বছরের শুরুতেই বোঝা গিয়েছিল ২০২০ হল বিপর্যয়ের বছর। গত সপ্তাহেই ঘূর্ণিঝড় নিভারের দাপটে ফলে যথেষ্ট ক্ষয়ক্ষতির মুখে পড়তে হয়েছিল তামিলনাড়ু ও পুদুচেরি-কে। সেই ধাক্কা সামলে উঠতে না উঠতেই সোমবার, ভারতের আবহাওয়া বিভাগ বা আইএমডি জানালো, আরও একটি ঘূর্ণিঝড় দানা বাঁধছে বঙ্গোপসাগরে। যার জন্য ইতিমধ্যেই দক্ষিণ তামিলনাড়ু এবং দক্ষিণ কেরলে জারি করা হয়েছে লাল সতর্কতা।

আইএমডি জানিয়েছে, দক্ষিণ-পূর্ব বঙ্গোপসাগর ও আশেপাশের অঞ্চলে একটি ডিপ্রেশন বা নিম্নচাপ-এর সৃষ্টি হয়েছে। আগামী ২৪ ঘণ্টায় তা পরিণত হবে গভীর নিম্নচাপে। তারপর তা আরও শক্তি বাড়িয়ে ঘূর্ণিঝড়ে পরিণত হওয়ার জোরালো সম্ভাবনা রয়েছে। আইএমডি-র বুলেটিন অনুযায়ী, সোমবার ভোর সাড়ে ৫ টায় নিম্নচাপ ব্যবস্থাটি কন্যাকুমারী থেকে ১১৫০ কিলোমিটার পূর্ব - দক্ষিণ-পূর্বে অবস্থান করছিল। ২ ডিসেম্বরের সন্ধ্যার দিকে এটি পশ্চিম ও উত্তর-পশ্চিম দিকে ধাবিত হয়ে শ্রীলঙ্কার উপকূল অতিক্রম করতে পারে। এরপর পশ্চিম দিকে অগ্রসর হয়ে ৩ ডিসেম্বর সকালে কেরলের কমোরিন অঞ্চলে আছড়ে পড়তে পারে।

আরও পড়ুন - অন্ধ্র উপকূলে মিলছে রাশি রাশি সোনা, ঘূর্ণিঝড় নিভার ভাগ্য খুলে দিল গ্রামবাসীদের

আরও পড়ুন - মর্গে পা কাটতে যেতেই চিৎকার করে উঠল 'মরা', ভুতের ভয়ে পালালেন লাশকাটা ঘরের কর্মী

আরও পড়ুন - কাশী বিশ্বনাথ মন্দির থেকে সারনাথ - আজ সারাদিন বারানসীতে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী

তবে নিম্নচাপের প্রভাবে ২ ডিসেম্বর থেকেই দক্ষিণ তামিলনাড়ু এবং দক্ষিণ কেরলের বেশ কয়েকটি জায়গায় ভারী থেকে অতি ভারী বৃষ্টিপাত হতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে। এর জন্য ওই দুই এলাকাতেই লাল সতর্কতা জারি করা হয়েছে। আইএমডি আগেই জানিয়েছিল আগামী চার দিনের মধ্যে তামিলনাড়ু, পুদুচেরি, কেরল এবং অন্ধ্রপ্রদেশের উপকূলীয় অঞ্চলে মাঝারি থেকে ভারী এবং অতি ভারী বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা রয়েছে। এই নতুন নিম্নচাপ তার সঙ্গে যুক্ত হয়ে পরিস্থিতিত জটিল করে দিতে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।