জম্মু ও কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা প্রদানকারী ৩৭০ ধারা বাতিল এবং জম্মু ও কাশ্মীর এবং লাদাখ-কে আলাদা দুটি কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল হিসাবে প্রতিষ্ঠা করার যে সিদ্ধান্ত কেন্দ্রীয় সরকারের তরফে নেওয়া হয়েছে, সেই সিদ্ধান্তকে ঐতিহাসিক সিদ্ধান্ত বলে দাবি করছে বিজেপি। 

আর এবার জম্মু ও কাশ্মীর এবং লাদাখের পর দার্জিলিং-কে কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলের দাবি তোলা হল পাহাড়ের তরফে। দার্জিলিং-কে বিধানসভা-সহ কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলের দাবি জানাল দার্জিলিং-এর বিজেপি সাংসদ রাজু বিস্তা। আর এই দাবি জানিয়েই রাজু বিস্তা চিঠি দিয়েছেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী অমিত শাহ-কে। যদিও পশ্চিমবঙ্গকে ভাগ করার যে কোনও পদক্ষেপের বিরোধিতা করবে বলে জানিয়েছে রাজ্যের শাসকদল। 

কাশ্মীর ইস্যুতে সংবিধান মেনেই হয়েছে সিদ্ধান্ত, মোদী সরকারের পাশে দাঁড়াল রাশিয়া

তবে রাজু বিস্তার চিঠির জবাবে অমিত শাহ জানিয়েছেন এই বিষয়ে কেন্দ্রীয় সরকার বিবেচনা করে দেখবে। প্রসঙ্গত, পৃথক রাজ্যের দাবিতে, প্রায় এক দশক ধরে উত্তপ্ত পরিস্থিতি পাহাড়ে। একটি সর্বভারতীয় সংবাদ মাধ্যমকে দেওয়া সাক্ষাতকারে দার্জিলিং-এর গোর্খা জনমুক্তি মোর্চার তরফে বিমল গুড়ুং জানিয়েছিলেন, পাহাড়ে রাজনৈতিক সমস্যার স্থায়ী সমাধানের যে প্রতিশ্রুতি দেওয়া হয়েছিল, তা বিজেপি পালন করুক।  পাশাপাশি মোর্চা নেতা রোশন গিরির কথায়, গত কয়েক বছর ধরে, তাঁরা পৃথক গোর্খাল্যান্ড রাজ্যের দাবি জানাচ্ছেন। বিজেপিও ইস্তেহারে প্রতিশ্রুতি দেওয়া হয়েছিল যে, রাজনৈতিক সমস্যার স্থায়ী সমাধান করা হবে। তাঁর আরও দাবি, দার্জিলিং-কে বিধানসভা-সহ কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল তৈরি করার এটাই সঠিক সময়। আর এই নিয়ে খুব শীঘ্রই তাঁরা বড় আন্দোলনের পথে নামবেন।