কার্গিল যুদ্ধে দুই পা, ডান হাত খুইয়েছিলেন নাইক দীপচাঁদ। কিন্তু কেড়ে নিতে পারেনি তাঁর সেনা-চেতনা। ২০ বছর পর কার্গিল বিজয় দিবসে তিনি ফিরলেন জম্মু কাশ্মীরে। কার্গিল যুদ্ধ স্মৃতি সৌধে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানালেন একসময়ের সতীর্থ শহিদ জওয়ানদের।

কার্গিল যুদ্ধ তাঁকে প্রতিবন্ধী করে দিয়েচটে। কিন্তু তার জন্য ছিটোফোঁটাও আফসোষ নেই দীপচাঁদের তিনি জানিয়েছেন, একজন সৈনিক যখন তাঁর উর্দি গায়ে তোলে, তখন সে সর্বস্ব পণ করে দেশের জন্য। বলা যেতে পারে নিজের আত্মাকে সমর্পণ করে দেশের সুরক্ষায়।

আরও পড়ুন - কার্গিল যুদ্ধ জয়ের ২০ বছর, দেশজুড়ে আজ বন্দিত হচ্ছে বীর সেনানিদের কাহিনি

আরও পড়ুন - কেটে গিয়েছে ২০ বছর, অপূর্ণই প্রতিশ্রুতি! অপেক্ষায় কার্গিল শহিদের মা

আরও পড়ুন - মিলবে শুধু মৃতদেহ! পাকিস্তানকে কড়া বার্তা সেনা প্রধানের, পাত্তাই দিলেন না ইমরানকে

২০ বছর আগে যেমন তাঁদের একমাত্র লক্ষ্য ছিল শত্রুকে পরাজিত করা। তার জন্য সবরকম ক্ষতি স্বীকার করতে তৈরি ছিলেন তাঁরা। তিনি ছিলেন মিসাইল রেজিমেন্টের সদস্য। তাঁর মনে আছে বিজয় দিবসের দিন কার্গিলে ব্যাপক ঠান্ডা ছিল। টোলোইং-এর লড়াইতে জয়লাভ করেছিলেন তাঁরা। শত্রিুদের লক্ষ্য করে প্রায় ১০০০০ রাউন্ড গুলি ছুড়েছিল তাঁর রকেজিমেন্ট।  সেইসঙ্গে প্রাণ দিয়েছিলেন তাঁর অনেক সতীর্থও। তাঁদের শর্দ্ধা জানাতেই ২০ বছর পর বিজয় দিবসের দিন তিনি ফের কাশ্মীর উপত্যকায় ফিরলেন।