ে ভাল হল রসগোল্লা। তবে তার মানে এই নয়, তা গপগপ করে খেটয়ে নেবেন। মিষ্টি খেতে হবে রস ঝরিয়ে, এছাড়াও সুগার ফ্রি মিষ্টিও খেতে পারেন মাঝেমধ্যে।

মিষ্টি খাওয়ার পর মনে রাখবেন, কোনও প্রোটিন বা ফাইবার জাতীয় খাবার খাওয়ার পরেই মিষ্টি খান, এতে সুগার নিয়ন্ত্রণে থাকবে।

 মিষ্টি যেই দিন খাবেন বিশেষ করে  সেইদিন অন্যান্য কার্বোহাইড্রেট অবশ্যই পরিমাণে কম খান, ভাতের পরিমান কমিয়ে সব্জি ও স্যালাড খান বেশি করে। এর সঙ্গে  টক দই রাখুন ডায়েটে।

যেই দিন  মিষ্টি খাবেন সেইদিন ফিস ফ্রাই বা চিকেন কাটলেট এর পরিবর্তে লো ফ্যাট মাছ বা চিকেন কাবাব খান। চিকেন খেলেও মাটন এড়িয়েই চলুন।

 

 

প্রতিদিনের মতো উৎসবের দিনেও ডায়েটে  রাখুন যেকোনও মরসুমি ফল।

প্রতিদিন  শরীর চর্চা মাস্ট। বিশেষ করে প্রতিদিন নিয়মিত হাঁটা ও যোগাসন করুন।

সকালবেলা খালি পেটে মেথি গুঁড়ো ভেজানো জল খান, এতে সুগার নিয়ন্ত্রণে থাকবে।

যারা  চকোলেট খেতে ভালবাসেন তাদের জন্যও আর কোনও চিন্তা নেই। ডার্ক চকলেট খেতে পারেন। এতে ব্লাড সুগার, ব্লাডপ্রেসার নিয়ন্ত্রণে থাকবে।