দিল্লির বাসের এক কর্মীর উপস্থিত বুদ্ধির জেরে রক্ষা পেল চার বছরেরে একটি শিশু। বাসের মধ্যে শিশুটির সঙ্গে থাকা যুবককে একদম বেমানান লাগছিল। তাতেই বাসের কর্মী অরুণ কুমারের সন্দেহ হয়। কাছে গিয়ে বুঝতে পারে, শিশুটি অঝোরে কেঁদে চলেছে। আর ওই  যুবক তাকে শাসিয়ে যাচ্ছে। এর ফলে অরুণ কুমার স্পষ্ট বুঝতে পারেন, শিশুটি ওই যুবকের নয়। অন্যান্য যাত্রীদের সাহায্যে শিশুটিকে উদ্ধার করা হয়। পুলিশের হাতে তুলে দেওয়া হয়। পুলিশ অভিযুক্ত ব্যক্তিকে আটক করেছে। জানা গিয়েছে, অভিযুক্ত ব্যক্তিই  ওই শিশুটিকে অপহরণ করে। দিল্লি পুলিশ শিশুটিকে পরিবারের কাছে ফিরিয়ে দিয়েছে বলে জানা গিয়েছে। 

পুলিশের বয়ান অনুযায়ী মধ্যপ্রদেশের বাসিন্দা স্ত্রী ও তিন ছোট ছোট স্ত্রীকে নিয়ে হজরত নিজামুদ্দিন স্টেশনে নামেন বুধবার। কিছুক্ষণ পর থেকে তাঁদের বড় মেয়েকে খুঁজে পাচ্ছিলেন না।  এদিক ওদিক খোঁজার পর, যখন শিশুটিকে পেলেন না ওই ব্যক্তি পুলিশে খবর দেন।  অন্য দিকে, পুলিশের কাছে খবর আসে ৭২৮ রুটের একটি বাসে চার বছরের শিশুর সঙ্গে একটি  সন্দেহভাজন এক ব্যক্তিকে পাওয়া গিয়েছে। পুলিশ তৎক্ষণাৎ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়,  বাসের কর্মী অরুণ কুমারের সাহায্যে চার বছরের শিশুটিকে উদ্ধার করে। 

মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল ঘটনায় বাসের কর্মী অরুণ কুমারের প্রশংসা করেন।  টুইটে তিনি জানিয়েছেন, বাসের কর্মী অরুণ কুমারকে আমার সালাম। আপনার মতো ব্যক্তিদের জন্য দিল্লি গর্ব অনুভব করেন। ১৩,০০০ বাসের কর্মী কয়েক লক্ষ যাত্রীকে  নিরাপত্তা দিয়ে থাকেন।  সাধারণ মানুষে বাসে নিজেদের নিরাপদ অনুভব করেন।