লোকাল ট্রেন পরিষেবা শুরু হতেই চেনা ছন্দে হাওড়া স্টেশন। বিভিন্ন জেলা থেকে ট্রেনে করে কলকাতার আসার জন্য হাওড়া স্টেশনে আসছেন হাজার হাজার যাত্রী।যাত্রীরা যাতে শারীরিক দূরত্ব বজায় রেখে যাতায়াত করেন তার জন্য হাওড়া স্টেশনে বারবার প্রচার করা হচ্ছে।

আরও পড়ুন, লোকাল ট্রেন চালু হলেও আপাতত বন্ধ টিকিট বুকিং UTS অ্যাপ, কাউন্টারই এখন একমাত্র ভরসা


 সরকারি নির্দেশ মেনে দেওয়া হচ্ছে যাত্রী পরিষেবা

হাওড়া স্টেশনে থাকা রেল ও রাজ্য পুলিশের কর্তারা জানিয়েছেন, সরকারি যেমন নির্দেশ আছে, সেই নির্দেশ মেনে তারা সব কাজ করার চেষ্টা করছেন। স্টেশনে পর্যাপ্ত পুলিশ রাখা হয়েছে। এছাড়া পুরসভার পক্ষ থেকে রাখা হয়েছে থার্মাল গান। যারা স্টেশনে আসছেন সেই সব যাত্রীদের থার্মাল স্ক্যান করা হচ্ছে। এর জন্য নিযুক্ত করা হয়েছে পুরসভার কর্মী। 

 

 

 হাওড়া স্টেশনে যাত্রীদের ভিড়


রেল আধিকারিকদের বক্তব্য ট্রেন গুলিতে ভিড়ের সংখ্যা তুলনামূলক কম। লক ডাউন পূর্ববর্তী সময়ে যে ভিড়ের ছবি হাওড়া স্টেশনে দেখা যেত লোকাল ট্রেন পরিষেবা শুরুর দিন ভিড় কিছুটা হলেও কম। যদিও রেল কর্তারা জানাচ্ছেন হাওড়া শাখায় ধাপে ধাপে বাড়বে ভিড়ের ছবি। যদিও শিয়ালদা শাখায় ভিড় কিছুটা হলেও বেশি। 

আরও পড়ুন, দীর্ঘ সাড়ে ৭ মাস পর চালু লোকাল ট্রেন, সাতসকালেই কাউন্টারে লম্বা লাইন

 


 মেনে চলা হচ্ছে শারীরিক দূরত্ব

যাত্রীরা যাতে শারীরিক দূরত্ব বজায় রেখে যাতায়াত করেন তার জন্য হাওড়া স্টেশনে বারবার প্রচার করা হচ্ছে। একই সঙ্গে মাস্ক ব্যবহার করা হ্যান্ড স্যানিটাইজার এর ব্যবহার করার জন্য প্রচার করা হচ্ছে। এছাড়া লাগানো হয়েছে পোস্টার। যেখানে সচেতনতা সম্পর্কে একাধিক তথ্য লিখে রাখা হয়েছে।


রেল আধিকারিকদের বক্তব্য, 'যাত্রী সংখ্যা বাড়তে থাকলে ধীরে ধীরে পরিষেবা বাড়ানো হবে। সামাজিক দূরত্ব কিংবা শারীরিক দূরত্ব বজায় রাখতে যে ভাবে পরিষেবা চালানো উচিত সেই ভাবেই পরিষেবা চালানো হবে' বলে জানান রেল আধিকারিকরা।

 

আরও পড়ুন, তেজস্বীর জন্য ৪৪ হাজার বিয়ের প্রস্তাব, সরকারি অভিযোগ জানানোর নম্বরেই তরুণীরা জানাত মনের কথা