সারা বিশ্বের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে ভারতেও লাফিয়ে লাফিয়ে  বাড়ছে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা। এবার দেশের বাণিজ্য নগরীতেও থাবা বসিয়েছে এই মারণ ভাইরাস। ইতিমধ্যে মুম্বইয়ের ২ জনের শরীরে মিলেছে কোভিড-১৯ ভাইরাস। এছাড়া পুনে শহরে ৮ জনের শরীর মিলেছে এই মারণ ভাইরাস। যার ফলে শুধু মহারাষ্ট্রেই করোনা আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১০। আর ভারতে করোনা আক্রান্ত হয়েছেন ৬৮ জন। কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রকের তরফেই এই তথ্য দেওয়া হয়েছে। 

মহারাষ্ট্রে করোনা আক্রান্ত ১০ জনকেই হাসপাতালের বিশেষ পর্যবেক্ষণে রাখা হয়েছে বলে জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী উদ্ধব ঠাকরে। এই পরিস্থিতিতে আতঙ্কিত না হওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রী। পাশাপাশি বিদেশ থেকে সম্প্রতি যারা ভারতে ফিরে এসেছেন তারা যাতে কয়েকদিন পরিবার ও জনসমাগম থেকে দূরে থাকেন তার আহ্বান জানিয়েছেন। করোনার কারণে মহারাষ্ট্রে অনুষ্ঠিত হতে চলা আইপিএল ম্যাচ পিছিয়ে দেওয়ার ইজ্ঞিতও দিয়েছে রাজ্য সরকার। 

আরও পড়ুন: অন্তত ১২০টি দেশে ছড়িয়ে পড়েছে করোনা, শেষপর্যন্ত 'গ্লোবাল প্যানডেমিক' ঘোষণা 'হু'র

এদিকে ভারতে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা সবচেয়ে বেশি কেরলে। এই রাজ্যে এখনও পর্যন্ত ১৭ জনের শরীরে কোভিড-১৯ ভাইরাস পাওয়া গিয়েছে। এদের মধ্যে অবশ্য ৩ জন আগেই সুস্থ হয়ে উঠেছেন। 

বর্তমানে ভারত ছাড়াও করোনা থাবা বসিয়েছে বিশ্বের ১২০টি দেশে। যার জেরে বুধবার বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা করোনাভাইরাসকে বিশ্বব্যাপী মহামারী ঘোষণা করেছে। এর কিছুক্ষণের মধ্যেও বিদেশিদের জন্য জারি করা যাবতীয় ভিসা বাতিল করল ভারত সরকার। শুক্রবার মধ্যরাত থেকে বিশেষ কারণ ছাড়া ভারতে প্রবেশ করতে পারবেন না কোনও বিদেশি নাগরিক। আগামী ১৫ এপ্রিল পর্যন্ত এই বিধিনিষেধ বলবৎ থাকবে। সরকারের তরফে প্রকাশ করা ট্রাভেল অ্যাডভাইজারিতে একথা জানান হয়েছে।

আরও পড়ুন: রাজকীয় ভঙ্গিতে হেঁটে যাচ্ছেন বাঘমামা, পর্যটকদের ক্যামেরাবন্দি হলেন দক্ষিণ রায়

বুধবার রাতে করোনা পরিস্থিতি নিয়ে ফের বৈঠকে বসেন কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী হর্ষবর্ধন। সেখানেই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয় শুক্রবার রাত ১২টার পর সমস্ত ভারতীয় ভিসা বাতিল করা হয়েছে। শুধুমাত্র কূটনৈতিক, সরকারি ও রাষ্ট্রসংঘ বা আন্য কোনও আন্তর্জাতিক সংগঠনের কর্মীদের জন্য ভিসা বলবৎ থাকবে। পাশাপাশি প্রবাসী ভারতীয় কার্ডধানীরেদর ভিসা ছাড়া দেশে প্রবেশের অধিকার ১৫ এপ্রিল পর্যন্ত প্রত্যাহার করা হয়েছে।