ইঁটের বাড়ি, কিন্তু জানলা নেই। রাতের অন্ধকারে দম্পতির শোওয়ার ঘর থেকে চুরি হয়ে গেল শিশু! খাল থেকে উদ্ধার হল তার দেহ। ঘটনায় তীব্র উত্তেজনা ছড়াল হাওড়ার আমতায়। দোষীদের গ্রেফতারের দাবিতে পথ অবরোধ করেন শিশুর পরিবারের লোক ও স্থানীয় বাসিন্দারা। শিশু চুরির অভিযোগে পুলিশ একজন আটক করেছে বলে জানা গিয়েছে। 

আমতার পেঁড়ো বসন্তপুর মহিষপাড়া এলাকায় থাকেন সঞ্জয় মালিক ও তাঁর স্ত্রী দোলন। ওই দম্পতির শিশুপুত্রের বয়স ছ'মাস। শুক্রবার রাতে সন্তানকে সঙ্গে নিয়ে শুয়েছিলেন সঞ্জয় ও তাঁর স্ত্রী। কিন্তু ভোরের দিকে যখন তাঁদের ঘুম ভাঙে, তখন শিশুটি বিছানায় ছিল না! অভিযোগ তেমনই। কিন্তু দুধের শিশুটিকে কে নিয়ে গেল? ছেলেকে দেখতে না পেয়ে কান্নাকাটি করতে শুরু করেন ওই দম্পতি। এদিকে ততক্ষণে তাঁদের বাড়ির সামনে ভিড় করেছেন প্রতিবেশীরাও। সকলে মিলে শিশুকে খোঁজাখুঁজি করতে শুরু করেন। ঘণ্টা দুয়েক বাদে বাড়ি থেকে কাছে একটি খালে একরত্তির দেহ ভাসতে দেখা যায় বলে জানা গিয়েছে। এরপরই পরিস্থিতি অগ্নিগর্ভ হয়ে ওঠে।  সন্তানের নিথর দেহ কোলে নিয়ে হাওড়ার মুন্সিরগঞ্জ থেকে উদয়নারায়ণপুর যাওয়ার রাস্তায় বসে পড়েন শিশুটির। পথ অবরোধ সামিল হন স্থানীয় বাসিন্দারা।  ঘটনাস্থলে পৌঁছালে, পুলিশের সঙ্গে বিক্ষোভকারীদের রীতিমতো বাক-বিতণ্ডা শুরু হয়ে যায়। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ আনতে পুলিশ লাঠিচার্জ করে বলে অভিযোগ। ঘণ্টা দেড়েক বাদে অবরোধ উঠে। 

আরও পড়ুন: হাতি তাড়াতে গিয়ে প্রাণ গেল হুলা পার্টির সদস্যের, দেহাংশ মিলল জঙ্গলে

এদিকে আবার ঘটনাস্থল থেকে পুলিশ জামিরুল শেখ নামে এক ব্যক্তির ভোটার কার্ড উদ্ধার করেছে বলে জানা গিয়েছে। স্থানীয় সূত্রে খবর, জামিরুল পেশায় রাজমিস্ত্রি, তার বাড়ি মুর্শিদাবাদে। আমতার পেঁড়ো বসন্তপুর মহিষপাড়া এলাকায় ভাড়া থাকে সে। জামিরুলকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ করছেন তদন্তকারীরা।  বাবা-মাকে বেহুঁশ করে দেওয়া হয়েছিল, তাও খতিয়ে দেখা হচ্ছে।