মঙ্গলবার, সকাল সাড়ে ৯টা। আন্দামান ও নিকোবর দ্বীপপুঞ্জের কাছেই দাঁড়িয়ে আইএনএস রণবীজয়। নৌসেনা ছুঁড়ল সুপারসনিক ক্রুজ ক্ষেপণাস্ত্র। ৩০০ কিলোমিটারের দূরে উড়ে গেল ডিআরডিও-র তৈরি ক্ষেপণাস্ত্র। বঙ্গোপসাগরের কার নিকোবর দ্বীপপুঞ্জের কাছে ছিল একটি জাহাজ। কয়েক মিনিট পরই সেই জাহাজে গিয়ে আঘাত করল সেই ক্ষেপণাস্ত্র। মুহূর্তে উড়ে গেল সেই জাহাজ।

কোনও যুদ্ধ নয়, এটা ছিল ডিআরডিও-র তৈরি ব্রাহ্মোস সুপারসনিক ক্রুজ ক্ষেপণাস্ত্রের জলে থাকা লক্ষ্যবস্তুর পরীক্ষা। ধ্বংস হওয়া জহাজটি ছিল নৌবাহিনীরই একটি পুরোনো জাহাজ। বলাই বাহুল্য সফল হল সেই পরীক্ষা।

আরও পড়ুন - শুধু ধর্ম নয়, পুরুষদের জানাতে হবে আরও বেশি কিছু - অসমে আরও কড়া 'লাভ জিহাদ' আইন

আরও পড়ুন - ডিসেম্বর পড়লেও শীত এল না কলকাতায়, সপ্তাহান্তে আরও চড়বে পারদ

আরও পড়ুন - ৫০০-র মধ্যে শুধু ৩২টি সংগঠন ডাক পেল সরকারের, ক্ষুব্ধ কৃষকরা আদৌ যোগ দেবেন তো

গত সপ্তাহেই, ভারত আন্দামান ও নিকোবর দ্বীপপুঞ্জের কাছে একটি স্থলে থাকা লক্ষ্যবস্তুর পরীক্ষা করেছিল। লক্ষ্যবস্তুটি রাখা হয়েছিল অন্য একটি দ্বীপে। সেই পরীক্ষাও সফল হয়েছিল। সেই পরীক্ষা পরিচালনা করেছিল ভারতীয় সেনাবাহিনী। ডিআরডিও-র তৈরি এই ক্ষেপণাস্ত্র সিস্টেম নানাভাবে ব্যবহার করা যায়। ব্রাহ্মোস সুপারসনিক ক্রুজ ক্ষেপণাস্ত্রটি বর্তমানে তার শ্রেণিতে বিশ্বের দ্রুততম অপারেটিং সিস্টেম ব্যবহার করে। ডিআরডিও-র সূত্রে জানা গিয়েছে ব্রাহ্মোস ক্ষেপণাস্ত্রটির স্ট্রাইক রেঞ্জ এখন বাড়িয়ে ৪৫০ কিলোমিটার করা হয়েছে।