বিশ্বনাথ দাস, হাওড়া-বাড়ি থেকে পালিয়ে অপরিচিত ব্যক্তির বাড়িতে গিয়ে যৌন হেনস্থার শিকার হলেন এক তরুণী। শুধু তাই নয়, ওই তরুণী উদ্ধার হলেও যৌন হেনস্থার অভিযোগ দায়ের করতে গিয়ে পুলিশ ও জিআরপির টানাপোড়েনে দিনভর দুর্ভোগের শিকার হল পরিবার। জিআরপির তরফে জানানো হয় অভিযোগ নেবে পুলিশ। অন্যদিকে, পুলিশ জানায় অভিযোগ দায়ের হবে জিআরপিতে।
আরও পড়ুন-বন্ধ ঘরে বাবা-মায়ের পচাগলা দেহ, খুনের অভিযোগে গ্রেফতার উচ্চশিক্ষিত বেকার ছেলে

চাঞ্চল্যকর এই ঘটনাটি ঘটেছে হাওড়ার লিলুয়ায়। জানাগেছে, লিলুয়া থানা এলাকার বেলগাছিয়ায় পরিবারের সঙ্গে থাকত ওই কিশোরী। কয়েকদিন আগে পরিবারের সঙ্গে ঝামেলা হলে বাড়ি থেকে পালিয়ে যায় সে। বাড়ি থেকে পালিয়ে জগন্নাথ ঘাটে বসে থাকার সময় অপরিচিত এক তরুণীর সঙ্গে তাঁর পরিচয় হয়। ওই তরুণীর সঙ্গে বেলুড় এলাকার ঝুপড়ি থাকতে শুরু করে কিশোরী। ওই ঝুপড়িতে তরুণীর সঙ্গে তাঁর স্বামীও থাকত। অভিযোগ, গতরাতে ওই তরুণীর স্বামী ভিকি রায় কিশোরীর সঙ্গে যৌন হেনস্থা করে। বুধবার সকালে তাঁকে লিলুয়া স্টেশনে ওই কিশোরীকে ছেড়ে দেওয়া হয়। সেখান থেকে অন্যের নম্বর থেকে তাঁর পরিবারকে ফোন করে কিশোরী। বাড়ির লোকজন লিলুয়া স্টেশন থেকে তাঁকে উদ্ধার করে।


আরও পড়ুন-'মানুষকে বিভ্রান্ত করছেন তৃণমূলের কিছু লোক', দলের বিরুদ্ধেই ক্ষোভ প্রকাশ বিধায়কের

এরপর, ভিকি রায়ের বিরুদ্ধে যৌন হেনস্থার অভিযোগ করতে গিয়ে হেনস্থার শিকার হয় তাঁর গোটা পরিবার। কিশোরী লিলুয়া থানা এলাকায় উদ্ধার হওয়ায় বেলুড় জিআরপি তাঁকে লিলুয়া থানায় পাঠিয়ে দেয়। অসুস্থ অবস্থায় ওই কিশোরীকে লিলুয়া থানায় দীর্ঘক্ষণ বসিয়ে রাখা হয় বলে অভিযোগ। সকাল দশটা থেকে সন্ধে ছটা পর্যন্ত দিনভর থানায় বসিয়ে রাখা হয় বলে অভিযোগ। বেলুড় জিআরপিতে পালটা অভিযোগ জানাতে বলে লিলুয়া থানার পুলিশ। পুলিশ ও জিআরপির টানাপোড়েনের জেরে দিনভর হেনস্থার শিকার হয় ওই কিশোরীর পরিবার। সংবাদ মাধ্যমে খবর প্রকাশিত হতেই হাওড়া সিটি পুলিশের ডিসি নর্থের নির্দেশে অবশেষে অভিযোগ দায়ের হয় লিলুয়া থানায়। অভিযুক্ত ভিকি রায়ের খোঁজে তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ।