২০২২ সালে উত্তর প্রদেশে  বিধানসভা নির্বাচনের আগে ঘর গোছাতে শুরু করে দিয়েছে বিজেপি। গতকালই দিল্লিতে পৌছেছেন উত্তর প্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ। কাল দেখা করেছিলেন স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী অমিত শাহের সঙ্গে। এদিন সকাল ১১টারও আগে যোগী পৌছে গেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর ৭ নম্বর লোককল্যাণ মার্গের বাসভবনে। পূর্বসূচি অনুযায়ী এদিন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সঙ্গে বৈঠক তাঁর। পরবর্তী বৈঠক বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি জেপি নাড্ডার সঙ্গে। 


বৃহস্পতিবারই আদিত্যনাথ দিল্লি এসেছেন। সূত্রের খবর দিল্লি থেকে শীর্ষ নেতৃত্ব তাঁকে রীতিমত তলব করেই দিল্লি নিয়ে এসেছেন। অমিত শাহর সঙ্গে প্রায় ৯০ মিনিট বৈঠক করেছিলেন যোগী। সূত্রের খবর উত্তর প্রদেশে দলের  মধ্যে যে মতপার্থক্য তৈরি হয়েছে তা নিয়েই দীর্ঘ আলোচনা হয়েছে। পাশাপাশি যোগীর নেতৃত্ব নিয়েও প্রশ্ন উঠেছে।  পঞ্চায়েত নির্বাচনে দলের ভারাডুবির পরই বিধানসভা ভোটের আগে দলের রাশ হাতে রাখতে চাইছে কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব। তারই মধ্যে যোগী আদিত্যনাথের দুদিনের দিল্লি সফর যথেষ্ট তাৎপর্যপূর্ণ বলেও মনে করা হচ্ছে। কারণ যোগীর বিরুদ্ধে দলীয় নেতার মন্ত্রী আর কর্মী সমর্থকের ক্ষোভ আর চাপা নেই। ক্রমশই তা প্রকাশ্যে আসছে। 

সূত্রের খরবব করোনাভাইরাসের দ্বিতীয় তরঙ্গ মোকাবিলায় মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে যোগী আদিত্যনাথের বিরুদ্ধে ব্যর্থতার অভিযোগ তুলেছেন তাঁরই দলের সাংসদ ও বিধায়করা। পাশাপাশি রাজ্যের বেড়ে চলা অপরাধ নিয়েও তাঁরা সরব হয়েছে। সব মিলিয়ে কিছুটা চাপের মধ্যেই যোগী আদিত্যনাথের এই দিল্লি সফর। তবে গতকাল অমিত শাহর সঙ্গে বৈঠকের পর সোশ্যাল মিডিয়ায় বার্তা দিয়ে যোগী জানিয়েছিলেন স্বারাষ্ট্র মন্ত্রীর থেকে প্রয়োজনীয় পরামর্শ ও  সহযোগিতা তিনি পেয়েছেন।