২০০৮ সালের ২৬/১১ স্মৃতি এখনো দগদগে ভারতীয়দের মনে। ভারতের ইতিহাসে সবচেয়ে বড় এই জঙ্গি হামলায় প্রাণ হারিয়েছিলেন কমপক্ষে  ১৬০ জন। অবশেষ এই মামলার অন্যতম চক্রী ধরা পড়ল পুলিশের জালে। পাক বংশোদ্ভূত কানাডিয়ান নাগরিক তাহাউর হুসেন রানাকে গ্রেফতার করেছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের পুলিশ। 

মুম্বই হামলার অন্যতম প্রধান মাথা ডেভিড কোলমান হেডলির অত্যন্ত কাছের লোক এই  তাহাউর হুসেন রানা। এর আগে লসঅ্যাঞ্জেলসে ১৪ বছরের কারাদণ্ড হয়েছিল রানার। কিন্তু শারীরিক অবস্থার অবনতি হওয়ায় তাকে জেল থেকে সময়ের আগেই মুক্তি দেওয়া হয়েছিল। তবে ফের একবার পুলিশের জালে গ্রেফতার হতে হল রানা। আইনি প্রক্রিয়ার পর তাকে ভারতে পাঠান হবে বলে জানা যাচ্ছে। 

২০০৫ সালে মহম্মদের নামে বিতর্কিত কার্টুন প্রকাশ করায় ডেনমার্কের একটি সংবাদপত্রের অফিসে হামলা চালায় পাকিস্তানের মদতপুষ্ট লস্কর-ই-তৈইবা জঙ্গিগোষ্ঠী। পরে এই ঘটনার তদন্তে নেমে হামলায় মদত দেওয়া রানাকে শিকাগো থেকে গ্রেফতার করে মার্কিন পুলিশ। দোষী প্রমাণিত হওয়ার পর রানাকে  ১৪ বছরের জন্য জেলে পাঠানোর নির্দেশ দেন বিচারক। ২০২১ সালের ডিসেম্বর মাসে তার জেল থেকে মুক্তি পাওয়া কথা ছিল। কিন্তু, শরীর অসুস্থ থাকায় ও করোনা পরিস্থিতির কারণে গত সপ্তাহে তাকে জেল থেকে ছেড়ে দেওয়া হয়।

তবে জেল থেকে মুক্তি পেয়েও হল না শেষ  রক্ষা। ২০০৮ সালে হওয়া মুম্বই হামলার জন্য এবার তাকে ফের গ্রেফতার করল লস অ্যাঞ্জেলস পুলিশ। তার বিরুদ্ধে থাকা খুন ও খুনের ষড়যন্ত্রের অভিযোগের ভিত্তিতে এই পদক্ষেপ বলে জানিয়েছে মার্কিন পুলিশ। ইতিমধ্যে তার বিরুদ্ধে ভারতে প্রত্যর্পণের মামলা করা হয়েছে। জানা যাচ্ছে, ভারত সরকার ট্রাম্প প্রশাসনের সম্পূর্ণ সহযোগিতা নিয়ে রানাকে ভারতের ফেরানোর জন্য সম্পূর্ণ প্রচেষ্টা চালাচ্ছে।