রাত পোহালেই ভোট রাজধানী দিল্লিতে। উত্তেজনায় ফুটছে সব পক্ষই। তার মধ্যেই নিরাপত্তার বলয়ে মুড়ে ফেলা হয়েছে গোটা রাজধানীকে। কোনওরকম যাতে অপ্রীতিকর ঘটনা না ঘটে তার জন্য সদা সতর্ক রয়েছে নির্বাচন কমিশন ও দিল্লি পুলিশ। সকাল থেকেই ভোটের লাইনে দাঁড়াবেন দিল্লিবাসী। ভোটকেন্দ্রগুলিতে তারই এখন শেষমুহুর্তের প্রস্তুতি। এবারে দিল্লি বিধানসভা ভোটে সেঞ্চুরি করে ফেলা ভোটারের সংখ্যা ১৩০ বেশি। তাঁরা প্রত্যেকেই ভোটকেন্দ্রে ভিআইপির মর্যাদা পাবেন বলে জানিয়েছে নির্বাচন কমিশন।

এরআগে দিল্লির মুখ্য নির্বাচনী কর্মকর্তা রাজধানীতে শতায়ু পেরোনো ১৫০ জন নাগরিরকে চিহ্নিত করেছিলেন। কিন্তু শারীরিক পরীক্ষার পর সংখ্যাটা ১৩০-এর কাছাকাছি দাঁড়ায়।

আরও পড়ুন: নাগরিকত্ব আইন পাসের পর আজ প্রথমবার অসমে মোদী, যোগ দেবেন বোড়োদের অনুষ্ঠানে 

" প্রাথমিক ভাবে বয়স ১০০ পেরোনো মোট ১৫০ জন ভোটারকে চিহ্নিত করেছিলেন আমাদের আধিকারিকরা। কিন্তু যাচাই করতে গিয়ে দেখা যায় এদের মধ্যে অনেকেই মারা গেছেন, কেউ কেউ আবার দিল্লির বাইরে অন্যত্র চলে গিয়েছেন, তাই সংখ্যাটা কিছুটা কমেছে," জানিয়েছেন দিল্লির মুখ্য নির্বাচনী আধিকারিক। 


ফেব্রুয়ারির ৮ তারিখ দিল্লির বিধানসভা নির্বাচন ঘিরে উত্তেজনা তুঙ্গে। রাজধানীর ক্ষমতায় কে থাকবে তা নিয়েও চলছে শেষমুহূর্তের কৌশলী প্রচেষ্টা। তবে শুধু কৌশলেই নয়, রঙিন নির্বাচন হতে চলেছে বলা বাহুল্য। মঙ্গলবার নির্বাচন কমিশন জানিয়েছে, ২০২০ সালের দিল্লি বিধানসভা নির্বাচনে প্রায় ১৫০ জন শতায়ু ভোটারদের চিহ্নিত করা হয়েছে।

শতায়ু পেরোনো মোট ১৩২ জন ভোটারের মধ্যে পুরুষ রয়েছেন ৬৮ জন। মহিলা ভোটারের সংখ্যা ৬৪।  প্রবীণ ভোটারের  সবচেয়ে সংখ্যা বেশি পশ্চিম দিল্লিতে। এই এলাকায় শতায়ু ভোটার রয়েছেন ২১ জন। নিউ দিল্লিতে সংখ্যা সবচেয়ে কম। এই অঞ্চলে ১০০ পেরিয়েছেন ৭ জন।

এবারে রাজধানীর ভোটে সবচেয়ে প্রবীণ ভোটার হলেন কালীতারা মণ্ডল। গ্রেটার কৌলাস বিধানসভার ভোটার কালীতারাদেবীর বয়স ১১০ বছর। তিনি দক্ষিণ দিল্লির সিআর পার্কের বাসিন্দা। ২০১৯ সালের লোকসভা ভোটে রাজধানীতের সবচেয়ে বেশি বয়সী ভোটার ছিলেন ১১১ বছরের বচচ্ন সিং। তিলকনগররের বাসিন্দা বচ্চন সিং গত বছর ডিসেম্বরে প্রয়াত হন। 

আরও পড়ুন: মার্কিন হামলায় খতম আল কায়দা প্রধান, বিবৃতি দিলেন ডোনাল্ড ট্রাম্প

গত লোকসভা ভোটে দিল্লির বয়স্ক ভোটাররা ভিআইপি মর্যাদা পেয়েছিলেন। বিধানসভা ভোটেও শতায়ু পেড়োনো ভোটাররা সেই সব সুবিধা পাবেন বলে জানিয়েছেন দিল্লির সিইও রণবীর সিং। ভোট দিতে গেলেই এই প্রবীণ ভোটারদের ফুলের তোড়া দিয়ে স্বাগত জানানো হবে, তাঁদের সঙ্গে ছবি তুলবেন নির্বাচন কমিশনের কর্মীরা। ভোটকেন্দ্র পর্যন্ত গাড়িতে করে তাঁদের নিয়ে আসা ও বাড়ি পৌঁছে দেওয়ার ব্যবস্থাও রাখছে কমিশন। স্বাস্থ্য পরীক্ষা করার জন্য থাকবেন চিকিৎসকরাও। 

২০১৯ সালের লোকসভা ভোটে দিল্লিতে শতায়ু ভোটারের সংখ্যা ছিল ৯৬। এরমধ্যে পুরুষ ভোটের ছিলেন ৪২। মহিলা ভোটারের সংখ্যা ছিল ৫৪।