একটি রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীর মতো একটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ পদ যোগ্য ব্যক্তির হাতেই তুলে দেওয়াও উচিত বলে মনে করেন সাধারণ মানুষ। আর সেই কারণেই হয়তো উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রীর পদে যখন যোগী আদিত্যনাথকে বসানো হয় তখন তাঁকে ঘিরে গড়ে উঠেছিল নানাবিধ সমালোচনা। কারণ যোগী আদিত্যনাথের সেই অর্থে কোনও প্রশাসনিক অভিজ্ঞতা নেই। তাই প্রশাসনিকক্ষেত্রে ওইরকম গুরুত্বপূর্ণ একটি পদে যোগী আদিত্যনাথের মতো একজনকে নির্বাচনের সিদ্ধান্তে অনেক রাজনীতিবিদকেই অবাক করেছিল। 

রবিবার লখনউ-এর একটি অনুষ্ঠানে যোগ দিয়েছিলেন বিজেপি সভাপতি তথা স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। উত্তরপ্রদেশের ৬৫ হাজার কোটি টাকার একটি প্রকল্পের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে দাঁড়িয়ে অমিত শাহ ব্যাখ্য দিলেন কেন উত্তরপ্রদেশের মুখ্য়মন্ত্রীর পদে বসানো হল। প্রসঙ্গত সেই অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন স্বয়ং যোগী আদিত্যনাথ।  

অনুষ্ঠানে দাঁডি়য়ে অমিত শাহ বলেন, অনেকেই ভাবতে পারেননি যে যোগী আদিত্যনাথকে মুখ্যমন্ত্রী করা হবে। এমনকী অনেকে তাঁকে একথাও বলেছিল যে, যোগীর তো পুরসভা চালানোরও ক্ষমতা নেই, তাঁকে কেন মুখ্যমন্ত্রী করা হচ্ছে। তিনি আরও বলেন একথা ঠিক যে যোগীর পুরসভা পরিচালনা করার অভিজ্ঞতা নেই। একটি মন্দিরের প্রধান হিসাবে কাজ করেছেন তিনি।

কিন্তু তবুও নরেন্দ্র মোদী এবং তাঁর যৌথ সিদ্ধান্তে তাঁকে মুখ্যমন্ত্রী করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলা জানিয়েছেন তিনি। সবশেষে তিনি যোগ করেন, তিনি খুবই কাজের মানুষ কাজ নিয়েই থাকতে তিনি ভালবাসেন। কাজের প্রতি তাঁর নীতিবোধই তাঁর কাজের অভিজ্ঞতায় থাকা খামতিকে মিটিয়ে দিয়েছে। এক কথায় বলতে গেলে এদিন যোগীর ভূয়সী প্রশংসা করেন অমিত শাহ।