তোষণের রাজনীতিই শেষ করা লক্ষ্য মোদী সরকারের। রবিবার তিন তালাক বিলের পক্ষে সওয়াল করতে গিয়ে এমনই দাবি করলেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। তাঁর অভিযোগ, এতদিন শুধুমাত্র ভোটব্যাঙ্কের ধরে রাখতে তোষণের রাজনীতির কারণেই তিন তালাক প্রথার বিরুদ্ধে কোনও পদক্ষেপ করা হয়নি। তোষণের রাজনীতির জন্য কংগ্রেসকে আক্রমণ করতে গিয়ে প্রয়াত রাজীব গান্ধীর সমালোচনা করতেও ছাড়েননি অমিত শাহ। 

তিন তালাকের অবলুপ্তি নিয়ে রবিবার দিল্লিতে একটি অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখতে গিয়ে এমনই মন্তব্য করেন অমিত শাহ। তিনি বলেন, 'কিছু মানুষ যখন ক্ষমতার ধরে রাখতে মরিয়া হয়ে ওঠে, তখন তাঁরা তোষণের রাজনীতির দ্বারস্থ হন। তাঁরা মুসলিম মহিলাদের নিয়ে চিন্তিত নন, বরং অনেক বেশি করে ভোটব্যাঙ্ক নিয়ে চিন্তিত।'

আরও পড়ুন- মোদী-শাহ কৃষ্ণ- অর্জুন, কাশ্মীর নিয়ে প্রশংসায় ভরালেন রজনীকান্ত

আরও পড়ুন- মেলেনি পণ, বিয়ে 'কবুল' করার এক ঘণ্টার মধ্য়েই স্ত্রী-কে তিন তালাক,পুলিশের জালে অভিযুক্ত

অমিত শাহ অভিযোগ করেন, তোষণের রাজনীতি দেশের গণতন্ত্রকে ধ্বংস করেছে। আর বছরের পর বছর ক্ষমতায় থাকার জন্য এই রাজনীতিকেই প্রশ্রয় দিয়েছে কংগ্রেস। শাহ বানো মামলায় সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশকে অগ্রাহ্য করে তিন তালাক প্রথা চালু রাখার জন্য রাজীব গান্ধী সরকার যে আইন পাশ করেছিল, তারও সমালোচনা করেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী। তিনি কটাক্ষ করে বলেন, ওই দিনটি ভারতের সংসদীয় ইতিহাসে একটি কালো দিন। তাঁর অভিযোগ, কংগ্রেসের জন্যই এতদিন তিন তালাক প্রথার অবলুপ্তি ঘটানো সম্ভবব হয়নি। 

অমিত শাহ বলেন, যখন ২০১৪ সালে নরেন্দ্র মোদী সরকার ক্ষমতায় আসার পরে তোষণের রাজনীতি বন্ধ হয়েছে। আর ২০১৯-এ দ্বিতীয়বার নরেন্দ্র মোদী ক্ষমতায় আসার পরে তা চিরতরে বিদায় নিয়েছে। ২০১৮ সালে মুসলিম মহিলাদের প্রধানমন্ত্রী যে প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন, দ্বিতীয়বার ক্ষমতায় এসেই তিনি তা পূরণ করেছেন বলে দাবি করেন অমিত শাহ।