গণেশ পুজোর বিসর্জনের আনন্দ ছেয়ে ফেলল এক রাশ বিষাদ। গণেশ ঠাকুর বিসর্জন করতে গিয়ে উল্টে গেল নৌকো। যার জেরে প্রাণ হারালেন ১১জন। ভোপালের খটলাপুর ঘাটে প্রতিমা বিসর্জন করতে এসে আচমকাই ডুবে যায় নৌকো। 

আকস্মিক এই দুর্ঘটনায় মৃত্যু হয়েছে এগারো জনের। উদ্ধারকাজে নেমেছে উদ্ধারকারী দল। এখনও পর্যন্ত পাঁচজনকে উদ্ধার করা সম্ভব হয়েছে। অ্যাডিশনাল পুলিশ সুপার অখিল পটেল জানিয়েছেন, যে নৌকোটি ডুবে গিয়েছে তাতে ১৬জনের একটি দল ছিল। এখনও পর্যন্ত তল্লাশি অভিযান চালিয়ে ১১জনের মৃতদেহ উদ্ধার করা সম্ভব হয়েছে। বাকি পাঁচজনকে জীবিত উদ্ধার করা সম্ভব হয়েছে। অনুসন্ধানকার্য এখনও জারি রয়েছে। 

 

রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাঙ্ক সংযুক্তিকরণের প্রতিবাদের জের, পুজোর মুখেই ধর্মঘটের ডাক

ফোনে স্বামীর সঙ্গে গল্পে মগ্ন, সঙ্গমরত দুটি সাপের ওপর বসে পড়লেন স্ত্রী, তারপর...

আরও জানা গিয়েছে যে, আকস্মিক এই দুর্ঘটনাটি ঘটে ভোর সাড়ে চারটে নাগাদ। প্রায় ৪০ জন পুলিশ আধিকারিক এবং বর্তমানে ঘটনাস্থলে উপস্থিত রয়েছে। পেশাদার সাঁতারু এবং অন্যআন্য় আধিকারিকরাও তল্লাশি অভিযান চালাচ্ছে। রাজ্য বিপর্যয় মোকাবিলা পর্ষদও এই উদ্ধারকার্জে হাত লাগাচ্ছে বলে জানা গিয়েছে। দুর্ঘটনায় মৃতদের পরিবারকে ক্ষতিপূরণ হিসাবে চার লক্ষ টাকা দেওয়ার কথা ঘোষণা করা হয়েছে। পর্যাপ্ত নিরাপত্তা বেষ্টনী থাকা সত্তেও কীভাবে এমন ঘটনা ঘটল এখন সেই বিষয়েই তদন্ত চালানো হচ্ছে।