গত বৃহস্পতিবার ভোরে ভারতের দক্ষিণ উপকূলে আছড়ে পড়েছিল ঘূর্ণিঝড় নিভার। ঝড়ের দাপটে পাঁচ জনের মৃত্যু হয়েছিল, উপরে গিয়েছিল কয়োকশো গাছ এবং অসংখ্য বিদ্যুতের খুঁটি। তবে এই ঝড় যে শুধুই খারাপ খবর বয়ে এনেছে তা নয়, ঘূর্ণিঝড় নিভারের জন্য অন্ধ্রপ্রদেশের একটি উপকূলীয় এলাকার বাসিন্দাদের ভাগ্যে জুটেছে রাশি রাশি সোনা।  

বৃহস্পতিবার ভোরে স্থলভাগে প্রবেশের পর শক্তি হারিয়ে সিভিয়ার সাইক্লোন নিভার একটি সাধারণ ঘূর্ণিঝড়ে পরিণত হয়েছিল। দুপুরের মধ্যেই আরও শক্তিক্ষয় হয়ে তা তৈরি করেছিল গভীর নিম্নচাপ। যার জেরে শুরু হয়েছিল ব্যাপক বৃষ্টিপাত। ঝড় কেটে যাওয়ার পরই শনিবার সকালে বৃষ্টি মাথায় নিয়েই পূর্ব গোদাবরী উপকূলের উদাপ্পা গ্রামের মৎসজীবীরা গিয়েছিলেন সৈকতে, তাঁদের নৌকা-জাল ইত্যাদি সব ঠিকঠাক আছে কিনা দেখতে। আর, সেখানে গিয়েই মূল্যবান ধাতুর ছোট জপমালা সহ ঝকঝকে সোনার বাঁট পেয়েছিলেন তাঁরা।

তাঁদের মুখেই বেলাভূমিতে সোনা পড়ে থাকার খবর ছড়িয়ে পড়েছিল। আর তারপরই সোনার খোঁজে সেখানে ছুটে আসেন কয়েকশো মানুষ। ঘূর্ণিঝড়-বৃষ্টি কিছুই তাদের আটকাতে পারেনি। তবে সবারই যে ভাগ্য খুলে গিয়েছে তা নয়, স্থানীয় বাসিন্দারা জানিয়েছেন অন্তত জন ৫০-এক লোক প্রত্যেকে গড়ে প্রায় ৩,৫০০ টাকার সোনা পেয়েছেন উপকূল থেকে।

কিন্তু, কোথা থেকে এল এই সোনা? স্থানীয় কিংবদন্তি অনুযায়ী ওই এলাকায় বেশকিছু প্রাচীন মন্দির ছিল। সময়ের সঙ্গে সঙ্গে সেগুলি সমুদ্রের নীচে ডুবে গিয়েছিল। ঘূর্ণিঝড় নীভার সমুদ্র ওলটপালট করে দিয়েছে। সমুদ্র মন্থনে সম্ভবত সেই জলের নিচে ডুবে থাকা মন্দিরগুলি থেকেই জোয়ারের টানে ওই সোনা উঠে এসেছে বেলভূমিতে।

আরও পড়ুন - করোনা-র উৎস কি তবে ভারতে, ২০১৯'এর গ্রীষ্মেই শুরু সংক্রমণ - বিশ্বজুড়ে হইচই

আরও পড়ুন - মর্গে পা কাটতে যেতেই চিৎকার করে উঠল 'মরা', ভুতের ভয়ে পালালেন লাশকাটা ঘরের কর্মী

আরও পড়ুন - কাশী বিশ্বনাথ মন্দির থেকে সারনাথ - আজ সারাদিন বারানসীতে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী

স্থানীয় এক পুলিশ কর্তা জানিয়েছেন, ওই মন্দিরগুলি সোনার অন্য উৎস থাকতে পারে। তিনি জানিয়েছেন, ওই এলাকায় বাড়ি বা মন্দিরের ভিত্তিপ্রস্তর অনুষ্ঠানের সময় ছোট ছোট সোনার পুঁতি বা কণা মাটির নিয়ে পুঁতে দেওয়ার রীতি রয়েছে। অক্টোবর মাসে অন্ধ্রে ভারী বৃষ্টিপাতের সময় উপকূলের বেশ কিছু পুরানো বাড়ি ও কয়েকটি পুরোনো মন্দির সমুদ্রে তলিয়ে গিয়েছিল। ঘূর্ণিঝড় নিভার সেই তলিয়ে যাওয়া বাড়ি ও মন্দিরের ভিতের নিচে পোঁতা সোনাই সমুদ্র সৈকতে তুলে এনেছে।

এই নিয়ে অন্ধ্র রাজ্য জুড়ে তীব্র শোরগোল পড়ে গিয়েছে। জানা গিয়েছে সরকারের পক্ষ থেকে শীঘ্রই রাজস্ব আধিকারিকদের ওই সোনার মূল্যায়ন করতে উদাপ্পা গ্রামে পাঠানো হবে।