আবারও অভিবাসী শ্রমিকের রক্তে ভিজল রাজপথ। এবার ঘটনাস্থল মধ্যপ্রদেশ। তেলাঙ্গনার হায়দরাবাদ থেকে ঘরে ফিরতে মরিয়া ২০ জন অভিবাসী শ্রমিকের একটি দল ট্রেনে উঠতে না পেরে নিজেরে জমাপুঁজি খরচ করেই ট্রাক ভাড়া করেছিল। উদ্দেশ্য ছিল একটাই যেভাবেই হোক ঘরে ফিরে যাওয়া। কিন্তু তাতেও শেষ রক্ষা হল না। ট্রাকটি উল্টে যাওয়ায় ঘটনাস্থলেই মৃত্যু হল ৫ অভিবাসী শ্রমিকের। আহত হয়েছেন ১১ জন। 

মধ্যপ্রদেশের ভোপাল প্রায় ২০০ কিলোমিটার দূরে নরসিংপুরে এই দুর্ঘটনা ঘটে। স্থানীয় জেলাশাসক দীপক সাক্সেনা বলেছেন, আহতদের প্রত্যেকেরই চিকিৎসার ব্যবস্থা করা হচ্ছে। আহতরা করোনায় আক্রান্ত কিনা তা জানার জন্য তাঁদের নমুনাও সংগ্রহ করা হয়েছে। আহতদের মধ্যে দুই অভিবাসী শ্রমিকের অবস্থা আশঙ্কাজনক বলেও জানিয়েছেন তিনি। 

তেলাঙ্গনার হায়দরাবাদ থেকে একটি আম বোঝাই ট্রাকে করেই বাড়ির উদ্দেশ্যে রওনা দিয়েছিলেন ২০ জন অভিবাসী শ্রমিক। তাঁদের গন্তব্য ছিল উত্তর প্রদেশের ঝাঁসি। কিন্তু বাড়ি ফেরার আগেই ঘটে যায় মর্মান্তিক পরিণতি। ট্রাক দুর্ঘটনায় ঘটনাস্থলেই মৃত্যু হয় ৫ শ্রমিকরে। জেলা শাসক আরও জানিয়েছেন শনিবার গভীর রাতেই ঘটে এই দুর্ঘটনা। 

আরও পড়ুুনঃ মৃত্যুপুরী আমেরিকায় করোনা প্রাণ কাড়ল চিকিৎসক বাবা ও মেয়ে, জন্মসূত্রে তাঁরা ভারতীয় ...

আরও পড়ুনঃ মৃতের সংখ্যা ৪০০ ছাড়াতেই নাজেহাল উদ্ধব, বদলি করলেন সরকারি আধিকারিকদের ...

শুক্রবারই বাড়ি ফিরতে মরিয়া ১৬ শ্রমিককে পিষে দিয়েছিলে মালগাড়ির চাকা। সেই রেশ কাটতে না কাটতেই সামনে এল মধ্য প্রদেশের ঘটনা। বিরোধীদের অভিযোগ, লকডাউনের ৪০ দিন পরেও কেন্দ্র অভিবাসী শ্রমিকদের বাড়ি ফেরাতে তেমন কোনও উদ্যোগ নেয়নি। যদিও অভিযোগ অস্বীকার করে কেন্দ্রীয় সরকার জানিয়েছে অভিবাসীদের বাড়ি ফেরাতে ট্রেনের ব্যবস্থা করা হয়েছে। কিন্তু তারপরেও দেখা যাচ্ছে কাজ হারান অভিবাসীরা নিজেদের উদ্যোগেই বাড়ি ফিরতে চেষ্টা করছেন। কেউ মাইলের পর মাইল হাঁটছেন। কেউ আবার নিজের শেষ সম্বলটুকু খরচ করে গাড়ির ব্যবস্থা করছেন।