করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রুখতে লকডাউনের পথে হেঁটেছে অন্ধ্র প্রদেশ সরকার। বন্ধ দোকানবাজার। প্রায় স্তব্ধ জনজীবন। এই অবস্থান রীতিমত অমিল দেখা দিয়েছে পানীয়র। আর মদ না পেয়ে নেশার তাড়নায় স্যানিটাইজারে  ভারসা রেখেছিলেন কয়েক জন।  আর তার ফল হল ভয়ঙ্কর। এখনও পর্যন্ত ৯ জনের মৃত্যু হয়েছে বলে জানিয়েছেন অন্ধ্র প্রদেশের পুলিশ। 

অন্ধ্র প্রদেশের প্রকাশম জেলায় এই ভয়ঙ্কর দুর্ঘটনা ঘটেছে। পুলিশ সুপার সিদ্ধার্থ কৌশল জানিয়েছেন করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রুখতে লকডাউন চলছে। আর সেই কারণে মদ না পেয়ে অ্যালকোহলযুক্ত স্যানিটাইজার পান করেছেন কয়েকজন। মৃত ৯জনের ময়নাতদন্ত হয়েছে। কারও  পাকস্থলী থেকে মাদ পাওয়া যায়নি।

স্থানীয় প্রশাসনের কথায় স্থানীয় দূর্গা মন্দিরে এক ভিক্ষুক অসুস্থ হয় পড়েন। তখন তাঁকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। তারপরই তার পেট থেকে বার করা হয় স্যানিটাইজার। কিন্তু তারপরেও তাঁকে বাঁচানো যায়নি।  বৃহস্পতিবার পেটে মৃত্যু হয় আরও দুজনের। আর বাকি ৬ জনের মৃত্যু হয় শুক্রবার সকালে। 

স্থানীয় প্রশাসন জানিয়েছে ইতিমধ্যেই ল্যাব পরীক্ষার জন্য স্থানীয় দোকান থেকে স্যানিটাইজার আটক করা হয়েছে। মৃতরা শুধু অ্যালকোহলযুক্ত স্যানিটাইজার খেয়েছে না তাতে মদ মিশিয়ে পান করেছে তাও খতিয়ে দেখা হচ্ছে। 

রাজস্থানে বিধায়কের দাম ২৫ লক্ষ টাকা, হর্সট্রেডিং-এর অভিযোগ করেও পাইলটদের ফিরতে আর্জি গেহলটের ...

লকডাউনের কারণে গত গত দশ দিন ধরে কুড়িচেদু ও সংলগ্ন  এলাকা বন্ধ রয়েছে। তালা ঝুলছে সমস্ত মদের দোকানেও। আক্রান্তদের পরিবারের তরফ থেকে জানান হয়েছে স্যানিটাইজার পান করার সঙ্গে সঙ্গে অনেকে অসুস্থ হয়ে পড়ে। অনেকে আবার জ্ঞানও হারিয়েছিলেন। তবে তাঁরা কতটা পরিমাণে স্যানিটাইজার পান করেছিলেন তা এখনও জানা যায়নি। 

করোনা প্রতিরোধ ব্রিটেনের ইম্পেরিয়াল প্রতিষেধকেও প্রাথমিক সাফল্য, পার্শ্বপ্রতিক্রিয়াহীন বলেই দাবি ...

মার্কিন করোনা প্রতিষেধকে চিনা হ্যাকারদের নজর, মডার্নার তথ্য নষ্টের চেষ্টার অভিযোগ ..